০৫:১১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বিজ্ঞপ্তি

ডোমার উপজেলায় ১৪ হাজার শিক্ষার্থীর ফাইজারের করোনা টিকা প্রদান সম্পন্ন

প্রতিনিধির নাম
নীলফামারীর ডোমারে ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সি বিভিন্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১৪ হাজার শিক্ষার্থীর মাঝে কোভিড-১৯ ফাইজারের করোনা টিকা প্রদান সম্পন্ন হয়েছে।
রবিবার সকাল ৯টায় উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয়ের সহযোগিতায় উপজেলা শিল্পকলা একাডেমী ভবন কেন্দ্রে কোভিড-১৯ করোনা টিকা প্রদানের আয়োজন করা হয়েছে। গত ৮ই জানুয়ারি উপজেলা বাঁশ গবেষণা কেন্দ্র ও বাঁশ গবেষণা ইনস্টিটিউটটে এই টিকা প্রদানের শুভ উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট শাহিনা শবনম। এরই ধারাবাহিকতায় আজ ১৬ই জানুয়ারি পর্যন্ত মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১৪ হাজার শিক্ষার্থীদের মাঝে কোভিড-১৯ করোনা ফাইজারের টিকা প্রদান সম্পন্ন হয়েছে।
 উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ রায়হান বারী সকাল ৯টায় টিকা প্রদান অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন। টিকাদান কার্যক্রম সকাল ৯টা থেকে শুরু করে বিকেল ৪টা পর্যন্ত চলমান রয়েছে।
এসময় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এমওডিসি ডাঃ আবুল আলা, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শাকেরিনা বেগম, একাডেমিক সুপার ভাইজার শাফিউল ইসলাম, স্বাস্থ্য পরিদর্শক (ইনচার্জ) বেলাল উদ্দিন, স্যানেটারী ইন্সপেক্টর আল-আমিন রহমান, এমটি (ইপিই) হাবিবুর রহমান, ডোমার বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের শরীরচর্চা শিক্ষক হারুন-অর-রশিদসহ স্বাস্থ্য বিভাগের নব-নিয়োগ প্রাপ্ত ১২ জন সিনিয়র মিডওয়াইফ নার্স টিকা প্রদান কর্মসূচিতে অংশ নেয়।
এবিষয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শাকেরিনা বেগম জানান, আমাদের উপজেলায় হাইস্কুল রয়েছে  ৪৯ টি, ভোকেশনাল ২টি এবং মাদ্রাসা ১২ টিসহ মোট ৬৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। গত ৮ জানুয়ারি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিনা শবনম কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। প্রথম দিনে ২ হাজার শিক্ষার্থীদের ফাইজার কোভিড-১৯ করোনা টিকা প্রদান করা হয়েছে। এবং ধারাবাহিক ভাবে উপজেলার প্রায় ১৯ হাজার শিক্ষার্থীদের এই সেবা প্রদান করা হবে।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ রায়হান বারী জানান, অনেক দেশ যখন টিকা সংগ্রহে হিমশিম অবস্থা তখন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় আজ আমরা টিকা প্রদানের সাফল্যের পথে হাটছি। গত ৮ জানুয়ারি থেকে শুরু করে অদ্যবদি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সি প্রায় ১৪ হাজার  শিক্ষার্থীকে টিকা প্রদান করা হয়েছে। এই কর্মসূচি সফল করতে উপজেলা প্রশাসন, শিক্ষা বিভাগসহ আমাদের মেডিকেল টিম নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। আগামীতে উপজেলা সকল মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় ২৫ হাজার শিক্ষার্থীদেরকে এ সেবা প্রদান করার পরিকল্পনা রয়েছে। পরিশেষে তিনি টিকাদান কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন ।
ট্যাগস :
আপডেট : ০৫:১৯:৩৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২
১৭৪ বার পড়া হয়েছে

ডোমার উপজেলায় ১৪ হাজার শিক্ষার্থীর ফাইজারের করোনা টিকা প্রদান সম্পন্ন

আপডেট : ০৫:১৯:৩৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২
নীলফামারীর ডোমারে ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সি বিভিন্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১৪ হাজার শিক্ষার্থীর মাঝে কোভিড-১৯ ফাইজারের করোনা টিকা প্রদান সম্পন্ন হয়েছে।
রবিবার সকাল ৯টায় উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয়ের সহযোগিতায় উপজেলা শিল্পকলা একাডেমী ভবন কেন্দ্রে কোভিড-১৯ করোনা টিকা প্রদানের আয়োজন করা হয়েছে। গত ৮ই জানুয়ারি উপজেলা বাঁশ গবেষণা কেন্দ্র ও বাঁশ গবেষণা ইনস্টিটিউটটে এই টিকা প্রদানের শুভ উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট শাহিনা শবনম। এরই ধারাবাহিকতায় আজ ১৬ই জানুয়ারি পর্যন্ত মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ১৪ হাজার শিক্ষার্থীদের মাঝে কোভিড-১৯ করোনা ফাইজারের টিকা প্রদান সম্পন্ন হয়েছে।
 উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ রায়হান বারী সকাল ৯টায় টিকা প্রদান অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন। টিকাদান কার্যক্রম সকাল ৯টা থেকে শুরু করে বিকেল ৪টা পর্যন্ত চলমান রয়েছে।
এসময় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এমওডিসি ডাঃ আবুল আলা, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শাকেরিনা বেগম, একাডেমিক সুপার ভাইজার শাফিউল ইসলাম, স্বাস্থ্য পরিদর্শক (ইনচার্জ) বেলাল উদ্দিন, স্যানেটারী ইন্সপেক্টর আল-আমিন রহমান, এমটি (ইপিই) হাবিবুর রহমান, ডোমার বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের শরীরচর্চা শিক্ষক হারুন-অর-রশিদসহ স্বাস্থ্য বিভাগের নব-নিয়োগ প্রাপ্ত ১২ জন সিনিয়র মিডওয়াইফ নার্স টিকা প্রদান কর্মসূচিতে অংশ নেয়।
এবিষয়ে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শাকেরিনা বেগম জানান, আমাদের উপজেলায় হাইস্কুল রয়েছে  ৪৯ টি, ভোকেশনাল ২টি এবং মাদ্রাসা ১২ টিসহ মোট ৬৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। গত ৮ জানুয়ারি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিনা শবনম কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। প্রথম দিনে ২ হাজার শিক্ষার্থীদের ফাইজার কোভিড-১৯ করোনা টিকা প্রদান করা হয়েছে। এবং ধারাবাহিক ভাবে উপজেলার প্রায় ১৯ হাজার শিক্ষার্থীদের এই সেবা প্রদান করা হবে।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ রায়হান বারী জানান, অনেক দেশ যখন টিকা সংগ্রহে হিমশিম অবস্থা তখন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় আজ আমরা টিকা প্রদানের সাফল্যের পথে হাটছি। গত ৮ জানুয়ারি থেকে শুরু করে অদ্যবদি বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সি প্রায় ১৪ হাজার  শিক্ষার্থীকে টিকা প্রদান করা হয়েছে। এই কর্মসূচি সফল করতে উপজেলা প্রশাসন, শিক্ষা বিভাগসহ আমাদের মেডিকেল টিম নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। আগামীতে উপজেলা সকল মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রায় ২৫ হাজার শিক্ষার্থীদেরকে এ সেবা প্রদান করার পরিকল্পনা রয়েছে। পরিশেষে তিনি টিকাদান কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন ।