১২:১৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বিজ্ঞপ্তি

যুদ্ধাপরাধী জামায়াত-বিএনপির অবৈধ হরতালের বিরুদ্ধে জাতীয় শ্রমিক লীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের উন্নয়ন সমাবেশ ও শান্তি মিছিল অনুষ্ঠিত

প্রতিনিধির নাম

২০১৩-২০১৪ সালের ন্যায় যুদ্ধাপরাধী জামায়াত-বিএনপির সমাবেশ ও হরতাল-অবরোধের নামে গাড়ীতে অগ্নিসংযোগ, পুলিশ-শ্রমিক হত্যা, সরকারী প্রতিষ্ঠানে ভাংচুর জ¦ালাও-পোড়াও করে দেশকে অস্থিতিশীল করা এবং সকাল সন্ধ্যা দেশ বিরোধী অবৈধ হরতালের প্রতিবাদে জাতীয় শ্রমিক লীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের উদ্যোগে ২৯ অক্টোবর ২০২৩ইং মতিঝিল বক চত্ত¡রে সকাল ০৯.০০ টায় থেকে দুপুর ০২.০০ টা পর্যন্ত শান্তি ও উন্নয়ন সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শ্রমিক লীগের সভাপতি জনাব মোঃ ইব্রাহীমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জাতীয় শ্রমিক লীগের সংগ্রামী সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব নূর কুতুব আলম মান্নান। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জাতীয় শ্রমিক লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব বি.এম. জাফর, দপ্তর সম্পাদক জনাব এটিএম ফজলুল হক, মহিলা সম্পাদিকা মিসেস প্রমিলা পোদ্দার, কার্যকরী সদস্য জনাব মোঃ আমজাদ আলী খান। সমাবেশ সঞ্চালনা করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক জনাব কাজী সেলিম সরোয়ার। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাবেক সহ-সভাপতি মোঃ ইনসুর আলী, সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ খলিলুর রহমান, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আনোয়ার হোসেন দিপু, সাবেক সম্পাদক মÐলীর সদস্য আলতাফ হোসেন, মোঃ বাচ্চু খন্দকার, আবুল কালাম সিকদার, সীমা চৌধুরী, দেওয়ান মোহাম্মদ ইউনুস, শ্রী তপন, মোঃ আজাহার আলী, খোরশেদ আলম নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন থানা। উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন জাতীয় ইউনিয়ন, বেসিক ইউনিয়ন থানা ও ওয়ার্ড শাখার নেতৃবৃন্দ। সমাবেশ শেষে একটি শান্তি মিছিল মতিঝিলের বিভিন্ন রাস্তা প্রদক্ষিণ করে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে এসে শেষ হয়।
সমাবেশে প্রধান অতিথি জনাব নূর কুতুব আলম মান্নান বলেন, ২৮ অক্টোবর ২০২৩ইং রাজধানীর নয়া পল্টনে বিএনপি-জামাত সমাবেশের নামে যে নৈরাজ্য, ভাংচুর, ধ্বংসাত্মক কর্মকান্ড ও দেশের শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্বে নিয়োজিত পুলিশ সদস্যদের উপর ন্যক্কারজনক হামলা করে পুলিশ সদস্যকে হত্যা করেছে, রাজধানী সহ সারাদেশে পরিবহণে অগ্নি সন্ত্রাস করে একজন নিরিহ শ্রমিককে হত্যা করেছে তা অত্যন্ত ঘৃণিত ও নিন্দনীয়, এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। আমরা অবশ্যই এই হত্যাকান্ডের প্রতিরোধ ও প্রতিশোধ নিব। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে চলমান উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রায় ঈর্শান্বিত হয়ে দেশকে অস্থিতিশীল করে পশ্চাদপদ করতে বিএনপি-জামাত এই জাতীয় নারকীয় হত্যাকান্ড, নৈরাজ্য, ভাংচুর ও ধ্বংসাত্মক কর্মকান্ডে লিপ্ত হয়েছে। তাদের অপরাজনীতি কোন অবস্থাতেই সহ্য করা হবে না। তিনি আরো বলেন, জাতীয় শ্রমিক লীগ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নিজ হাতে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। তাই এই সংগঠনের মধ্যে ঢুকে সংগঠনকে ক্ষতিগ্রস্ত করে দেশ বিরোধী খুনী ও ষড়যন্ত্রকারীরা আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চায়। তিনি তাদের বিরুদ্ধেও প্রতিরোধ গড়ে তুলে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে পুনরায় রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এনে দেশের চলমান উন্নয়ন ও অগ্রগতির ধারাকে অব্যাহত রাখার আহŸান জানান।
সভাপতির বক্তব্যে জনাব মোঃ ইব্রাহীম বলেন, জাতীয় শ্রমিক লীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণে যারা ষড়যন্ত্র করে  নেতাকর্মীদের মধ্যে বিভাজন সৃষ্টি করতে চায়, অচিরেই তাদের দাঁতভাঙ্গা জবাব দিয়ে মহানগরের ঐক্য ও ঐতিহ্য রক্ষা করা হবে। তিনি ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধভাবে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার বিজয়কে সুনিশ্চিত করতে সর্বাত্মকভাবে কাজ করার আহŸান জানান।
বার্তা প্রেরক

ট্যাগস :
আপডেট : ০৭:৩৫:৫৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২৩
১০৭ বার পড়া হয়েছে

যুদ্ধাপরাধী জামায়াত-বিএনপির অবৈধ হরতালের বিরুদ্ধে জাতীয় শ্রমিক লীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের উন্নয়ন সমাবেশ ও শান্তি মিছিল অনুষ্ঠিত

আপডেট : ০৭:৩৫:৫৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২৩

২০১৩-২০১৪ সালের ন্যায় যুদ্ধাপরাধী জামায়াত-বিএনপির সমাবেশ ও হরতাল-অবরোধের নামে গাড়ীতে অগ্নিসংযোগ, পুলিশ-শ্রমিক হত্যা, সরকারী প্রতিষ্ঠানে ভাংচুর জ¦ালাও-পোড়াও করে দেশকে অস্থিতিশীল করা এবং সকাল সন্ধ্যা দেশ বিরোধী অবৈধ হরতালের প্রতিবাদে জাতীয় শ্রমিক লীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের উদ্যোগে ২৯ অক্টোবর ২০২৩ইং মতিঝিল বক চত্ত¡রে সকাল ০৯.০০ টায় থেকে দুপুর ০২.০০ টা পর্যন্ত শান্তি ও উন্নয়ন সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শ্রমিক লীগের সভাপতি জনাব মোঃ ইব্রাহীমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জাতীয় শ্রমিক লীগের সংগ্রামী সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব নূর কুতুব আলম মান্নান। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জাতীয় শ্রমিক লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব বি.এম. জাফর, দপ্তর সম্পাদক জনাব এটিএম ফজলুল হক, মহিলা সম্পাদিকা মিসেস প্রমিলা পোদ্দার, কার্যকরী সদস্য জনাব মোঃ আমজাদ আলী খান। সমাবেশ সঞ্চালনা করেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক জনাব কাজী সেলিম সরোয়ার। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাবেক সহ-সভাপতি মোঃ ইনসুর আলী, সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ খলিলুর রহমান, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আনোয়ার হোসেন দিপু, সাবেক সম্পাদক মÐলীর সদস্য আলতাফ হোসেন, মোঃ বাচ্চু খন্দকার, আবুল কালাম সিকদার, সীমা চৌধুরী, দেওয়ান মোহাম্মদ ইউনুস, শ্রী তপন, মোঃ আজাহার আলী, খোরশেদ আলম নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন থানা। উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন জাতীয় ইউনিয়ন, বেসিক ইউনিয়ন থানা ও ওয়ার্ড শাখার নেতৃবৃন্দ। সমাবেশ শেষে একটি শান্তি মিছিল মতিঝিলের বিভিন্ন রাস্তা প্রদক্ষিণ করে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে এসে শেষ হয়।
সমাবেশে প্রধান অতিথি জনাব নূর কুতুব আলম মান্নান বলেন, ২৮ অক্টোবর ২০২৩ইং রাজধানীর নয়া পল্টনে বিএনপি-জামাত সমাবেশের নামে যে নৈরাজ্য, ভাংচুর, ধ্বংসাত্মক কর্মকান্ড ও দেশের শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্বে নিয়োজিত পুলিশ সদস্যদের উপর ন্যক্কারজনক হামলা করে পুলিশ সদস্যকে হত্যা করেছে, রাজধানী সহ সারাদেশে পরিবহণে অগ্নি সন্ত্রাস করে একজন নিরিহ শ্রমিককে হত্যা করেছে তা অত্যন্ত ঘৃণিত ও নিন্দনীয়, এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই। আমরা অবশ্যই এই হত্যাকান্ডের প্রতিরোধ ও প্রতিশোধ নিব। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে চলমান উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রায় ঈর্শান্বিত হয়ে দেশকে অস্থিতিশীল করে পশ্চাদপদ করতে বিএনপি-জামাত এই জাতীয় নারকীয় হত্যাকান্ড, নৈরাজ্য, ভাংচুর ও ধ্বংসাত্মক কর্মকান্ডে লিপ্ত হয়েছে। তাদের অপরাজনীতি কোন অবস্থাতেই সহ্য করা হবে না। তিনি আরো বলেন, জাতীয় শ্রমিক লীগ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নিজ হাতে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। তাই এই সংগঠনের মধ্যে ঢুকে সংগঠনকে ক্ষতিগ্রস্ত করে দেশ বিরোধী খুনী ও ষড়যন্ত্রকারীরা আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে চায়। তিনি তাদের বিরুদ্ধেও প্রতিরোধ গড়ে তুলে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে পুনরায় রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এনে দেশের চলমান উন্নয়ন ও অগ্রগতির ধারাকে অব্যাহত রাখার আহŸান জানান।
সভাপতির বক্তব্যে জনাব মোঃ ইব্রাহীম বলেন, জাতীয় শ্রমিক লীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণে যারা ষড়যন্ত্র করে  নেতাকর্মীদের মধ্যে বিভাজন সৃষ্টি করতে চায়, অচিরেই তাদের দাঁতভাঙ্গা জবাব দিয়ে মহানগরের ঐক্য ও ঐতিহ্য রক্ষা করা হবে। তিনি ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধভাবে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার বিজয়কে সুনিশ্চিত করতে সর্বাত্মকভাবে কাজ করার আহŸান জানান।
বার্তা প্রেরক