০৮:০০ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিজ্ঞপ্তি

কুমিল্লার চান্দিনায় পুকুরে ফেলে নিজ শিশু সন্তানকে হত্যা করল মা

প্রতিনিধির নাম
কুমিল্লার জেলার চান্দিনা উপজেলায় সায়েমা নামে ৪ মাস বয়সী এক শিশুকে পুকুরে ফেলে হত্যা করার অভিযোগে শিশুটির মা সামিয়া আক্তার (২০) কে গ্রেপ্তার করেছে চান্দিনা থানা পুলিশ।
শিশুটির মা সামিয়া আক্তারের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী সোমবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টার দিকে উপজেলার বরকইট ইউনিয়নের খৈছড়া এলাকা থেকে ঐ শিশুর মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।ঘাতক সামিয়া আক্তার একই গ্রামের ওমর ফারুকের স্ত্রী। তারা ওমর ফারুকের বাড়িতেই থাকতেন। তবে সন্তান হওয়ায় সামিয়া বাবা বাড়িতে এসেছিলেন।
জিজ্ঞাসাবাদে সামিয়া তার সন্তানকে পুকুরে ফেলে হত্যা করেছেন বলে স্বীকারোক্তি দিয়েছে বলে জানান চান্দিনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আরিফুর রহমান।
ওসি আরিফুর রহমান জানান,ঘটনাটি ব্যাপারে আমরা শিশুটির মা সামিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে জানান, সোমবার সকালে তিনি শিশু সায়েমাকে ঘরের বিছানায় রেখে টয়লেটে যায়। ফিরে এসে দেখেন ছেলে বিছানায় নেই। কিন্ত সামিয়ার কথাবার্তা এবং ব্যবহার আমাদের সন্দেহ হয়। পরে আমরা তাকে একাধিকবার জিজ্ঞাসাবাদ করি। একপর্যায় তিনি স্বীকার করে পারিবারিক কলহের জেরে হতাশা হয়ে তিনি নিজের সন্তানকে বাড়ির পাশে পুকুরে ফেলে দিয়েছেন।
ওসি আরও জানায়, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
শিশুটির বাবা ওমর ফারুক বলেন,’আমার পরিবার নিয়ে আমরা হতাশ ছিলাম। সামিয়া ৮ মাসের গর্ভাবস্থায় বাবার বাড়ি চলে যায়।আজ আমাদের বাড়িতে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সে সকালে আমার সন্তানকে পানিতে ফেলে দেয়।’
এবিষয়ে চান্দিনা থানার উপ-পরির্দশক সুজন দত্ত বলেন,শিশু সায়েমার বাবা ওমর ফারুক বাদী হয়ে তার স্ত্রী সামিয়াকে আসামি করে চান্দিনা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।
ট্যাগস :
আপডেট : ০৫:২০:০৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২২
২৭৪ বার পড়া হয়েছে

কুমিল্লার চান্দিনায় পুকুরে ফেলে নিজ শিশু সন্তানকে হত্যা করল মা

আপডেট : ০৫:২০:০৪ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২২
কুমিল্লার জেলার চান্দিনা উপজেলায় সায়েমা নামে ৪ মাস বয়সী এক শিশুকে পুকুরে ফেলে হত্যা করার অভিযোগে শিশুটির মা সামিয়া আক্তার (২০) কে গ্রেপ্তার করেছে চান্দিনা থানা পুলিশ।
শিশুটির মা সামিয়া আক্তারের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী সোমবার (২১ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৯টার দিকে উপজেলার বরকইট ইউনিয়নের খৈছড়া এলাকা থেকে ঐ শিশুর মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।ঘাতক সামিয়া আক্তার একই গ্রামের ওমর ফারুকের স্ত্রী। তারা ওমর ফারুকের বাড়িতেই থাকতেন। তবে সন্তান হওয়ায় সামিয়া বাবা বাড়িতে এসেছিলেন।
জিজ্ঞাসাবাদে সামিয়া তার সন্তানকে পুকুরে ফেলে হত্যা করেছেন বলে স্বীকারোক্তি দিয়েছে বলে জানান চান্দিনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আরিফুর রহমান।
ওসি আরিফুর রহমান জানান,ঘটনাটি ব্যাপারে আমরা শিশুটির মা সামিয়াকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে জানান, সোমবার সকালে তিনি শিশু সায়েমাকে ঘরের বিছানায় রেখে টয়লেটে যায়। ফিরে এসে দেখেন ছেলে বিছানায় নেই। কিন্ত সামিয়ার কথাবার্তা এবং ব্যবহার আমাদের সন্দেহ হয়। পরে আমরা তাকে একাধিকবার জিজ্ঞাসাবাদ করি। একপর্যায় তিনি স্বীকার করে পারিবারিক কলহের জেরে হতাশা হয়ে তিনি নিজের সন্তানকে বাড়ির পাশে পুকুরে ফেলে দিয়েছেন।
ওসি আরও জানায়, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
শিশুটির বাবা ওমর ফারুক বলেন,’আমার পরিবার নিয়ে আমরা হতাশ ছিলাম। সামিয়া ৮ মাসের গর্ভাবস্থায় বাবার বাড়ি চলে যায়।আজ আমাদের বাড়িতে যাওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সে সকালে আমার সন্তানকে পানিতে ফেলে দেয়।’
এবিষয়ে চান্দিনা থানার উপ-পরির্দশক সুজন দত্ত বলেন,শিশু সায়েমার বাবা ওমর ফারুক বাদী হয়ে তার স্ত্রী সামিয়াকে আসামি করে চান্দিনা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।