০৬:২৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিজ্ঞপ্তি

রামগঞ্জে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে বন্ধ

প্রতিনিধির নাম
লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে বন্ধ হলো অপ্রাপ্ত বয়ষ্ক দুই কিশোর কিশোরীর। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার ৭ ফেব্রুয়ারি দুপুরে রামগঞ্জ পৌর বাঁশঘর গ্রামের শাহ আলম মিয়ার বাগান বাড়ীতে।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সোনাপুর ওয়াপদা এলাকার আক্তার মিয়ার ছেলে দেলোয়ার হোসেনের (১৯) সাথে পাশ্ববর্তি বাঁশঘর গ্রামের মৃত আলী হোসেনের মেয়ের (১৬) সাথে বিয়ের তারিখ নির্ধারণ করা হয়।
রামগঞ্জ থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক অলি উল্যাহ জানান, সোমবার পুর্ব নির্ধারিত বিয়ের অনুষ্ঠানে বরযাত্রী উপস্থিত হলেও ৯৯৯ এ অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনাস্থলে গিয়ে বর কনেসহ অভিভাবকদের ডেকে আনা হয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে।
এসময় উভয়ের কাগজপত্র যাচাই করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাপ্তি চাকমা বিয়ে বন্ধের ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাপ্তি চাকমা জানান, বয়স কম হওয়ায় আমরা অভিভাবকদের মুচলেকা নিয়ে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলরের উপস্থিতিতে বিয়ে বন্ধ করেছি। উভয়ের বিয়ের বয়স হলে তাদেরকে বিয়ে দিবেন বলেও অভিভাবকগণ মুচলেকা দেন।
ট্যাগস :
আপডেট : ১০:৫৮:৪৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৮ ফেব্রুয়ারী ২০২২
১৬১ বার পড়া হয়েছে

রামগঞ্জে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে বন্ধ

আপডেট : ১০:৫৮:৪৩ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৮ ফেব্রুয়ারী ২০২২
লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে বন্ধ হলো অপ্রাপ্ত বয়ষ্ক দুই কিশোর কিশোরীর। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার ৭ ফেব্রুয়ারি দুপুরে রামগঞ্জ পৌর বাঁশঘর গ্রামের শাহ আলম মিয়ার বাগান বাড়ীতে।
পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সোনাপুর ওয়াপদা এলাকার আক্তার মিয়ার ছেলে দেলোয়ার হোসেনের (১৯) সাথে পাশ্ববর্তি বাঁশঘর গ্রামের মৃত আলী হোসেনের মেয়ের (১৬) সাথে বিয়ের তারিখ নির্ধারণ করা হয়।
রামগঞ্জ থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক অলি উল্যাহ জানান, সোমবার পুর্ব নির্ধারিত বিয়ের অনুষ্ঠানে বরযাত্রী উপস্থিত হলেও ৯৯৯ এ অভিযোগের ভিত্তিতে ঘটনাস্থলে গিয়ে বর কনেসহ অভিভাবকদের ডেকে আনা হয় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে।
এসময় উভয়ের কাগজপত্র যাচাই করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাপ্তি চাকমা বিয়ে বন্ধের ব্যবস্থা গ্রহণ করেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাপ্তি চাকমা জানান, বয়স কম হওয়ায় আমরা অভিভাবকদের মুচলেকা নিয়ে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলরের উপস্থিতিতে বিয়ে বন্ধ করেছি। উভয়ের বিয়ের বয়স হলে তাদেরকে বিয়ে দিবেন বলেও অভিভাবকগণ মুচলেকা দেন।