০৭:০৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিজ্ঞপ্তি

ভোলায় জমি বিরোধকে কেন্দ্র করে এক নারীকে কুপিয়ে জখম, দুই আসামি গ্রেফতার

তুহিন খন্দকার, জোলা প্রতিনিধি, ভোলা
ভোলায় জমিজমা বিরোধকে কেন্দ্র করে  এক নারীকে কুপিয়ে জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। মুমূর্ষ অবস্থায় ওই নারীকে উদ্ধার করে স্থানীয়রা ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। আহত ওই নারীর নাম সালমা বেগম (৩৫)। এ ঘটনায় লিটন ও সাগর মাল নামের দুই আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ভোলা সদর উপজেলার পূর্ব ইলিশা গুপ্ত মুন্সি ৮ নং ওয়ার্ডে ওই ঘটনা ঘটে।
আহত সালমার স্বামী অলিউল্লাহ জানায়, অলিউল্লাহ পেশায় অটো রিক্সা চালক। ১৩ বছর বিয়ে হলেও তাদের ঘরে কোন সন্তান না হওয়ায় স্বজনদের  বঞ্চনা আর কটু কথার শিকার হন এই দম্পতি।
ভোলা সদর উপজেলার গুপ্ত মুন্সি এলাকার মৃত জয়নাল আবদিনের ছেলে অলিউল্লাহ।  আপন ভাই লিটন এর সাথে দীর্ঘদিন যাবত অলিউল্লাহর পারিবারিকভাবে জমি নিয়ে বিরোধ চলছিলো। নিঃসন্তানি হওয়ায় অলিউল্লাহ ও তার স্ত্রী সালমা বেগমকে বাড়ি থেকে উৎখাত করতে বিভিন্ন সময় মারধর করতো লিটন ও তার পরিবার। এ নিয়ে একাধিকবার এলাকায় শালীস বিচার হলেও কারো কথাই তোয়াক্কা করেনা লিটন।
অলিউল্লাহ আরো জানায়, ভোলার সদর থানার সোর্স  (দালাল) হিসেবে পরিচিত বাড়ির পার্শ্ববর্তী তোফায়েল অলিউল্লার স্ত্রী সালমা বেগমকে একাধিকবার কু-প্রস্তাব দেয়। এতে সালমা রাজি না হয়ে তোফায়েলের স্ত্রীর কাছে ঘটনা জানিয়ে দিলে তোফায়েল এর সাথে তার স্ত্রীর পারিবারিক কলহ তৈরি হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তোফায়েল অলিউল্লাহর বড় ভাই লিটনের সাথে জোট বাধে। অলিউল্লাহ ও তার স্ত্রীকে বাড়ি থেকে বিতাড়িত করতে তোফায়েল ও লিটন  ষড়যন্ত্রের জাল বিস্তার করে। তোফায়েল এর ইন্দনে শুক্রবার দুপুরে জমি বিরোধকে কেন্দ্র করে অলিউল্লাহর স্ত্রীকে বাসায় একা পেয়ে লিটন (৫৫) লিটনের জামাতা শাহীন মাল (৩২)  মো: সাগর মাল (২৮)  নাইম (১৮) ও পারুল বেগম (৪৫) দেশীয় ধারালো অস্ত্র দা দিয়ে অলিউল্লাহর স্ত্রী সালমা বেগমকে মাথায় কুপিয়ে ও লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে মারাত্মক যখন করে। আহত সালমা মাটিতে লুটিয়ে পড়লে অভিযুক্তরা অলিউল্লাহর বসত ঘর ভাঙচুর করে ঘরের আসবাবপত্র নিয়ে যায়। মুমূর্ষ অবস্থায় স্থানীয়রা সালমাকে উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।
পুনরায় বিকালে লিটন ও তার জামাতা শাহীন সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে ভোলা সদর হাসপাতালে অলিউল্লাহ ও তার স্ত্রী সালমার উপর হামলা করতে আসলে হাসপাতালের আশপাশে থাকা লোকজন তাদেরকে আটক করে। বিষয়টি ভোলা পুলিশ সুপার মাহিদুজ্জামানকে অবগত করা হলে তার নির্দেশে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে ভোলা সদর থানা পুলিশ এসে অভিযুক্তদের আটক করে থানায় নিয়ে যায়। পরে আহত সালমার স্বামী  অলিউল্লাহ বাদী হয়ে রাতে ভোলা সদর মডেল থানায় পাঁচ জনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় লিটন ও সাগর মাল নামের দুই আসামিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্তরা পলাতক রয়েছে। বিভিন্নভাবে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।
এ বিষয়ে ভোলা সদর মডেল থানা ওসি মনির হোসেন মিয়া জানান, জমি নিয়ে বিরোধে এক নারীকে আহত করার ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। ওই মামলায় আমরা দুজনকে গ্রেফতার করেছি, বাকি আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।
ট্যাগস :
আপডেট : ০১:২২:২০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
৮৯ বার পড়া হয়েছে

