রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:২০ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকাতে আপনাকে স্বাগতম! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন,বিজ্ঞাপন দিন সহযোগী হোন! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন বেকারত্ব দূর করুন ।

খলিশাখালীর ভূমিদস্যুদের দু’গ্রপের অভ্যান্তরীন কোন্দলে একপক্ষের সংবাদ সম্মেলন

সাতক্ষীরার দেবহাটার খলিশাখালিতে মালিকানাধীন প্রায় ১৪’শ বিঘা জমি অস্ত্রাধীন ভূমিদস্যুদের দখলে নেয়া সন্ত্রাসীরা অভ্যান্তরীন কোন্দলে জড়িয়ে পড়েছে। আর এসব ভূমিদস্যুদের কোন্দলের কারণে স্থানীয় এলাকাবাসী বর্তমানে বড় ধরণের সংঘর্ষের আতঙ্কে ভুগছে।
খলিশাখালীর সন্ত্রাসী ভূমিদস্যুরা দু’টি বাহিনীতে বিভক্তি হয়ে যাওয়ার কারণে একটা সন্ত্রাসী বাহিনী আরেকটি সন্ত্রাসী বাহিনীর বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার (২৭ অক্টোবর) বিকেল ৪ টায় খলিসাখালীর চরপাটা এলাকায় সংবাদ সম্মেলন করে সন্ত্রাসী সহ চাঁদাবাজীর অভিযোগ তোলে।
খলিসাখালীতে ভূমিদস্যু বাহিনীর সন্ত্রাসী নেতা বর্তমান ওই চক্রের সভাপতি গফুর ডাকাত সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পাঠ করে বলেন, খলিসাখালীর সাবেক সভাপতি আনারুল ও সাধারণ সম্পাদক রবিউল ইসলাম জমি রক্ষার্থে প্রশাসনকে দেয়ার নাম করে অন্য ভুমিদস্যুদের থেকে কোটি টাকা আত্মসাত করেছে।
তিনি লিখিত বক্তব্যে আরো বলেন, আমাদের স্থায়ী কোন জমি না থাকার কারণে গত বছরের ১১ সেপ্টেম্বরে সাতক্ষীরার দেবহাটার পারুলিয়া ইউনিয়নের খলিশাখালীর বিলটি দখল করা হয়। তারপর সেখানে ঘর বেধে বসবাস করে আসছি।
ভূমিহীনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে আসছিলো আনারুল ও রবিউল। তারা দু’জন বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন যায়গায় টাকা টাকা দেওয়ার নাম করে কোটি কোটি টাকা হাত করে নিয়েছিলো। সেই টাকা কোথায় কিভাবে দেওয়া হয়েছে জানতে চাইলে তারা অন্য ভূমিদস্যুদেরকে হিসেব না দিয়ে উল্টো অস্ত্রের ভয় দেখাতেন।
কঠোরভাবে যখন অন্য ভূমিস্যুরা টাকার হিসেব চাইতে গেলেন তখন আনারুল ও রবিউলের নেতৃত্বে থাকা সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। আনারুল ও রবিউল বাহিনী বর্তমানে বহিরাগত আরো কিছু সন্ত্রাসীদের সাথে নিয়ে রাতের অন্ধকারে বর্তমান দখলকারী ভূমিদস্যু সন্ত্রাসীদের উপর বড় ধরণের আক্রমণ করে তারা জমি দখলের পায়তারা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করে লিখিত অভিযোগ করে বর্তমানে দখলে থাকা ভূমিদস্যু সভাপতি গফুর ডাকাত।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বর্তমান খলিসাখালীর ভূমিদস্যুদের সভাপতি গফুর ডাকাত সাবেক সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক আনারুল ও রবিউলের এই অনৈতিক কাজের কারণে দুদকের মাধ্যমে সু বিচারের দাবি জানান।
খলিসাখালী এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা মামুন বিল্লাহ, হাফিজুল ইসলাম, আক্কাজ আলীসহ অনেকেই অভিযোগ করে বলেন, খলিশাখালীর এই ১৪’শ বিঘা মালিকানাধীন জমি ভূমিদস্যু সন্ত্রাসী আনারুল,
স্থানীয় মেম্বর ইসমাইল গং, আকরাম ডাকাত, নোডা চরকাটার মাদক ব্যাবসায়ী সাইফুল, শাহিনুর ডাকাত, গফুর ও রবিউল ডাকাতদের বাহিনীরা অবৈধভাবেই দখল নেয়ার পর থেকে আমরা স্থানীয়রা সব সময় আতঙ্কে থাকি। তার এখানে মাদকের আখড়া হসেবে গোড়ে তুলেছে। আমাদের সন্তানেরা ও পরিবার এখন হুমকির মুখে। তাদের কিছু বললেই তারা আমাদেরকে প্রাণ নাশের হুমকি দেয়। পুলিশও তাদের কিছু বলেনা। পুলিশের কাছে অভিযোগ দিলে তারা আমাদেরকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। তাই তারা নিরুপায় হয়ে সব কিছু সহ্য করে আতঙ্কের মাঝে সেখানে বসবাস করছে।

Please Share This Post in Your Social Media

বিজ্ঞপ্তি

©দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার 2022All rights reserved