১২:২২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিজ্ঞপ্তি

বিশ্ব ভোক্তা অধিকার দিবস ২০২৪ উদযাপন

মো. জাহিদুর রহমান:

প্রতিবারের ন্যায় এবারও বাংলাদেশে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর উদযাপন করলো বিশ্ব ভোক্তা অধিকার দিবস-২০২৪। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য হলো ‌‌‘স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ি, ভোক্তার স্বার্থে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করি।’

দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে ১৫ মার্চ ২০২৪ (শুক্রবার) সকাল ১০টায় ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। সেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম (টিটু)। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ক্যাবের সভাপতি গোলাম রহমান, এফবিসিসিআই-এর সিনিয়র সহ-সভাপতি আমিন হেলালী। অনুষ্ঠানটিতে সভাপতিত্ব করেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ। স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ. এইচ. এম সফিকুজ্জামান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, রমজান উপলক্ষ্যে আমদানি করা ৫০০০০ টন পিঁয়াজ আগামী সপ্তাহের মধ্যে বাজারে আসবে এবং তখন সাধারণ ভোক্তা এর সুফল পাবে। এছাড়াও সরকার টিসিবির মাধ্যমে নিম্ন আয়ের ১ কোটি মানুষকে স্মার্ট ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমে সাশ্রয়ী মূল্যে চাল, ডাল, সয়াবিন তেল, ছোলা,চিনি ও খেজুর সরবরাহ করছে এবং তা নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের চাহিদা কমানোর মাধ্যমে বাজার স্থিতিশীল রাখতে সহায়ক ভূমিকা পালন করছে। পণ্যের অবৈধ মজুদ পরিস্থিতি তদারকি বিষয়ে জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর কর্তৃক প্রস্তুতকৃত SCMS (Supply Chain Monitoring System) শীর্ষকসফটওয়্যারের পাইলটিং পর্যায়ে উদ্বোধন করা হয়।

প্রতিমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও ভোক্তা অধিদপ্তর কর্তৃক নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য স্থিতিশীল ও সরবরাহ স্বাভাবিক রাখার লক্ষ্যে গৃহীত বিভিন্ন কার্যক্রম তাঁর বক্তব্যে তুলে ধরেন। এ ক্ষেত্রে তিনি চলমান বাজার তদারকির পাশাপাশি ব্যবায়ীদের সচেতন করার লক্ষ্যে অধিদপ্তর কর্তৃক আয়োজিত মতবিনিময় সভা, সেমিনারসহ বিভিন্ন সচেতনতামূলক কার্যক্রম এর কথা বলেন৷ এছাড়াও তিনি বিভিন্ন কর্পোরেট প্রতিষ্ঠান ও সুপারশপ কর্তৃক নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের সাশ্রয়ী মূল্যে বিক্রয় কার্যক্রম এর উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, ভোক্তারা সুযোগ সুবিধা পেলে ব্যবসায়ীরা সরকারের সুবিধা পাবেন।

আলোচনায় ক্যাবের সভাপতি গোলাম রহমান বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বলেন, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির ফলে সাধারণ মানুষের জীবন মানের উপর কিছুটা নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। এ থেকে উত্তরণের লক্ষ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও ভোক্তা অধিদপ্তর কাজ করছে। তিনি আরও বলেন, দেশে জনবান্ধব প্রতিষ্ঠান থাকলে ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তর নিসন্দেহে তাদের মধ্যে অন্যতম একটি প্রতিষ্ঠান। ভোক্তা অধিকারের ক্ষেত্রে তিনি ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি ভোক্তাদেরও সচেতন হওয়ার কথা বলেন। তিনি ভোক্তা স্বার্থে অধিদপ্তরকে শক্তিশালী করার আহবান জানান।

এফবিসিসিআই-এর সিনিয়র সহ-সভাপতি আমিন হেলালী বলেন, তিনি বর্তমান বৈশ্বিক প্রেক্ষাপট বিবেচনায় তথ্য প্রযুক্তির যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিতের মাধ্যমে সরকারি, বেসরকারি খাত, ভোক্তা, গণমাধ্যমসহ সবাইকে সম্মিলিতভাবে এগিয়ে যেতে হবে। তিনি স্কুল পর্যায় থেকেই ভোক্তা অধিকার সম্পর্কে সচেতন করার কথা বলেন। পণ্যের অযাচিত মূল্য বৃদ্ধির সাথে জড়িত অসাধু ব্যবসায়ীদের আইনের আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহণের কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে বিশ্ব ভোক্তা অধিকার দিবস-২০২৪ উদযাপন উপলক্ষ্যে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় এবং গণমাধ্যমসহ ৪ টি পর্যায়ে আয়োজিত রচনা প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। এদিকে ব্যবসায় উত্তম চর্চার স্বীকৃতি স্বরূপ ৪ জন ব্যবসায়ীকে ”বেস্ট প্র্যাকটিস সম্মাননা” পুরস্কার প্রদান করা হয়। পরে, ‘ভোক্তা বাতায়ন-২০২৪’ শীর্ষক স্মরণিকার মোড়ক উন্মোচন করেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু।

