০৭:২০ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিজ্ঞপ্তি

পঞ্চগড়ে ৭ মাসে বিএসএফের গুলিতে ৫ জনের মৃত্যু

মো. সম্রাট হোসাইন,পঞ্চগড়

Exif_JPEG_420

বিএসএফ কারণে অকারণে বাংলাদেশী নাগরিককে গুলি করছে।ফলে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে সীমান্ত হত্যা বেড়েই চলেছে। পঞ্চগড়ে গত বছরের মে মাস থেকে ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত সাতমাসে ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহীনি বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশী পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে।আহত হয়েছেন আরো তিনজন।জাতীয় দৈনিক বিভিন্ন সংবাদ পত্রে প্রকাশিত তথ্যে এ প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে।হতাহতদের একটি বড় অংশ হলো গবাদি পশু ব্যবসায়ী,চোরাকারবারি এবং সীমান্তবর্তী জমির কৃষক ও শ্রমিক।এদিকে বিজিবির পক্ষ থেকে চোরাচালান রোধে সীমান্ত এলাকায় জনসচেতনতা মুলক সভা-সমাবেশ করাও হচ্ছে।মানবধিকারের নেতারা বলছে,বাংলাদেশ সরকারের উচিত খুব দ্রুত সীমান্ত হত্যা আমলে নিয়ে ভারতের সঙ্গে কূটনৈতিক তৎপরতা বাড়ানো এবং সীমান্তে নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা।
জানা যায়,ভারতে লোকেদের অনুপ্রবেশের চেষ্টা।গবাদি পশু ও মানব পাচারের ফলে ভারত-বাংলাদেশ সীমানায় প্রতি বছর লোক হত্যার শিকার হচ্ছে অবৈধভাবে।এর মধ্যে দেখা যায়, বেশিরভাগই বাংলাদেশীদের সংখ্যা।সীমান্তের শূন্যরেখার কাছে কৃষিজমিতে কৃষিকাজ কিংবা নদীতটে মৎস্য ও পাথর আহরণের জন্যও অনেক মানুষকে সীমান্তপথ অতিক্রম করতে হয়। এর মধ্যে কেউ কেউ বিভিন্ন ছোটখাটো এবং গুরুতর আন্তঃসীমান্ত অপরাধে নিয়োজিত।
ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহীনি বিএসএফের গুলিতে পঞ্চগড়ের বিভিন্ন সীমান্তে নিহতরা হলেন,তেঁতুলিয়ার দক্ষিন কাসিমগঞ্জ আকবর আলীর ছেলে আইনুল হক,খয়খাট পাড়া এলাকার আব্দুল হামিদের ছেলে আক্কাশ আলী,দেবনগর ডাঙ্গাপাড়ার আনারুল হকের ছেলে সুজন আলী,ভজনপুর বগুলাহাটি এলাকার আব্দুর রহমানের ছেলে পলাশ হোসেন,বোদা উপজেলার সাকোয়া বকশীগঞ্জ এলাকার আব্দুর জব্বারের ছেলে নুর ইসলাম।গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছেন,আটোয়ারী উপজেলার ধামোর ভারিয়া পাড়া এলাকার কৃষক রবিউল ইসলাম,তেঁতুলিয়ার পাথর শ্রমিক ফরিদ,বোদা বড়শশী এলাকার হাবিবুর রহমান ছুটু।
আইনজীবি মো. রাহিদুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ফেলানী হত্যার বিচার জরালো ভাবে না চাওয়া, বিচার না পাওয়া এবং সীমান্তে হত্যার প্রতিবাদ জরালো ভাবে না করার কারণে ভারতীয় বি এস এফ বা সীমান্ত রক্ষীরা বাংলাদেশ নাগরিক হত্যায় অতি উৎসাহী হয়েছে। যেমনটা চিন এবং ভারত বডারের ক্ষেত্রে পরিলক্ষিত হয়না।
ট্যাগস :
আপডেট : ০৪:১৩:০২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
১১৫ বার পড়া হয়েছে

