০৮:৫৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিজ্ঞপ্তি

চিতলমারীতে কুমড়ার বাম্পার ফলন

অরুন কুমার সরকার, চিতলমারী(বাগেরহাট)প্রতিনিধি

 

বাগেরহাটের চিতলমারীতে মিষ্টি কুমড়ার বাম্পার ফলন হয়েছে। মাছের ঘের পাড়ে মাচার ওপরে মিষ্টি কুমড়ার চাষে খরচ কম এবং ভালো লাভ হওয়ায় চাষিরা ঝুঁকছেন কুমড়া চাষে। উপজেলা কৃষি বিভাগের সহায়তা ও ব্যক্তি কেন্দ্রিক এই উপজেলায় ক্রমন্বয়ে মিষ্টি কুমড়ার চাষ বাড়ছে। এখানে বেঙ্গ এবং সুইটি জাতের হাইব্রিড কুমড়ার আবাদ বেশী। প্রতি হেক্টর জমিতে চলতি অর্থ বছরে ২০ থেকে ২৫ মেট্রিকটন কুমড়া উৎপাদিত হয়েছে। বর্তমান প্রতি মন মিষ্টি কুমড়ার পাইকারি বাজার দর চলছে ৮০০ থেকে ১১০০টাকা। এ সকল কুমড়া দেশের বিভিন্ন জেলা শহরে চালান হচ্ছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সিফাত আল মারুফ জানান, মিষ্টি কুমড়া চাষে স্থানীয় চাষিদের মাঝে প্রযুক্তিগত পরামর্শ ও সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে। এই উপজেলায় চলতি মৌসুমে ৬৫৪ হেক্টর জমিতে মিষ্টি কুমড়ার চাষ হয়েছে। যার ফলন খুবই সন্তোষজনক। স্থানীয় জন প্রতিনিধি, চাষি ও ব্যবসায়ীদের সাথে কথা হলে তারা জানান, মিষ্টি কুমড়া একটি অর্থকারী ফসল। সবজি হিসেবে এর চাহিদা অনেক।
সরেজমিনে বিভিন্ন এলাকা ঘুরে জানা গেছে ,মৎস্য ঘেরে মাছ, মাচায় শসার উৎপাদন। তারপর কুমড়া এবং শেষ দিকে উৎপাদিত হচ্ছে টমেটো। এতে প্রান্তিক কৃষকের অর্থনৈতিক স্বচ্ছলতা অনেক টা এগিয়ে চলছে।

ট্যাগস :
আপডেট : ১০:০৩:০৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩
২৭৫ বার পড়া হয়েছে

চিতলমারীতে কুমড়ার বাম্পার ফলন

আপডেট : ১০:০৩:০৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩

 

বাগেরহাটের চিতলমারীতে মিষ্টি কুমড়ার বাম্পার ফলন হয়েছে। মাছের ঘের পাড়ে মাচার ওপরে মিষ্টি কুমড়ার চাষে খরচ কম এবং ভালো লাভ হওয়ায় চাষিরা ঝুঁকছেন কুমড়া চাষে। উপজেলা কৃষি বিভাগের সহায়তা ও ব্যক্তি কেন্দ্রিক এই উপজেলায় ক্রমন্বয়ে মিষ্টি কুমড়ার চাষ বাড়ছে। এখানে বেঙ্গ এবং সুইটি জাতের হাইব্রিড কুমড়ার আবাদ বেশী। প্রতি হেক্টর জমিতে চলতি অর্থ বছরে ২০ থেকে ২৫ মেট্রিকটন কুমড়া উৎপাদিত হয়েছে। বর্তমান প্রতি মন মিষ্টি কুমড়ার পাইকারি বাজার দর চলছে ৮০০ থেকে ১১০০টাকা। এ সকল কুমড়া দেশের বিভিন্ন জেলা শহরে চালান হচ্ছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সিফাত আল মারুফ জানান, মিষ্টি কুমড়া চাষে স্থানীয় চাষিদের মাঝে প্রযুক্তিগত পরামর্শ ও সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে। এই উপজেলায় চলতি মৌসুমে ৬৫৪ হেক্টর জমিতে মিষ্টি কুমড়ার চাষ হয়েছে। যার ফলন খুবই সন্তোষজনক। স্থানীয় জন প্রতিনিধি, চাষি ও ব্যবসায়ীদের সাথে কথা হলে তারা জানান, মিষ্টি কুমড়া একটি অর্থকারী ফসল। সবজি হিসেবে এর চাহিদা অনেক।
সরেজমিনে বিভিন্ন এলাকা ঘুরে জানা গেছে ,মৎস্য ঘেরে মাছ, মাচায় শসার উৎপাদন। তারপর কুমড়া এবং শেষ দিকে উৎপাদিত হচ্ছে টমেটো। এতে প্রান্তিক কৃষকের অর্থনৈতিক স্বচ্ছলতা অনেক টা এগিয়ে চলছে।