ভোক্তা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এইচ. এম. সফিকুজ্জামান স্বাগত বক্তব্যে আলোচনা সভার প্রধান অতিথি বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু এমপি, সভাপতি বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জনাব তপন কান্তি ঘোষ, অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথিসহ উপস্থিত সকলকে অধিদপ্তরের নিয়মিত কার্যক্রম বাজার তদারকি, অভিযোগ নিষ্পত্তি ও সচেতনতামূলক কার্যক্রমের পাশাপাশি অধিদপ্তরের হটলাইন ১৬১২১, অধিদপ্তরের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ ও ইউটিউব চ্যানেল, CCMS (Consumer Complaint Management System) শীর্ষক সফটওয়্যারের মাধ্যমে অভিযোগ নিষ্পত্তি, SCMS (Supply Chain Monitoring System) শীর্ষক সফটওয়্যারের মাধ্যমে পণ্যের অবৈধ মজুদ পরিস্থিতি তদারকি বিষয়ে সম্যক ধারনা প্রদান করেন।

সমাপনী বক্তব্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব বাজারের অসম প্রতিযোগিতা ঠেকাতে অধিদপ্তর, প্রতিযোগিতা কমিশন, আমদানিকারী, উৎপাদনকারী, ব্যবসায়ী অ্যাসোসিয়েশনের, বাজার সমিতিসহ সকলের ভূমিকা পালন করতে হবে। সকলে নিজ নিজ অবস্থান থেকে দায়িত্ব নিয়ে সমন্বিতভাবে কাজ করে বাজার ব্যবস্থা স্বাভাবিক রাখবেন-এ আশাবাদ ব্যক্ত করে প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দসহ উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

ট্যাগস :
আপডেট : ১২:১৯:১৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৬ মার্চ ২০২৪
৬৩ বার পড়া হয়েছে

বিশ্ব ভোক্তা অধিকার দিবস ২০২৪ উদযাপন

আপডেট : ১২:১৯:১৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৬ মার্চ ২০২৪

প্রতিবারের ন্যায় এবারও বাংলাদেশে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর উদযাপন করলো বিশ্ব ভোক্তা অধিকার দিবস-২০২৪। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য হলো ‌‌‘স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ি, ভোক্তার স্বার্থে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করি।’

দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে ১৫ মার্চ ২০২৪ (শুক্রবার) সকাল ১০টায় ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। সেখানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম (টিটু)। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ক্যাবের সভাপতি গোলাম রহমান, এফবিসিসিআই-এর সিনিয়র সহ-সভাপতি আমিন হেলালী। অনুষ্ঠানটিতে সভাপতিত্ব করেন বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব তপন কান্তি ঘোষ। স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ. এইচ. এম সফিকুজ্জামান।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী বলেন, রমজান উপলক্ষ্যে আমদানি করা ৫০০০০ টন পিঁয়াজ আগামী সপ্তাহের মধ্যে বাজারে আসবে এবং তখন সাধারণ ভোক্তা এর সুফল পাবে। এছাড়াও সরকার টিসিবির মাধ্যমে নিম্ন আয়ের ১ কোটি মানুষকে স্মার্ট ফ্যামিলি কার্ডের মাধ্যমে সাশ্রয়ী মূল্যে চাল, ডাল, সয়াবিন তেল, ছোলা,চিনি ও খেজুর সরবরাহ করছে এবং তা নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের চাহিদা কমানোর মাধ্যমে বাজার স্থিতিশীল রাখতে সহায়ক ভূমিকা পালন করছে। পণ্যের অবৈধ মজুদ পরিস্থিতি তদারকি বিষয়ে জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর কর্তৃক প্রস্তুতকৃত SCMS (Supply Chain Monitoring System) শীর্ষকসফটওয়্যারের পাইলটিং পর্যায়ে উদ্বোধন করা হয়।

