০৮:৩১ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিজ্ঞপ্তি

দেশসেরা কনটেন্ট নির্মাতা হয়েছেন সখীপুরের শিক্ষিকা জ্যোৎস্না

প্রতিনিধির নাম
ডিজিটাল কনটেন্ট নির্মাতা হিসেবে শিক্ষক বাতায়নের দেশসেরা কনটেন্ট নির্মাতা হয়েছেন জ্যোৎস্না আক্তার। তিনি টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলার কালমেঘা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। সম্প্রতি শিক্ষা বিষয়ক ওয়েব পোর্টাল ‘শিক্ষক বাতায়ন’ তার ছবিসহ এ তথ্য প্রকাশ করেছে। আজ শনিবার তিনি নিজেই সখীপুর প্রেসক্লাবে এসে সাংবাদিকদের কাছে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
এর আগে গত ২০২১ সালের ২৪ জানুয়ারি জ্যোৎস্না আক্তারকে জেলা প্রাথমিক শিক্ষক অ্যাম্বাসেডর হিসেবে স্বীকৃতি দেয় ‘শিক্ষক বাতায়ন’।
শিক্ষক বাতায়ন সূত্রে জানা যায়, সারাদেশে শিক্ষক-শিক্ষিকার মধ্যে এবার ৫ লাখ ২০ হাজার ১৯১টি কনটেন্ট শিক্ষক বাতায়নে আপলোড করা হয়েছিল। এর মধ্যে মডেল কনটেন্ট নির্বাচিত হয় ৯৫৩টি। এতে করোনাকালীন অনলাইনে ডিজিটাল কনটেন্টের মাধ্যমে পাঠদানের স্বীকৃতি স্বরূপ জ্যোৎস্না আক্তার দেশ সেরা কনটেন্ট নির্মাতা মনোনীত হয়েছেন।
জ্যোৎস্না আক্তার জানান, তিনি ২০১০ সালে ২১ সেপ্টেম্বর সহকারী শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। ২০১৪ সালে জানুয়ারি মাসে আইসিটি ইন এডুকেশন প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। ২০১৫ সাল থেকে তিনি শিক্ষক বাতায়নের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন। বাতায়নে তিনি অনলাইন ও  গুগল মিটের ক্লাস করেছেন ১৪৪টি। কনটেন্ট ৭৭ টি, ভিডিও কনটেন্ট  ৪৬টি, ব্লগ ৩৮টি ও চিত্র ১৯৩ টি আপলোড করেছেন। তিনি আরও জানান, মুক্তপাঠ থেকে তিনি এ পর্যন্ত ৫৮ টি কোর্স সম্পন্ন করে সনদ পেয়েছেন। মাইক্রোসফট ইনোভেশন এডুকেটর কোর্স সম্পন্ন করে সনদ (সার্টিফিকেট) পেয়েছেন ২৫৬ টি। বৃটিশ কাউন্সিল থেকে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়েও বিভিন্ন কর্মশালায় অংশগ্রহণ করে ৭২ টি সনদ (সার্টিফিকেট) অর্জন করেছেন।
জ্যোৎস্না আক্তার বলেন, শিক্ষাক্ষেত্রে আইসিটি’র ব্যবহার সরকারের একটা বড় চ্যালেঞ্জ। শিক্ষক বাতায়ন, কিশোর বাতায়ন ও মুক্তপাঠ এর মাধ্যমে শিক্ষাব্যবস্থাকে আরও আধুনিক করার প্রচেষ্টা চলছে। আমি এই মাধ্যমটি কাজে লাগিয়ে আমার বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ সারা দেশের শিক্ষার্থীদের জন্য কিছু করার চেষ্টা করেছি। ভবিষ্যতেও এ চেষ্টা অব্যাহত থাকবে।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রাফেউল ইসলাম বলেন, জ্যোৎস্না আক্তার আমাদের সখীপুর উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য মডেল। তাঁকে শিগগিরই প্রাথমিক শিক্ষা কার্যালয়ের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেওয়া হবে।
ট্যাগস :
আপডেট : ০৮:০০:০৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ৫ ফেব্রুয়ারী ২০২২
৫৭৪ বার পড়া হয়েছে

