০৮:২৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বিজ্ঞপ্তি

হাত -পা বেধে ভ্যানচালককে খুন, টাকা দিয়ে প্রাণে বাঁচল যাত্রী

প্রতিনিধির নাম
রাজশাহীর পুঠিয়ায় একটি চার্জার ভ্যানের জন্য আবদুল কুদ্দুস আলী ওরফে কালু (৪০) নামে এক চালককে হাত-পা বেঁধে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।
এ সময় ভ্যানযাত্রী পুঠিয়া রাজবাড়ি বাজারের সবজি বিক্রেতা আবদুল আওয়াল (৬০) টাকা দিয়ে নিজের জীবন বাঁচিয়েছেন।
রোববার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে উপজেলা জিউপাড়া ইউনিয়নে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কের গাঁওপাড়া বাজারের পাশে এ ঘটনা ঘটে।
নিহত ভ্যানচালক কালু চারঘাট উপজেলার নন্দনগাছি এলাকার আবদুল ওহেদ আলীর ছেলে। অপরদিকে সবজি বিক্রেতা আওয়ালের বাড়ি পুঠিয়া সদরের কান্দ্রা গ্রামে।
সবজি বিক্রেতা আবদুল আওয়াল বলেন, তিনি পুঠিয়া রাজবাড়ি বাজারে সবজির ব্যবসা করেন। তিনি প্রতিদিন ভোরে বিভিন্ন বাজার থেকে সবজি কিনে এনে সকালে বাজারে বিক্রি করে থাকেন।
তিনি আরও বলেন, ভ্যানচালক কালুকে নিয়ে ভোরে নাটোর তেবাড়িয়া হাটে যাচ্ছিলেন। পথে গাঁওপাড়া বাজারের কাছে পৌঁছলে তিনজন লোক তাদের পথরোধ করে। এ সময় দুর্বৃত্তরা তাদের দুজনকে ধারালো অস্ত্র দেখিয়ে সড়কের পাশের একটি ফাঁকা জমিতে নিয়ে যায়। এর পর কালুর কাছে ভ্যানের চাবি চাইলে সে চাবিটি দূরে ছুড়ে ফেলে দেয়। এতে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে কালুর চোখ হাত-পা বেঁধে ফেলে। এর পর ছুরি দিয়ে তার গলা কেটে হত্যা করে।
তারা আমার কাছে থাকা চার হাজার ৫০০ টাকা কেড়ে নেয়। আমি কান্নাকাটি শুরু করলে, তারা আমার হাত-পা বেঁধে রেখে চলে যায়।
প্রত্যক্ষদশী নয়ন আলী বলেন, সকালে মহাসড়কের পাশ দিয়ে লোকজন হাঁটাহাঁটি করছে। এ সময় পাশে ওদিক থেকে মানুষের কান্নার আওয়াজ শুনতে পাই। পরে সেখানে গিয়ে একজনকে গলা কেটে হত্যা করা ও অপর একজনের হাত-পা বাঁধা দেখতে পেয়ে পুঠিয়া থানাপুলিশকে খবর দেওয়া হয়।
এ ব্যাপারে থানার ওসি ফারুক হোসেন বলেন, ঘটনাটি লোমহর্ষক। ঘটনাস্থলে ছুরি পড়ে থাকতে দেখা গেছে। অভিযুক্তদের শনাক্তে সবজি বিক্রেতাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। আর লাশের ময়নাতদন্তের জন্য রামেক হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।
ট্যাগস :
আপডেট : ০৪:৫২:১৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ মে ২০২৩
৫৭ বার পড়া হয়েছে

হাত -পা বেধে ভ্যানচালককে খুন, টাকা দিয়ে প্রাণে বাঁচল যাত্রী

আপডেট : ০৪:৫২:১৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ২১ মে ২০২৩
রাজশাহীর পুঠিয়ায় একটি চার্জার ভ্যানের জন্য আবদুল কুদ্দুস আলী ওরফে কালু (৪০) নামে এক চালককে হাত-পা বেঁধে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।
এ সময় ভ্যানযাত্রী পুঠিয়া রাজবাড়ি বাজারের সবজি বিক্রেতা আবদুল আওয়াল (৬০) টাকা দিয়ে নিজের জীবন বাঁচিয়েছেন।
রোববার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে উপজেলা জিউপাড়া ইউনিয়নে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কের গাঁওপাড়া বাজারের পাশে এ ঘটনা ঘটে।
নিহত ভ্যানচালক কালু চারঘাট উপজেলার নন্দনগাছি এলাকার আবদুল ওহেদ আলীর ছেলে। অপরদিকে সবজি বিক্রেতা আওয়ালের বাড়ি পুঠিয়া সদরের কান্দ্রা গ্রামে।
সবজি বিক্রেতা আবদুল আওয়াল বলেন, তিনি পুঠিয়া রাজবাড়ি বাজারে সবজির ব্যবসা করেন। তিনি প্রতিদিন ভোরে বিভিন্ন বাজার থেকে সবজি কিনে এনে সকালে বাজারে বিক্রি করে থাকেন।
তিনি আরও বলেন, ভ্যানচালক কালুকে নিয়ে ভোরে নাটোর তেবাড়িয়া হাটে যাচ্ছিলেন। পথে গাঁওপাড়া বাজারের কাছে পৌঁছলে তিনজন লোক তাদের পথরোধ করে। এ সময় দুর্বৃত্তরা তাদের দুজনকে ধারালো অস্ত্র দেখিয়ে সড়কের পাশের একটি ফাঁকা জমিতে নিয়ে যায়। এর পর কালুর কাছে ভ্যানের চাবি চাইলে সে চাবিটি দূরে ছুড়ে ফেলে দেয়। এতে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে কালুর চোখ হাত-পা বেঁধে ফেলে। এর পর ছুরি দিয়ে তার গলা কেটে হত্যা করে।
তারা আমার কাছে থাকা চার হাজার ৫০০ টাকা কেড়ে নেয়। আমি কান্নাকাটি শুরু করলে, তারা আমার হাত-পা বেঁধে রেখে চলে যায়।
প্রত্যক্ষদশী নয়ন আলী বলেন, সকালে মহাসড়কের পাশ দিয়ে লোকজন হাঁটাহাঁটি করছে। এ সময় পাশে ওদিক থেকে মানুষের কান্নার আওয়াজ শুনতে পাই। পরে সেখানে গিয়ে একজনকে গলা কেটে হত্যা করা ও অপর একজনের হাত-পা বাঁধা দেখতে পেয়ে পুঠিয়া থানাপুলিশকে খবর দেওয়া হয়।
এ ব্যাপারে থানার ওসি ফারুক হোসেন বলেন, ঘটনাটি লোমহর্ষক। ঘটনাস্থলে ছুরি পড়ে থাকতে দেখা গেছে। অভিযুক্তদের শনাক্তে সবজি বিক্রেতাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। আর লাশের ময়নাতদন্তের জন্য রামেক হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।