রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:৫৬ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকাতে আপনাকে স্বাগতম! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন,বিজ্ঞাপন দিন সহযোগী হোন! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন বেকারত্ব দূর করুন ।

নেতার আশির্বাদে বিজয়ের নিশ্চয়তা দিচ্ছেন জেলা পরিষদ সদস্য প্রার্থী বাকেরগঞ্জের মাসুদ

বরিশাল জেলা পরিষদ নির্বাচন ঘিরে পুরো জেলাজুড়ে চলছে নির্বাচনী উৎসব। ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান, মেম্বারদের দ্বারেদ্বারে ঘুরছেন প্রার্থীরা। প্রচারণায় দারুণ উৎসবের আমেজের মধ্যে চলছে ভোট প্রার্থনার আকুলতা।

অবশ্য এক্ষেত্রে সাধারণ আসন (বাকেরগঞ্জ-১) নির্বাচনী এলাকায় সরকারি বাকেরগঞ্জ কলেজের সাবেক এজিএস মাসুদ আলম খানের প্রচারণায় লক্ষ্য করা গেছে সাবলীলতা। আকুলতা কিংবা অনুনয় নেই তার প্রচারণার মননে। তবু ভোটারদের ভালোবাসায় সিক্ত ব্যতিক্রমী চরিত্রের এই প্রার্থী শতভাগ নিশ্চিত করে জানালেন তার বিজয়ের কথা। নেতার আশির্বাদে বিজয়ের স্বপ্ন দেখছেন, নিশ্চয়তা দিচ্ছেন জেলা পরিষদ সদস্য প্রার্থী তুখোড় ছাত্রনেতা বাকেরগঞ্জের মাসুদ আলম খান।
কিভাবে শতভাগ নিশ্চয়তা দিচ্ছেন? এমন প্রশ্নের জবাবে মাসুদ আলম খান দাবী করে বলেন- ‘সার্বিক বিষয় বিশ্লেষণ ছাড়াও ভোটারদের সাথে কথা বলে যেটুকু অনুমান করা গেছে, তাতে এই সাধারণ আসনে মোট ৭ জন প্রার্থীর মধ্যে এগিয়ে রয়েছেন ৩ জন। তারা হলেন- বর্তমান জেলা পরিষদ সদস্য মাসুদ আলম খান (তালা মার্কা), নিয়ামত আব্দুল্লাহ্ পলাশ (হাতি মার্কা) এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক আবুল হোসেন খলিফা (উট পাখি মার্কা) রয়েছেন আলোচনার শীর্ষে।
জনপ্রিয় এই তিন প্রার্থীর সাধারণ সমর্থকরা প্রত্যেকেই বিজয় লুফে নিতে সম্ভাব্য নিশ্চয়তার প্রচারণা চালাচ্ছেন। মনোনয়নের সময় আওয়ামী লীগদলীয় জানবাজ সৈনিক দাবী করা প্রার্থীরা প্রচারণায় কৌশল করতে গিয়ে হারাচ্ছেন নৈতিকতা। অধিকাংশরা দলীয় আদর্শ, নীতি-নৈতিকতার মুখে চুনকালি দিয়ে যখন যে ভোটারের কাছে যাচ্ছেন, তখন সেই ভোটারকে তুষ্ট করতে মনমতলবী কৌশল অবলম্বন করছেন নির্বাচনী প্রচারণায়। নির্বাচনী বৈতরণী পার হতে নিন্দা ছড়ানোর প্রতিযোগিতা চলছে প্রায় সকল প্রার্থীর মধ্যে। ৭ জন প্রার্থীর মধ্যে দুয়েকজন বাদে অন্যরা বেশ কয়েক বছর আগে থেকেই ব্যক্তিগত আচার-আচরণ এবং পোষাক এমনকী বেশভুষায়-ও ব্যাপক বদলের ছাপ তৈরি করেছেন।
