০৮:১৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বিজ্ঞপ্তি

নোয়াখালীতে সাক্ষ্য দেওয়ায় যুবককে পিটিয়ে ফের মোটরসাইকেল ছিনতাই

প্রতিনিধির নাম
নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার নরোত্তমপুর ইউনিয়নের কালিরহাট বাজার এলাকায় এক যুবককে পিটিয়ে তাঁর মোটরসাইকেল ছিনিয়ে নিয়ে গেছে একদল সন্ত্রাসীরা গত ৬ই ফেব্রুয়ারী  রোববার বেলা সাড়ে তিনটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ছিনতাইয়ের শিকার ফখরুল ইসলাম নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।
ফখরুলের বাড়িও কালিরহাট বাজার এলাকায়। তিনি বলেন, একই এলাকায় ৩ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় তাঁর আত্মীয় আনোয়ার হোসেন ওরফে সাইফুলকে (৪০) মারধর করে একটি মোটরসাইকেল, মুঠোফোন ও নগদ টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায় স্থানীয় একদল সন্ত্রাসী। ওই ঘটনায় তাঁর আত্মীয় কবিরহাট থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। ঐ ঘটনায় আমি ১নং সাক্ষী হওয়ায় পুলিশ কে তথ্য দিলে এর জের ধরে এবার  বিকেলে একই স্থানের ফের আমার উপর হামলা হয়েছে।হামলাকারীরা হলো, রনি ওরফে কানা মিজান,একরাম ও আরাফাত সহ আরো কয়েকজন। তারা আমার উপর গুলিও ছুড়েছে।গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে গাছে লাগে। এরপর হামলাকারীরা আমার মাথায় আঘাত করে ম্যাক্স-১ নামের নতুন মোটরসাইকেল ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে যায়।
ভিকটিমের পিতা সূফি উল্যাহ জানান, আমার ছেলে আমার আত্নীয়ের উপর হামলা ও ছিনতাইয়ের ঘটনার সাক্ষী হওয়ার তার জেরে সন্ত্রাসী এরা আমার ছেলে মারত্নক জখম করে। আমরা নোয়াখালী জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার এর কাছে এর বিচার দাবী করছি।
পরে স্থানীয় লোকজন গুরুতর আহত অবস্থায় ফখরুলকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ২৫০ শর্য্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান।
স্থানীয় লোকজন জানান, একটি সন্ত্রাসী দল কালিরহাট এলাকায় পরপর দুটি মোটরসাইকেল ও টাকাপয়সা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটিয়েছে। এতে এলাকার সাধারণ মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।
কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) টমাস বড়ুয়া বলেন, কালিরহাট উপজেলার বাতেনের দোকান নামের স্থানে ফখরুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তির ওপর হামলার খবর পেয়ে তৎক্ষণাৎ পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।
তিনি আরও বলেন, হামলাকারীরা আহত ব্যক্তির মোটরসাইকেল নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এর আগে ৩ ফেব্রুয়ারি ফখরুলের আত্মীয়ের ওপরও আরেকটি হামলার ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। পুলিশ দুটি ঘটনাই তদন্ত করবে এবং দোষীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেবে।
ট্যাগস :
আপডেট : ১২:৩৫:৪৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ৭ ফেব্রুয়ারী ২০২২
১২৩ বার পড়া হয়েছে

নোয়াখালীতে সাক্ষ্য দেওয়ায় যুবককে পিটিয়ে ফের মোটরসাইকেল ছিনতাই

আপডেট : ১২:৩৫:৪৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ৭ ফেব্রুয়ারী ২০২২
নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার নরোত্তমপুর ইউনিয়নের কালিরহাট বাজার এলাকায় এক যুবককে পিটিয়ে তাঁর মোটরসাইকেল ছিনিয়ে নিয়ে গেছে একদল সন্ত্রাসীরা গত ৬ই ফেব্রুয়ারী  রোববার বেলা সাড়ে তিনটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ছিনতাইয়ের শিকার ফখরুল ইসলাম নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।
ফখরুলের বাড়িও কালিরহাট বাজার এলাকায়। তিনি বলেন, একই এলাকায় ৩ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় তাঁর আত্মীয় আনোয়ার হোসেন ওরফে সাইফুলকে (৪০) মারধর করে একটি মোটরসাইকেল, মুঠোফোন ও নগদ টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায় স্থানীয় একদল সন্ত্রাসী। ওই ঘটনায় তাঁর আত্মীয় কবিরহাট থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। ঐ ঘটনায় আমি ১নং সাক্ষী হওয়ায় পুলিশ কে তথ্য দিলে এর জের ধরে এবার  বিকেলে একই স্থানের ফের আমার উপর হামলা হয়েছে।হামলাকারীরা হলো, রনি ওরফে কানা মিজান,একরাম ও আরাফাত সহ আরো কয়েকজন। তারা আমার উপর গুলিও ছুড়েছে।গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে গাছে লাগে। এরপর হামলাকারীরা আমার মাথায় আঘাত করে ম্যাক্স-১ নামের নতুন মোটরসাইকেল ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে যায়।
ভিকটিমের পিতা সূফি উল্যাহ জানান, আমার ছেলে আমার আত্নীয়ের উপর হামলা ও ছিনতাইয়ের ঘটনার সাক্ষী হওয়ার তার জেরে সন্ত্রাসী এরা আমার ছেলে মারত্নক জখম করে। আমরা নোয়াখালী জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার এর কাছে এর বিচার দাবী করছি।
পরে স্থানীয় লোকজন গুরুতর আহত অবস্থায় ফখরুলকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ২৫০ শর্য্যা বিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান।
স্থানীয় লোকজন জানান, একটি সন্ত্রাসী দল কালিরহাট এলাকায় পরপর দুটি মোটরসাইকেল ও টাকাপয়সা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটিয়েছে। এতে এলাকার সাধারণ মানুষের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।
কবিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) টমাস বড়ুয়া বলেন, কালিরহাট উপজেলার বাতেনের দোকান নামের স্থানে ফখরুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তির ওপর হামলার খবর পেয়ে তৎক্ষণাৎ পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।
তিনি আরও বলেন, হামলাকারীরা আহত ব্যক্তির মোটরসাইকেল নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এর আগে ৩ ফেব্রুয়ারি ফখরুলের আত্মীয়ের ওপরও আরেকটি হামলার ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। পুলিশ দুটি ঘটনাই তদন্ত করবে এবং দোষীদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেবে।