১০:৪৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৯ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিজ্ঞপ্তি

সোনাহাট স্থলবন্দরে ভুট্টার এলসি করে অবৈধ ভাবে জিরা আমদানি

মোঃজাহিদুল ইসলাম, রিপোর্টার, ভূরুঙ্গামারী কুড়িগ্রাম:

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলার সোনাহাট স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে ভুট্টার এলসি করে ভুট্টার বস্তায় অভিনব কায়দায় নিয়ে আসা ৪২০ কেজি ভারতীয় জিরা জব্দ করেছে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার (১২ সেপ্টেম্বর) বিকালে সোনাহাট স্থলবন্দর দিয়ে আসা ভুট্টার গাড়িতে করে ভুট্টার বস্তায় অভিনব কায়দায় নিয়ে আসা এসব জিরা জব্দ করা হয়। একই সঙ্গে এসব পণ্য বহনকারী ভারতীয় ট্রাক টিও জব্দ করা হয়েছে।

বন্দরের সহকারী পরিচালক (ট্রাফিক) রূহুল আমিন এবং রাজস্ব কর্মকর্তা তারিকুল ইসলাম তারেক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

কাস্টমস ও স্থলবন্দর সূত্রে জানা যায়, গত ১০ সেপ্টেম্বর ভারত থেকে ট্রাকে করে আসা ভারতীয় ২০ টন ভুট্টার চালান আসে বাংলাদেশে। মঙ্গলবার দুপুরে সেগুলো আনলোড করা হচ্ছিল। ভুট্টার বস্তার ভেতর জিরা আছে, এমন তথ্যের ভিত্তিতে কাস্টমস কর্মকর্তারা ভুট্টার বস্তায় তল্লাশি চালিয়ে ১ শত ৫ টি বস্তার ভিতরে চারটি করে প্যাকেটে থাকা ৪২০ কেজি জিরা জব্দ করা হয়।

কাস্টমস কর্তৃপক্ষ জানায়, এই ভুট্টার আমদানিকারক দিনাজপুরের মিম এন্টারপ্রাইজ এবং রফতানিকারক ভারতের শর্মা এন্টারপ্রাইজ নামক প্রতিষ্ঠান। এলসির ক্লিয়ারিং অ্যান্ড ফরওয়ার্ডিং এজেন্ট (সিঅ্যান্ডএফ) লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার এইচএল ট্রেডিং। সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টের নাম হুমায়ুন।

স্থলবন্দরের রাজস্ব কর্মকর্তা তারিকুল ইসলাম তারেক জানান, ‘আমদানিকারক ২০০ টন ভুট্টা আমদানির এলসি করেছিলেন। এর মধ্যে আজ ২০ টন ভুট্টা এসেছিল। এসব ভুট্টার বস্তায় করে ঘোষণা ছাড়াই অবৈধভাবে ৪২০ কেজি জিরা আনা হয়েছে। জিরাসহ ভারতীয় ট্রাক টি আটক রাখা হয়েছে। এ বিষয়ে আমদানিকারক ও সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টের বিরুদ্ধে কাস্টমস অ্যাক্টে মামলার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।’

ট্যাগস :
আপডেট : ০৪:১৯:৩৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩
১৬৬ বার পড়া হয়েছে

সোনাহাট স্থলবন্দরে ভুট্টার এলসি করে অবৈধ ভাবে জিরা আমদানি

আপডেট : ০৪:১৯:৩৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারী উপজেলার সোনাহাট স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে ভুট্টার এলসি করে ভুট্টার বস্তায় অভিনব কায়দায় নিয়ে আসা ৪২০ কেজি ভারতীয় জিরা জব্দ করেছে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার (১২ সেপ্টেম্বর) বিকালে সোনাহাট স্থলবন্দর দিয়ে আসা ভুট্টার গাড়িতে করে ভুট্টার বস্তায় অভিনব কায়দায় নিয়ে আসা এসব জিরা জব্দ করা হয়। একই সঙ্গে এসব পণ্য বহনকারী ভারতীয় ট্রাক টিও জব্দ করা হয়েছে।

বন্দরের সহকারী পরিচালক (ট্রাফিক) রূহুল আমিন এবং রাজস্ব কর্মকর্তা তারিকুল ইসলাম তারেক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

কাস্টমস ও স্থলবন্দর সূত্রে জানা যায়, গত ১০ সেপ্টেম্বর ভারত থেকে ট্রাকে করে আসা ভারতীয় ২০ টন ভুট্টার চালান আসে বাংলাদেশে। মঙ্গলবার দুপুরে সেগুলো আনলোড করা হচ্ছিল। ভুট্টার বস্তার ভেতর জিরা আছে, এমন তথ্যের ভিত্তিতে কাস্টমস কর্মকর্তারা ভুট্টার বস্তায় তল্লাশি চালিয়ে ১ শত ৫ টি বস্তার ভিতরে চারটি করে প্যাকেটে থাকা ৪২০ কেজি জিরা জব্দ করা হয়।

কাস্টমস কর্তৃপক্ষ জানায়, এই ভুট্টার আমদানিকারক দিনাজপুরের মিম এন্টারপ্রাইজ এবং রফতানিকারক ভারতের শর্মা এন্টারপ্রাইজ নামক প্রতিষ্ঠান। এলসির ক্লিয়ারিং অ্যান্ড ফরওয়ার্ডিং এজেন্ট (সিঅ্যান্ডএফ) লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার এইচএল ট্রেডিং। সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টের নাম হুমায়ুন।

স্থলবন্দরের রাজস্ব কর্মকর্তা তারিকুল ইসলাম তারেক জানান, ‘আমদানিকারক ২০০ টন ভুট্টা আমদানির এলসি করেছিলেন। এর মধ্যে আজ ২০ টন ভুট্টা এসেছিল। এসব ভুট্টার বস্তায় করে ঘোষণা ছাড়াই অবৈধভাবে ৪২০ কেজি জিরা আনা হয়েছে। জিরাসহ ভারতীয় ট্রাক টি আটক রাখা হয়েছে। এ বিষয়ে আমদানিকারক ও সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টের বিরুদ্ধে কাস্টমস অ্যাক্টে মামলার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।’