পঞ্চগড়ে ৭ মাসে বিএসএফের গুলিতে ৫ জনের মৃত্যু

আপডেট : ০৪:১৩:০২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
বিএসএফ কারণে অকারণে বাংলাদেশী নাগরিককে গুলি করছে।ফলে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে সীমান্ত হত্যা বেড়েই চলেছে। পঞ্চগড়ে গত বছরের মে মাস থেকে ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত সাতমাসে ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহীনি বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশী পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে।আহত হয়েছেন আরো তিনজন।জাতীয় দৈনিক বিভিন্ন সংবাদ পত্রে প্রকাশিত তথ্যে এ প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে।হতাহতদের একটি বড় অংশ হলো গবাদি পশু ব্যবসায়ী,চোরাকারবারি এবং সীমান্তবর্তী জমির কৃষক ও শ্রমিক।এদিকে বিজিবির পক্ষ থেকে চোরাচালান রোধে সীমান্ত এলাকায় জনসচেতনতা মুলক সভা-সমাবেশ করাও হচ্ছে।মানবধিকারের নেতারা বলছে,বাংলাদেশ সরকারের উচিত খুব দ্রুত সীমান্ত হত্যা আমলে নিয়ে ভারতের সঙ্গে কূটনৈতিক তৎপরতা বাড়ানো এবং সীমান্তে নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা।
জানা যায়,ভারতে লোকেদের অনুপ্রবেশের চেষ্টা।গবাদি পশু ও মানব পাচারের ফলে ভারত-বাংলাদেশ সীমানায় প্রতি বছর লোক হত্যার শিকার হচ্ছে অবৈধভাবে।এর মধ্যে দেখা যায়, বেশিরভাগই বাংলাদেশীদের সংখ্যা।সীমান্তের শূন্যরেখার কাছে কৃষিজমিতে কৃষিকাজ কিংবা নদীতটে মৎস্য ও পাথর আহরণের জন্যও অনেক মানুষকে সীমান্তপথ অতিক্রম করতে হয়। এর মধ্যে কেউ কেউ বিভিন্ন ছোটখাটো এবং গুরুতর আন্তঃসীমান্ত অপরাধে নিয়োজিত।
ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহীনি বিএসএফের গুলিতে পঞ্চগড়ের বিভিন্ন সীমান্তে নিহতরা হলেন,তেঁতুলিয়ার দক্ষিন কাসিমগঞ্জ আকবর আলীর ছেলে আইনুল হক,খয়খাট পাড়া এলাকার আব্দুল হামিদের ছেলে আক্কাশ আলী,দেবনগর ডাঙ্গাপাড়ার আনারুল হকের ছেলে সুজন আলী,ভজনপুর বগুলাহাটি এলাকার আব্দুর রহমানের ছেলে পলাশ হোসেন,বোদা উপজেলার সাকোয়া বকশীগঞ্জ এলাকার আব্দুর জব্বারের ছেলে নুর ইসলাম।গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছেন,আটোয়ারী উপজেলার ধামোর ভারিয়া পাড়া এলাকার কৃষক রবিউল ইসলাম,তেঁতুলিয়ার পাথর শ্রমিক ফরিদ,বোদা বড়শশী এলাকার হাবিবুর রহমান ছুটু।
আইনজীবি মো. রাহিদুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ফেলানী হত্যার বিচার জরালো ভাবে না চাওয়া, বিচার না পাওয়া এবং সীমান্তে হত্যার প্রতিবাদ জরালো ভাবে না করার কারণে ভারতীয় বি এস এফ বা সীমান্ত রক্ষীরা বাংলাদেশ নাগরিক হত্যায় অতি উৎসাহী হয়েছে। যেমনটা চিন এবং ভারত বডারের ক্ষেত্রে পরিলক্ষিত হয়না।