০৭:১১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিজ্ঞপ্তি

চট্টগ্রাম-১২ আসনে সতন্ত্র প্রার্থীর গনসংযোগে হামলা-গুলিবর্ষন, নৌকার ৫ কর্মী গ্রেফতার

রিপন চৌধুরী বিশেষ প্রতিনিধি

চট্টগ্রাম-১২ আসনে (পটিয়া) গণসংযোগে যাওয়া স্বতন্ত্র প্রার্থী সামশুল হক চৌধুরীর গাড়িবহরে হামলা-ভাঙচুর ও গুলিবর্ষণের ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তারা ওই আসনের নৌকার প্রার্থী মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরীর কর্মী বলে জানা গেছে। গ্রেফতার পাঁচজন হলেন— মাঈনুদ্দিন মনির, সাদমান বিন আসাদ, নাফিজ ইমরান, মাহমুদুল হাসান ও লিটন বড়ুয়া। গত শনিবার রাতভর পটিয়ার কুসুমপুরা ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) আবু তৈয়ব মো. আরিফ হোসেন জানিয়েছেন। এ ঘটনায় ২৫ জন আহত হয়েছে। একই সাথে প্রার্থীর গাড়িসহ নির্বাচনি প্রচারে যুক্ত অন্তত ১৫টি যানবাহন ভাঙচুর করা হয় বলে অভিযোগ রয়েছে।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) আবু তৈয়ব মো. আরিফ হোসেন বলেন, ঈগল প্রতীকের প্রার্থী সামশুল হক চৌধুরীর নির্বাচনি প্রচারে হামলার অভিযোগে পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। হামলার ভিডিও ফুটেজ দেখে তাদের শনাক্ত করে গ্রেফতার করা হয়েছে। আরও কারা এ ঘটনায় জড়িত ছিল, সেটা আমরা তদন্ত করে দেখছি। তাদেরও গ্রেফতার করা হবে।
গত শনিবার রাত পর্যন্ত পটিয়ার কুসুমপুরা ইউনিয়নে সামশুল হক চৌধুরীর নির্বাচনি প্রচারে দু’দফা রক্তক্ষয়ী হামলার ঘটনা ঘটে। এতে সামশুলের ভাই-বোনসহ অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছেন বলে তাদের দাবি। এছাড়া প্রার্থীর গাড়িসহ নির্বাচনি প্রচারে যুক্ত অন্তত ১৫টি যানবাহন ভাঙচুর করা হয়।
হামলার পর রাতে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থক মনির হোসেনকে (৪৩) চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এছাড়া প্রার্থীর বোন সুলতানা ইয়াসমিন রেখা (৪২) এবং রাসেল (৩৩) ও কাসেম (৩৫) নামে দুই সমর্থককেও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সামশুলের অনুসারীরা এ হামলার জন্য আওয়ামী লীগ প্রার্থী মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরীর সমর্থকদের দায়ী করেন।
জানা গেছে, সামশুল হক চৌধুরী ২০০৮ সাল থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে তিনবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। শেষবার তাকে সংসদের হুইপ করা হয়। এবার তার বদলে দলটি চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরীকে মনোনয়ন দিয়েছে। মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন সামশুল, প্রতীক ঈগল।

ট্যাগস :
আপডেট : ১২:৪৫:২৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১ জানুয়ারী ২০২৪
১৬৬ বার পড়া হয়েছে

চট্টগ্রাম-১২ আসনে সতন্ত্র প্রার্থীর গনসংযোগে হামলা-গুলিবর্ষন, নৌকার ৫ কর্মী গ্রেফতার

আপডেট : ১২:৪৫:২৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১ জানুয়ারী ২০২৪

চট্টগ্রাম-১২ আসনে (পটিয়া) গণসংযোগে যাওয়া স্বতন্ত্র প্রার্থী সামশুল হক চৌধুরীর গাড়িবহরে হামলা-ভাঙচুর ও গুলিবর্ষণের ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তারা ওই আসনের নৌকার প্রার্থী মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরীর কর্মী বলে জানা গেছে। গ্রেফতার পাঁচজন হলেন— মাঈনুদ্দিন মনির, সাদমান বিন আসাদ, নাফিজ ইমরান, মাহমুদুল হাসান ও লিটন বড়ুয়া। গত শনিবার রাতভর পটিয়ার কুসুমপুরা ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) আবু তৈয়ব মো. আরিফ হোসেন জানিয়েছেন। এ ঘটনায় ২৫ জন আহত হয়েছে। একই সাথে প্রার্থীর গাড়িসহ নির্বাচনি প্রচারে যুক্ত অন্তত ১৫টি যানবাহন ভাঙচুর করা হয় বলে অভিযোগ রয়েছে।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বিশেষ শাখা) আবু তৈয়ব মো. আরিফ হোসেন বলেন, ঈগল প্রতীকের প্রার্থী সামশুল হক চৌধুরীর নির্বাচনি প্রচারে হামলার অভিযোগে পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। হামলার ভিডিও ফুটেজ দেখে তাদের শনাক্ত করে গ্রেফতার করা হয়েছে। আরও কারা এ ঘটনায় জড়িত ছিল, সেটা আমরা তদন্ত করে দেখছি। তাদেরও গ্রেফতার করা হবে।
গত শনিবার রাত পর্যন্ত পটিয়ার কুসুমপুরা ইউনিয়নে সামশুল হক চৌধুরীর নির্বাচনি প্রচারে দু’দফা রক্তক্ষয়ী হামলার ঘটনা ঘটে। এতে সামশুলের ভাই-বোনসহ অন্তত ২৫ জন আহত হয়েছেন বলে তাদের দাবি। এছাড়া প্রার্থীর গাড়িসহ নির্বাচনি প্রচারে যুক্ত অন্তত ১৫টি যানবাহন ভাঙচুর করা হয়।
হামলার পর রাতে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থক মনির হোসেনকে (৪৩) চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এছাড়া প্রার্থীর বোন সুলতানা ইয়াসমিন রেখা (৪২) এবং রাসেল (৩৩) ও কাসেম (৩৫) নামে দুই সমর্থককেও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সামশুলের অনুসারীরা এ হামলার জন্য আওয়ামী লীগ প্রার্থী মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরীর সমর্থকদের দায়ী করেন।
জানা গেছে, সামশুল হক চৌধুরী ২০০৮ সাল থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে তিনবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। শেষবার তাকে সংসদের হুইপ করা হয়। এবার তার বদলে দলটি চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরীকে মনোনয়ন দিয়েছে। মনোনয়ন বঞ্চিত হয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন সামশুল, প্রতীক ঈগল।