সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৮:০০ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকাতে আপনাকে স্বাগতম! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন,বিজ্ঞাপন দিন সহযোগী হোন! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন বেকারত্ব দূর করুন ।
শিরোনাম :
আইডিয়াল কমার্স কলেজ ও আইডিয়াল ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজের  শিক্ষকদের পেশাগত দক্ষতা উন্নয়ন শীর্ষক  কর্মশালা আদালতের আদেশ অমান্য করে বাড়ি নির্মাণের অভিযোগ শহিদ এএইচএম কামরুজ্জামানের কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ করলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যরা বাংলা মায়ের টানে মুক্তিযুদ্ধে  অংশ নিয়েছিল এদেশের বীর সন্তানরা                                                      বিশ্ব ক্যান্সার দিবস উপলক্ষে জাতীয় প্রেস ক্লাবের আবদুস সাত্তার হল রুমে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এক স্মৃতিময় সন্ধ্যায়  সফেনের স্বপ্নদ্রষ্টা ও আমরা ক’জন বাংলাদেশ প্রবীণ হিতৈষী সংঘ ও জরা বিজ্ঞান প্রতিষ্ঠান নির্বাচন (2023-2025) ক্যাপ্টেন শামছুল হক-বীর মুক্তিযোদ্ধা ইন্তেজার রহমান প্যানেল-এ ভোট দিন। আব্দুল হালিম পাটওয়ারী ফাউন্ডেশন কর্তৃক ৫ম ও ৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের মেধা বৃত্তি প্রদান-২০২২ নওগাঁয় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর এর অভিযানে ৬কেজি গাঁজাসহ আটক-১ নওগাঁয় মোটরসাইকেলের ধাক্কায় স্কুল ছাত্র নিহত-মা ও ছোট বোন আহত

বাড়ানো হলো সব ধরনের বীজসহ কৃষি উপকরণের দাম

খাদ্য সংকট মোকাবেলায় যখন উৎপাদন বৃদ্ধির কথা বলা হচ্ছে, তখন একের পর এক বাড়ছে কৃষি উপকরণের দাম। সবশেষ বাড়ানো হলো সব ধরনের বীজের দাম। বিএডিসির নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী সব বীজের দাম বেড়েছে ২০ থেকে ৩০ শতাংশ পর্যন্ত।

বীজসহ কৃষি উপকরণের লাগামহীন দাম বৃদ্ধিতে এখন দিশেহারা কৃষক। কৃষি অর্থনীতিবিদদের মতে, এমন পরিস্থিতিতে স্থানীয়ভাবে খাদ্য উৎপাদন বৃদ্ধি তো সম্ভবই নয়, বরং কৃষক জমি চাষে আগ্রহ হারিয়ে ফেলবে।

চলমান রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাবে বিশ্বজুড়ে তীব্র হচ্ছে খাদ্য সংকট। আর এর প্রভাব পড়ছে বাংলাদেশেও। পরিস্থিতি সামাল দিতে, তাই স্থানীয়ভাবে খাদ্য উৎপাদন বৃদ্ধির তাগিদ আসছে সরকারের শীর্ষ পর্যায় থেকেও।

কিন্তু উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য অন্যতম ভরসা কৃষি একং কৃষকের কপালে এখন চিন্তার ভাঁজ। কৃষি উপকরণের চড়ামূল্যের বাজারে নতুন করে বীজের দাম বৃদ্ধিতে দিশেহারা কৃষক।

গত ১৮ অক্টোবর ধান, গম, ভুট্টা, সরিষাসহ বিভিন্ন শস্যবীজের নতুন দাম বেধে দিয়ে নির্দেশনা জারি করেছে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন (বিএডিসি)। এতে ডিলার ও কৃষকদের আগের চেয়ে অনেক বেশি দামে কিনতে হবে। ধান থেকে শুরু করে গম, ভুট্টা, ডাল, সরিষাসহ বিভিন্ন ধরনের শস্যবীজ আছে দাম বৃদ্ধির তালিকায়। গবেষকদের আশঙ্কা, বীজসহ কৃষি উপকরণের দাম বৃদ্ধির ফলে কৃষক উৎপাদনে নিরূৎসাহিত হতে পারেন।

২০২২-২৩ বিতরণ বর্ষের জন্য ধানবীজের দাম প্রকারভেদে (১০ কেজির বস্তা) ৫৭০ থেকে ৭৫০ টাকা নির্ধারণ হয়। গত বছর চাষি পর্যায়ে এ দর ছিল ৫২০ থেকে ৬৩০ টাকা। ২০২০ সালে দাম ছিল ৪১০ থেকে ৫৮০ টাকা। দাম বেড়েছে ১৬০ থেকে ১৭০ টাকা। এসএল-৮এইচসহ অন্য সুপার হাইব্রিড জাতের ধান (১০ কেজির বস্তা) ডিলার পর্যায়ে ২ হাজার ৩০০ টাকা ও কৃষক পর্যায়ে ৩ হাজার টাকা। আমদানি করা এসএল-৮ ধানবীজ ডিলার পর্যায়ে ৫ হাজার ৬০০ টাকা ও কৃষক পর্যায়ে ৬ হাজার ২০০ টাকা।গত বছর এসএল-৮এইচসহ অন্য হাইব্রিড জাতের ১০ কেজি ধানবীজের দাম ছিল ডিলার পর্যায়ে ১ হাজার ৯৬০ টাকা ও চাষি পর্যায়ে ২ হাজার ৩০০ টাকা।

কৃষি অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, বীজের দাম বেড়েছে ২০-৩০ শতাংশ। এর আগে জ্বালানি তেল ও সারের দাম বেড়েছে। উপকরণের মূল্য এভাবে বাড়তে থাকলে কৃষক হতাশ হবে এটাই স্বাভাবিক। তারা উৎপাদনে নিরুৎসাহিত হবে। উৎপাদন খরচ বেড়ে গেলে কৃষক জমি চাষ না করে খালি ফেলে রাখে।

খাদ্য সংকট মোকাবেলায় উৎপাদন বৃদ্ধির বিকল্প নেই, তাই বীজসহ অন্যান্য কৃষি উপকরণের দাম কমানোর পাশাপাশি কৃষিবান্ধব কৌশল নিতে হবে।

সিপিডির সিনিয়র রিসার্চ ফেলো তৌফিকুল ইসলাম খান বলেন, সারের সরবরাহ ব্যবস্থা, সামনের দিনে বিদ্যুতের দাম স্থিতিশীল রাখার জন্য আমাদেরকে আগে থেকে প্রস্তুত থাকতে হবে। সবধরনের সহযোগিতা করার জন্য সরকারকে প্রস্তুত থাকতে হবে।

ক্ষেত প্রস্তুত থেকে শুরু করে ফসল ঘরে তোলা সব ক্ষেত্রেই আছে বাড়তি খরচের বোঝা। আগে থেকে বেড়ে আছে সার ও জ্বালানির খরচ। এর সাথে যোগ হয়েছে অনাবৃষ্টি ও লোডশেডিং। দেশে খাদ্য উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য এই মুহুর্তে কৃষকের উৎপাদিত ফসলের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করাই বড় চ্যালেঞ্জ বলে মনে করেন কৃষি অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর আলম। আগামী সপ্তাহের মধ্যে বাড়তি দামের শস্যবীজ বাজারে ছাড়ার পরিকল্পনা করছে বিএডিসি।


বিজ্ঞপ্তি

©দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার 2022All rights reserved