প্রতিমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও ভোক্তা অধিদপ্তর কর্তৃক নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য স্থিতিশীল ও সরবরাহ স্বাভাবিক রাখার লক্ষ্যে গৃহীত বিভিন্ন কার্যক্রম তাঁর বক্তব্যে তুলে ধরেন। এ ক্ষেত্রে তিনি চলমান বাজার তদারকির পাশাপাশি ব্যবায়ীদের সচেতন করার লক্ষ্যে অধিদপ্তর কর্তৃক আয়োজিত মতবিনিময় সভা, সেমিনারসহ বিভিন্ন সচেতনতামূলক কার্যক্রম এর কথা বলেন৷ এছাড়াও তিনি বিভিন্ন কর্পোরেট প্রতিষ্ঠান ও সুপারশপ কর্তৃক নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের সাশ্রয়ী মূল্যে বিক্রয় কার্যক্রম এর উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, ভোক্তারা সুযোগ সুবিধা পেলে ব্যবসায়ীরা সরকারের সুবিধা পাবেন।

আলোচনায় ক্যাবের সভাপতি গোলাম রহমান বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বলেন, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির ফলে সাধারণ মানুষের জীবন মানের উপর কিছুটা নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। এ থেকে উত্তরণের লক্ষ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও ভোক্তা অধিদপ্তর কাজ করছে। তিনি আরও বলেন, দেশে জনবান্ধব প্রতিষ্ঠান থাকলে ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তর নিসন্দেহে তাদের মধ্যে অন্যতম একটি প্রতিষ্ঠান। ভোক্তা অধিকারের ক্ষেত্রে তিনি ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি ভোক্তাদেরও সচেতন হওয়ার কথা বলেন। তিনি ভোক্তা স্বার্থে অধিদপ্তরকে শক্তিশালী করার আহবান জানান।

এফবিসিসিআই-এর সিনিয়র সহ-সভাপতি আমিন হেলালী বলেন, তিনি বর্তমান বৈশ্বিক প্রেক্ষাপট বিবেচনায় তথ্য প্রযুক্তির যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিতের মাধ্যমে সরকারি, বেসরকারি খাত, ভোক্তা, গণমাধ্যমসহ সবাইকে সম্মিলিতভাবে এগিয়ে যেতে হবে। তিনি স্কুল পর্যায় থেকেই ভোক্তা অধিকার সম্পর্কে সচেতন করার কথা বলেন। পণ্যের অযাচিত মূল্য বৃদ্ধির সাথে জড়িত অসাধু ব্যবসায়ীদের আইনের আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহণের কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে বিশ্ব ভোক্তা অধিকার দিবস-২০২৪ উদযাপন উপলক্ষ্যে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় এবং গণমাধ্যমসহ ৪ টি পর্যায়ে আয়োজিত রচনা প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। এদিকে ব্যবসায় উত্তম চর্চার স্বীকৃতি স্বরূপ ৪ জন ব্যবসায়ীকে ”বেস্ট প্র্যাকটিস সম্মাননা” পুরস্কার প্রদান করা হয়। পরে, ‘ভোক্তা বাতায়ন-২০২৪’ শীর্ষক স্মরণিকার মোড়ক উন্মোচন করেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু।

ভোক্তা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এইচ. এম. সফিকুজ্জামান স্বাগত বক্তব্যে আলোচনা সভার প্রধান অতিথি বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু এমপি, সভাপতি বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জনাব তপন কান্তি ঘোষ, অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথিসহ উপস্থিত সকলকে অধিদপ্তরের নিয়মিত কার্যক্রম বাজার তদারকি, অভিযোগ নিষ্পত্তি ও সচেতনতামূলক কার্যক্রমের পাশাপাশি অধিদপ্তরের হটলাইন ১৬১২১, অধিদপ্তরের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ ও ইউটিউব চ্যানেল, CCMS (Consumer Complaint Management System) শীর্ষক সফটওয়্যারের মাধ্যমে অভিযোগ নিষ্পত্তি, SCMS (Supply Chain Monitoring System) শীর্ষক সফটওয়্যারের মাধ্যমে পণ্যের অবৈধ মজুদ পরিস্থিতি তদারকি বিষয়ে সম্যক ধারনা প্রদান করেন।

সমাপনী বক্তব্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব বাজারের অসম প্রতিযোগিতা ঠেকাতে অধিদপ্তর, প্রতিযোগিতা কমিশন, আমদানিকারী, উৎপাদনকারী, ব্যবসায়ী অ্যাসোসিয়েশনের, বাজার সমিতিসহ সকলের ভূমিকা পালন করতে হবে। সকলে নিজ নিজ অবস্থান থেকে দায়িত্ব নিয়ে সমন্বিতভাবে কাজ করে বাজার ব্যবস্থা স্বাভাবিক রাখবেন-এ আশাবাদ ব্যক্ত করে প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দসহ উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।