০৭:২২ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বিজ্ঞপ্তি

হামলাকারীদের বিচার এই বাংলার মাটিতেই হবে : শেখ হেলাল উদ্দীন এমপি

ফকিরহাট (বাগেরহাট) প্রতিনিধি, ফকির দাউদ হায়দার বাবু

“জ্ঞান ফিরে দেখি আমার চারপাশে মৃতদেহ পড়ে আছে। বিভিষিকাময় সেই হামলার ২২ বছর হলেও প্রকৃত অপরাধীরা ধরা ছোয়ার বাইরে। তৎকালীন জোট সরকার অপরাধীদের আড়াল করে আমাদের লোকদেরই আসামী করেছিল। কিন্তু আমরা সে বিচারে অনাস্থা দিয়েছি। হামলাকারীদের বিচার এই বাংলার মাটিতেই হবে। শনিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৫টায় বাগেরহাটের ফকিরহাট মহাসড়কে ২২তম সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ বিরোধী মানববন্ধন ও সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাগেরহাট ১ আসনের সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দীন এ কথা বলেন।

মহাসড়কের দুই পাশে প্রায় ৩ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে হাজার হাজার সাধারণ মানুষ ও আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের অংশগ্রহণে সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ বিরোধী মানব বন্ধন ও সমাবেশে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাগেরহাট ২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ সারহান নাসের তন্ময়।
সমাবেশে প্রধান বক্তা ছিলেন ফকিরহাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান স্বপন দাশ। বিশেষ বক্তা ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক মল্লিক আবুল কালাম আজাদ। সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক শেখ ইমরুল হাসান। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সদস্য সচিব কাজী বেলাল সাঈদ।
মোল্লাহাট খলিলুর রহমান ডিগ্রী কলেজ মাঠে ২০০১ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর শেখ হেলাল উদ্দীন এমপির জনসভায় সন্ত্রাসীদের বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলে ১৯জন নেতা-কর্মী নিহত হন। এসময় শেখ হেলাল উদ্দীন এমপি সহ অসংখ্য নেতা-কর্মি আহত হয়।
ওই নৈরাজ্যের ঘটনার বিচারের দাবীতে ফকিরহাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি স্বপন দাশ এই দিনটিকে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বিরোধী দিবস হিসেবে ঘোষনা করেন।
ফকিরহাট উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের আয়োজনে অনুষ্ঠিত সমাবেশ ও মানববন্ধনে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন অংশ গ্রহণ করে।
ট্যাগস :
আপডেট : ০৯:২৪:৪২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩
৬৮ বার পড়া হয়েছে

হামলাকারীদের বিচার এই বাংলার মাটিতেই হবে : শেখ হেলাল উদ্দীন এমপি

আপডেট : ০৯:২৪:৪২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩

“জ্ঞান ফিরে দেখি আমার চারপাশে মৃতদেহ পড়ে আছে। বিভিষিকাময় সেই হামলার ২২ বছর হলেও প্রকৃত অপরাধীরা ধরা ছোয়ার বাইরে। তৎকালীন জোট সরকার অপরাধীদের আড়াল করে আমাদের লোকদেরই আসামী করেছিল। কিন্তু আমরা সে বিচারে অনাস্থা দিয়েছি। হামলাকারীদের বিচার এই বাংলার মাটিতেই হবে। শনিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকাল ৫টায় বাগেরহাটের ফকিরহাট মহাসড়কে ২২তম সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ বিরোধী মানববন্ধন ও সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাগেরহাট ১ আসনের সংসদ সদস্য শেখ হেলাল উদ্দীন এ কথা বলেন।

মহাসড়কের দুই পাশে প্রায় ৩ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে হাজার হাজার সাধারণ মানুষ ও আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের অংশগ্রহণে সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ বিরোধী মানব বন্ধন ও সমাবেশে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাগেরহাট ২ আসনের সংসদ সদস্য শেখ সারহান নাসের তন্ময়।
সমাবেশে প্রধান বক্তা ছিলেন ফকিরহাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান স্বপন দাশ। বিশেষ বক্তা ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক মল্লিক আবুল কালাম আজাদ। সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহবায়ক শেখ ইমরুল হাসান। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সদস্য সচিব কাজী বেলাল সাঈদ।
মোল্লাহাট খলিলুর রহমান ডিগ্রী কলেজ মাঠে ২০০১ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর শেখ হেলাল উদ্দীন এমপির জনসভায় সন্ত্রাসীদের বোমা হামলার ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলে ১৯জন নেতা-কর্মী নিহত হন। এসময় শেখ হেলাল উদ্দীন এমপি সহ অসংখ্য নেতা-কর্মি আহত হয়।
ওই নৈরাজ্যের ঘটনার বিচারের দাবীতে ফকিরহাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি স্বপন দাশ এই দিনটিকে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ বিরোধী দিবস হিসেবে ঘোষনা করেন।
ফকিরহাট উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের আয়োজনে অনুষ্ঠিত সমাবেশ ও মানববন্ধনে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন অংশ গ্রহণ করে।