০১:৩৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ১০ আশ্বিন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বিজ্ঞপ্তি

শুরু হলো বাংলালিংক ও সফেন পরিবারের একসাথে পথচলা

প্রতিনিধির নাম

স্টাফ রিপোর্টার, মো. ছাব্বির হোসাইন

নতুন বছর ২০২২ উদযাপন উপলক্ষে বাংলাদেশের তৃতীয় বৃহত্তম জিএসএম ভিত্তিক মুঠোফোন নেটওয়ার্ক সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান বাংলালিংকের পক্ষ হতে সফেনের প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক, আনসার-ভিডিপি উন্নয়ন ব্যাংকের পরিচালক, দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার ও ডেইলি বাংলাদেশ ডায়েরির সম্পাদক বহুমুখী শিল্পস্রষ্টা ড. খান আসাদুজ্জামানকে শুভেচ্ছা স্মারক প্রদান করেন বাংলালিংকের কর্পোরেট গ্রæপ ম্যানেজার মো. মিরাজুল ইসলাম ও কর্পোরেট একাউন্ট ম্যানেজার মো. সাজ্জাদ হোসাইন। ভবিষ্যতে শান্তি, সম্প্রীতি, সেবা ও বহুমাত্রিক মানবতার কল্যাণে উদ্ভাসিত প্রতিষ্ঠান সোসাইটি ফর এনলাইটিং নেশন (সফেন) গ্রæপের সাথে একত্র হয়ে কাজ করার জন্য প্রতিশ্রæতিবদ্ধ হন। ২০০৫ সালে যাত্রা শুরু করে বর্তমানে বাংলাদেশে বাংলালিংক সংযোগ ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় ৪ কোটি। মোবাইলে যোগাযোগকে বাংলাদেশের মানুষের কাছে সাশ্রয়ী করে তোলার ক্ষেত্রে বড় অবদান রেখেছে এই প্রতিষ্ঠানটি। বাংলালিংক-এর সাফল্যের মূলে ছিল একটি সাধারণ মিশন, ‘মোবাইলে যোগাযোগকে সবার নাগালে আনা’, যেটি বাংলালিংক-এর ভিত্তি হিসেবে কাজ করেছে।

ট্যাগস :
আপডেট : ১০:৫৯:৪০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২২
৫৭৬ বার পড়া হয়েছে

শুরু হলো বাংলালিংক ও সফেন পরিবারের একসাথে পথচলা

আপডেট : ১০:৫৯:৪০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২২

স্টাফ রিপোর্টার, মো. ছাব্বির হোসাইন

নতুন বছর ২০২২ উদযাপন উপলক্ষে বাংলাদেশের তৃতীয় বৃহত্তম জিএসএম ভিত্তিক মুঠোফোন নেটওয়ার্ক সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান বাংলালিংকের পক্ষ হতে সফেনের প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক, আনসার-ভিডিপি উন্নয়ন ব্যাংকের পরিচালক, দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার ও ডেইলি বাংলাদেশ ডায়েরির সম্পাদক বহুমুখী শিল্পস্রষ্টা ড. খান আসাদুজ্জামানকে শুভেচ্ছা স্মারক প্রদান করেন বাংলালিংকের কর্পোরেট গ্রæপ ম্যানেজার মো. মিরাজুল ইসলাম ও কর্পোরেট একাউন্ট ম্যানেজার মো. সাজ্জাদ হোসাইন। ভবিষ্যতে শান্তি, সম্প্রীতি, সেবা ও বহুমাত্রিক মানবতার কল্যাণে উদ্ভাসিত প্রতিষ্ঠান সোসাইটি ফর এনলাইটিং নেশন (সফেন) গ্রæপের সাথে একত্র হয়ে কাজ করার জন্য প্রতিশ্রæতিবদ্ধ হন। ২০০৫ সালে যাত্রা শুরু করে বর্তমানে বাংলাদেশে বাংলালিংক সংযোগ ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় ৪ কোটি। মোবাইলে যোগাযোগকে বাংলাদেশের মানুষের কাছে সাশ্রয়ী করে তোলার ক্ষেত্রে বড় অবদান রেখেছে এই প্রতিষ্ঠানটি। বাংলালিংক-এর সাফল্যের মূলে ছিল একটি সাধারণ মিশন, ‘মোবাইলে যোগাযোগকে সবার নাগালে আনা’, যেটি বাংলালিংক-এর ভিত্তি হিসেবে কাজ করেছে।