কয়েকজন প্রার্থী রয়েছেন, মুখে কট্টর আওয়ামী লীগপন্থি হলেও তাদের নির্বাচনী কর্মকাণ্ডে ফুটে উঠছে ভিন্নতা। সূত্রের দাবী অনুযায়ি, ঝোপ বুঝে কোপ মারার কৌশল অবলম্বন করছেন বেশ কয়েকজন প্রার্থী। ‘‘সাপ এবং ব্যাঙ’’- দুটোর মুখেই চুমু খাওয়ার মতো অবস্থা লক্ষ্য করা গেছে বরিশাল জেলা পরিষদ নির্বাচনে সাধারণ আসন (বাকেরগঞ্জ-১) নির্বাচনী এলাকার প্রচারণায়।
এক্ষেত্রে ভিন্নতা লক্ষ্য করা গেছে- হেভিওয়েট প্রার্থী মাসুদ আলম খানের নির্বাচনী প্রচারণায়।
প্রচারণার ক্ষেত্রে কৌশল হিসেবে তিনি বিজয়ের শতভাগ নিশ্চয়তা দিয়ে দাবড়ে বেড়াচ্ছেন নির্বাচনী অঙ্গন। বিজয় শতভাগ নিশ্চিত দাবী করে বলেন- তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক। দেশের জাতীয় রাজনীতির সিংহ পুরুষ, পার্বত্য শান্তিচুক্তির অগ্রনায়ক, বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ’র আশীর্বাদ আমার ওপরে আছে বলেই এরকম নিশ্চিত করে বলতে পারছেন তিনি।
তিনি আরও বলেন- এছাড়া বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের রুপকার, জননন্দিত মেয়র সেরনিয়ারবাত সাদিক আব্দুল্লাহ্’র (ভাইয়ের) দেখানো পথ অনুসরণ এবং অনুকরণ করে পথ চলছি। অতএব রাজনীতিতে অন্তত হোঁচট খাবো না। এসব আলোচনার এক পর্যায় আবেগাপ্লত হয়ে তিনি বলেন- ‘বাঁচা-মরা সবই আমার এই অভিভাবকের কাছে সমর্পণ করে দিয়ে সাগর পারি দিচ্ছি। শতভাগ বিশ্বাস করি আমার অভিভাবক কাঙ্খিত গন্তব্যে আমাকে অবশ্যই পৌছে দিবেন ইনশাল্লাহ্।
আত্মপ্রত্যয়ী মাসুদ আলম খান বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে বলেন- ‘আমি আওয়ামী পরিবারের সন্তান। আমার বাবা বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহাবুদ্দিন খান নলুয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি। বড় ভাই আ স ম ফিরোজ আলম খান বিশ্বের অন্যতম সেরা রাষ্ট্রনায়ক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া নৌকা প্রতীক নিয়ে পরপর দু’বার বিপুল ভোটে নলুয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।
‘জন্মসূত্রে আওয়ামী লীগ’ পরিবার খ্যাত মুক্তিযোদ্ধা শাহাবুদ্দিন খানের এই পরিবারের সদস্যরা আওয়ামী লীগের জন্য শুধু প্রাণ বাদে সবকিছু বিসর্জন দিয়েছে উল্লেখ করে সবিশেষে মাসুদ আলম খান সকলের উদ্দেশ্যে বলেন- ‘আমার বিশ্বাস, আমি আশাবাদী, আমার রাজনৈতিক অভিভাবক যারা আছেন, তাদের সুদৃষ্টিতে দ্বিতীয় বারের মতো বিজয় নিশ্চিত ইনশাআল্লাহ্। জনগণের কল্যাণে সাধ্যমতো কাজ করবো; বিশ্বের অন্যতম সেরা রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখবো এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শে ছিলাম, আছি, অবশ্যই থাকবো।

Please Share This Post in Your Social Media

বিজ্ঞপ্তি

©দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার 2022All rights reserved