ভোলায় জমি বিরোধকে কেন্দ্র করে এক নারীকে কুপিয়ে জখম, দুই আসামি গ্রেফতার

আপডেট : ০১:২২:২০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
ভোলায় জমিজমা বিরোধকে কেন্দ্র করে  এক নারীকে কুপিয়ে জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। মুমূর্ষ অবস্থায় ওই নারীকে উদ্ধার করে স্থানীয়রা ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। আহত ওই নারীর নাম সালমা বেগম (৩৫)। এ ঘটনায় লিটন ও সাগর মাল নামের দুই আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
শুক্রবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ভোলা সদর উপজেলার পূর্ব ইলিশা গুপ্ত মুন্সি ৮ নং ওয়ার্ডে ওই ঘটনা ঘটে।
আহত সালমার স্বামী অলিউল্লাহ জানায়, অলিউল্লাহ পেশায় অটো রিক্সা চালক। ১৩ বছর বিয়ে হলেও তাদের ঘরে কোন সন্তান না হওয়ায় স্বজনদের  বঞ্চনা আর কটু কথার শিকার হন এই দম্পতি।
ভোলা সদর উপজেলার গুপ্ত মুন্সি এলাকার মৃত জয়নাল আবদিনের ছেলে অলিউল্লাহ।  আপন ভাই লিটন এর সাথে দীর্ঘদিন যাবত অলিউল্লাহর পারিবারিকভাবে জমি নিয়ে বিরোধ চলছিলো। নিঃসন্তানি হওয়ায় অলিউল্লাহ ও তার স্ত্রী সালমা বেগমকে বাড়ি থেকে উৎখাত করতে বিভিন্ন সময় মারধর করতো লিটন ও তার পরিবার। এ নিয়ে একাধিকবার এলাকায় শালীস বিচার হলেও কারো কথাই তোয়াক্কা করেনা লিটন।
অলিউল্লাহ আরো জানায়, ভোলার সদর থানার সোর্স  (দালাল) হিসেবে পরিচিত বাড়ির পার্শ্ববর্তী তোফায়েল অলিউল্লার স্ত্রী সালমা বেগমকে একাধিকবার কু-প্রস্তাব দেয়। এতে সালমা রাজি না হয়ে তোফায়েলের স্ত্রীর কাছে ঘটনা জানিয়ে দিলে তোফায়েল এর সাথে তার স্ত্রীর পারিবারিক কলহ তৈরি হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তোফায়েল অলিউল্লাহর বড় ভাই লিটনের সাথে জোট বাধে। অলিউল্লাহ ও তার স্ত্রীকে বাড়ি থেকে বিতাড়িত করতে তোফায়েল ও লিটন  ষড়যন্ত্রের জাল বিস্তার করে। তোফায়েল এর ইন্দনে শুক্রবার দুপুরে জমি বিরোধকে কেন্দ্র করে অলিউল্লাহর স্ত্রীকে বাসায় একা পেয়ে লিটন (৫৫) লিটনের জামাতা শাহীন মাল (৩২)  মো: সাগর মাল (২৮)  নাইম (১৮) ও পারুল বেগম (৪৫) দেশীয় ধারালো অস্ত্র দা দিয়ে অলিউল্লাহর স্ত্রী সালমা বেগমকে মাথায় কুপিয়ে ও লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে মারাত্মক যখন করে। আহত সালমা মাটিতে লুটিয়ে পড়লে অভিযুক্তরা অলিউল্লাহর বসত ঘর ভাঙচুর করে ঘরের আসবাবপত্র নিয়ে যায়। মুমূর্ষ অবস্থায় স্থানীয়রা সালমাকে উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।
পুনরায় বিকালে লিটন ও তার জামাতা শাহীন সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে ভোলা সদর হাসপাতালে অলিউল্লাহ ও তার স্ত্রী সালমার উপর হামলা করতে আসলে হাসপাতালের আশপাশে থাকা লোকজন তাদেরকে আটক করে। বিষয়টি ভোলা পুলিশ সুপার মাহিদুজ্জামানকে অবগত করা হলে তার নির্দেশে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে ভোলা সদর থানা পুলিশ এসে অভিযুক্তদের আটক করে থানায় নিয়ে যায়। পরে আহত সালমার স্বামী  অলিউল্লাহ বাদী হয়ে রাতে ভোলা সদর মডেল থানায় পাঁচ জনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় লিটন ও সাগর মাল নামের দুই আসামিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্তরা পলাতক রয়েছে। বিভিন্নভাবে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।
এ বিষয়ে ভোলা সদর মডেল থানা ওসি মনির হোসেন মিয়া জানান, জমি নিয়ে বিরোধে এক নারীকে আহত করার ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। ওই মামলায় আমরা দুজনকে গ্রেফতার করেছি, বাকি আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।