দেশসেরা কনটেন্ট নির্মাতা হয়েছেন সখীপুরের শিক্ষিকা জ্যোৎস্না

আপডেট : ০৮:০০:০৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ৫ ফেব্রুয়ারী ২০২২
ডিজিটাল কনটেন্ট নির্মাতা হিসেবে শিক্ষক বাতায়নের দেশসেরা কনটেন্ট নির্মাতা হয়েছেন জ্যোৎস্না আক্তার। তিনি টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলার কালমেঘা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক। সম্প্রতি শিক্ষা বিষয়ক ওয়েব পোর্টাল ‘শিক্ষক বাতায়ন’ তার ছবিসহ এ তথ্য প্রকাশ করেছে। আজ শনিবার তিনি নিজেই সখীপুর প্রেসক্লাবে এসে সাংবাদিকদের কাছে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
এর আগে গত ২০২১ সালের ২৪ জানুয়ারি জ্যোৎস্না আক্তারকে জেলা প্রাথমিক শিক্ষক অ্যাম্বাসেডর হিসেবে স্বীকৃতি দেয় ‘শিক্ষক বাতায়ন’।
শিক্ষক বাতায়ন সূত্রে জানা যায়, সারাদেশে শিক্ষক-শিক্ষিকার মধ্যে এবার ৫ লাখ ২০ হাজার ১৯১টি কনটেন্ট শিক্ষক বাতায়নে আপলোড করা হয়েছিল। এর মধ্যে মডেল কনটেন্ট নির্বাচিত হয় ৯৫৩টি। এতে করোনাকালীন অনলাইনে ডিজিটাল কনটেন্টের মাধ্যমে পাঠদানের স্বীকৃতি স্বরূপ জ্যোৎস্না আক্তার দেশ সেরা কনটেন্ট নির্মাতা মনোনীত হয়েছেন।
জ্যোৎস্না আক্তার জানান, তিনি ২০১০ সালে ২১ সেপ্টেম্বর সহকারী শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন। ২০১৪ সালে জানুয়ারি মাসে আইসিটি ইন এডুকেশন প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন। ২০১৫ সাল থেকে তিনি শিক্ষক বাতায়নের সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন। বাতায়নে তিনি অনলাইন ও  গুগল মিটের ক্লাস করেছেন ১৪৪টি। কনটেন্ট ৭৭ টি, ভিডিও কনটেন্ট  ৪৬টি, ব্লগ ৩৮টি ও চিত্র ১৯৩ টি আপলোড করেছেন। তিনি আরও জানান, মুক্তপাঠ থেকে তিনি এ পর্যন্ত ৫৮ টি কোর্স সম্পন্ন করে সনদ পেয়েছেন। মাইক্রোসফট ইনোভেশন এডুকেটর কোর্স সম্পন্ন করে সনদ (সার্টিফিকেট) পেয়েছেন ২৫৬ টি। বৃটিশ কাউন্সিল থেকে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়েও বিভিন্ন কর্মশালায় অংশগ্রহণ করে ৭২ টি সনদ (সার্টিফিকেট) অর্জন করেছেন।
জ্যোৎস্না আক্তার বলেন, শিক্ষাক্ষেত্রে আইসিটি’র ব্যবহার সরকারের একটা বড় চ্যালেঞ্জ। শিক্ষক বাতায়ন, কিশোর বাতায়ন ও মুক্তপাঠ এর মাধ্যমে শিক্ষাব্যবস্থাকে আরও আধুনিক করার প্রচেষ্টা চলছে। আমি এই মাধ্যমটি কাজে লাগিয়ে আমার বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ সারা দেশের শিক্ষার্থীদের জন্য কিছু করার চেষ্টা করেছি। ভবিষ্যতেও এ চেষ্টা অব্যাহত থাকবে।
উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রাফেউল ইসলাম বলেন, জ্যোৎস্না আক্তার আমাদের সখীপুর উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষকদের জন্য মডেল। তাঁকে শিগগিরই প্রাথমিক শিক্ষা কার্যালয়ের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা দেওয়া হবে।