১১:৪৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বিজ্ঞপ্তি

ঐতিহাসিক বাঘার মসজিদ ও মাজার এলাকায় অবৈধ স্থাপনা অপশারণ বিপাকে ব্যবসায়ীরা

প্রতিনিধির নাম

রাজশাহীর বাঘায় ঐতিহাসিক শাহী মসজিদ ও হযরত শাহ্ আঃ হামিদ দানিশ মন্দ (রঃ) এর স্মৃতি বিজড়িত মাজার এলাকায় সৌন্দর্য বৃদ্ধির লক্ষে অপশারণ করা হচ্ছে অবৈধ দোকান ঘর। ফলে বিপাকে ব্যবসায়ীরা।
জানা যায়,ওয়াকফা ষ্টেট ঐতিহাসিক মসজিদ ও মাজার এলাকায় অবৈধ প্রায় দুই শতাধিক দোকান ঘর করে ব্যবসা করেন স্থানীয় লোকজন। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এসব দোকান ঘর,পণ্য ও স্থাপনা সরিয়ে নেয়ার জন্য মাইকিং করার এক পর্যায় সোমবার ২১ ফেব্রুয়ারী বিকেল থেকে ব্যবসায়ীরা তাদের দোকান পাঠ সরিয়ে  নিচ্ছেন।
ব্যবসায়ীরা জানান, আমরা বিভিন্ন এনজিও   থেকে ঋণ নিয়ে দোকানদারী করে সেই দোকান থেকে টাকা আয় করে ঋন পরিশোধ করতাম এবং সংসার চালাতাম। এখন আমরা কি ভাবে এনজিওর ঋন পরিশোধ করবো কি করে চলবো, কোথায় যাবো ভাইবি কোনো কুল-কিনারা পাচ্ছি না।
তাদের একটি তালিকা করে  আলাদা কোন স্থানে পূর্নবাসন করার ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেন  এলাকার সচেতন মহল।
স্থানীয়ারা জানান,বাঘা মাজার এলাকায় গত কয়েক বছরে অবৈধ ভাবে গড়ে উঠেছিল প্রায় দুই শতাধিক দোকান পাঠ। ফলে ৫শ’ বছরের ঐতিহাসিক শাহী মসজিদ,মাজার এলাকার সৌন্দর্য বিনিষ্ট হতো। এ ছাড়া ভোগান্তির শিকার হতো ভ্রমন পিপাসু হাজার  হাজার আগুন্তক দর্শনার্থী।
বিষয়ে বাঘা পৌর মেয়র আব্দুর রাজ্জাক এসব ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের উচ্ছেদ করার পাশা-পাশি তাদের আলাদা কোন স্থানে পূর্নবাসন করার দাবী জানান।
উল্লেখ্য মঙ্গলবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকালে বাঘা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পাপিয়া সুলতানার নেতৃত্বে, রাজশাহী জেলা হতে আগত ম্যাজিস্টেটের উপস্হিতিতে বাঘা মাজার শরিফের অবৈধ স্হাপনা এবং দোকানপাট উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেন । এসময় উচ্ছেদ অভিযানে সহযোগিতা করেন বাঘা থানার পুলিশ এবং  বাঘা উপজেলা আনসার ও ভিডিপি অফিসার মিলন কুমার দাস  ও আনসার সদস্য বৃন্দ।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার পাপিয়া সুলতানা বলেন,বাঘার ঐতিহাসিক শাহী মসজিদ এলাকার সৌন্দর্য বৃদ্ধি  লক্ষে সকল অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে ফেলা হচ্ছে। আমার কাছে ব্যবসায়ীরা জায়গা চেয়ে আবেদন করেছেন। পরবর্তীতে এসব ব্যবসায়ীদের পূর্নবাসনের ব্যবস্থা করার চেষ্টা করবো।

ট্যাগস :
আপডেট : ০৪:০১:৫৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২২
১২১ বার পড়া হয়েছে

ঐতিহাসিক বাঘার মসজিদ ও মাজার এলাকায় অবৈধ স্থাপনা অপশারণ বিপাকে ব্যবসায়ীরা

আপডেট : ০৪:০১:৫৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২২

রাজশাহীর বাঘায় ঐতিহাসিক শাহী মসজিদ ও হযরত শাহ্ আঃ হামিদ দানিশ মন্দ (রঃ) এর স্মৃতি বিজড়িত মাজার এলাকায় সৌন্দর্য বৃদ্ধির লক্ষে অপশারণ করা হচ্ছে অবৈধ দোকান ঘর। ফলে বিপাকে ব্যবসায়ীরা।
জানা যায়,ওয়াকফা ষ্টেট ঐতিহাসিক মসজিদ ও মাজার এলাকায় অবৈধ প্রায় দুই শতাধিক দোকান ঘর করে ব্যবসা করেন স্থানীয় লোকজন। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এসব দোকান ঘর,পণ্য ও স্থাপনা সরিয়ে নেয়ার জন্য মাইকিং করার এক পর্যায় সোমবার ২১ ফেব্রুয়ারী বিকেল থেকে ব্যবসায়ীরা তাদের দোকান পাঠ সরিয়ে  নিচ্ছেন।
ব্যবসায়ীরা জানান, আমরা বিভিন্ন এনজিও   থেকে ঋণ নিয়ে দোকানদারী করে সেই দোকান থেকে টাকা আয় করে ঋন পরিশোধ করতাম এবং সংসার চালাতাম। এখন আমরা কি ভাবে এনজিওর ঋন পরিশোধ করবো কি করে চলবো, কোথায় যাবো ভাইবি কোনো কুল-কিনারা পাচ্ছি না।
তাদের একটি তালিকা করে  আলাদা কোন স্থানে পূর্নবাসন করার ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেন  এলাকার সচেতন মহল।
স্থানীয়ারা জানান,বাঘা মাজার এলাকায় গত কয়েক বছরে অবৈধ ভাবে গড়ে উঠেছিল প্রায় দুই শতাধিক দোকান পাঠ। ফলে ৫শ’ বছরের ঐতিহাসিক শাহী মসজিদ,মাজার এলাকার সৌন্দর্য বিনিষ্ট হতো। এ ছাড়া ভোগান্তির শিকার হতো ভ্রমন পিপাসু হাজার  হাজার আগুন্তক দর্শনার্থী।
বিষয়ে বাঘা পৌর মেয়র আব্দুর রাজ্জাক এসব ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের উচ্ছেদ করার পাশা-পাশি তাদের আলাদা কোন স্থানে পূর্নবাসন করার দাবী জানান।
উল্লেখ্য মঙ্গলবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকালে বাঘা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পাপিয়া সুলতানার নেতৃত্বে, রাজশাহী জেলা হতে আগত ম্যাজিস্টেটের উপস্হিতিতে বাঘা মাজার শরিফের অবৈধ স্হাপনা এবং দোকানপাট উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেন । এসময় উচ্ছেদ অভিযানে সহযোগিতা করেন বাঘা থানার পুলিশ এবং  বাঘা উপজেলা আনসার ও ভিডিপি অফিসার মিলন কুমার দাস  ও আনসার সদস্য বৃন্দ।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার পাপিয়া সুলতানা বলেন,বাঘার ঐতিহাসিক শাহী মসজিদ এলাকার সৌন্দর্য বৃদ্ধি  লক্ষে সকল অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে ফেলা হচ্ছে। আমার কাছে ব্যবসায়ীরা জায়গা চেয়ে আবেদন করেছেন। পরবর্তীতে এসব ব্যবসায়ীদের পূর্নবাসনের ব্যবস্থা করার চেষ্টা করবো।