রবিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২, ০৪:২৭ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকাতে আপনাকে স্বাগতম! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন,বিজ্ঞাপন দিন সহযোগী হোন! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন বেকারত্ব দূর করুন ।

সীমিত যাত্রী নিয়ে চলছে মিতালী এক্সপ্রেস

চিলাহাটি (নীলফামারী) সংবাদদাতাঃ ভারত বাংলাদেশের মধ্যে চলাচলকারী মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেনটি স্বল্প সংখ্যক যাত্রী নিয়ে চলাচল করছে বলে লোকসান গুনতে হচ্ছে বাংলাদেশ রেলওয়েকে।

২০২২ সালের ১ লা জুন বাংলাদেশের চিলাহাটি ও ভারতের হলদিবাড়ি সীমান্ত দিয়ে চলাচলকারী ঢাকা শিলিগুড়ির মধ্যে মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেন চালু হয়। ট্রেনটিতে প্রথমে ৮ থেকে ১২ জন যাত্রী এরপর সর্বোচ্চ ১৪৫ জন যাত্রী চলাচল করে। গত জুন থেকে অক্টোবর পর্যন্ত সাড়ে সাত হাজার যাত্রী যাতায়াত করেছে, এর মধ্যে ঢাকা থেকে ভারতে গেছে প্রায় চার হাজারের কিছু বেশি এবং শিলিগুড়ি থেকে ঢাকা এসেছে প্রায় তিন হাজারের কিছু বেশি।  ট্রেনটি প্রতি রবিবার ও বুধবার শিলিগুড়ি থেকে যাত্রা করে আর সোমবার ও বৃহস্পতিবার ঢাকা থেকে ছেড়ে শিলিগুড়ি যায়। কথা ছিল ট্রেনটিতে ঢাকা ও চিলাহাটিতে যাত্রী উঠানামা করবে, কিন্তু অজ্ঞাত কারণে সবকিছু ঠিকঠাক থাকার পরেও শেষ মুহুর্তে চিলাহাটি থেকে যাত্রী উঠানামা চালু করার ব্যবস্থা করা হয় নি।

রেল ও অন্যান্য মন্ত্রণালয়ের সূত্রে জানা গেছে অবকাঠামো না থাকার কারণে ইমিগ্রেশন পোস্ট চালু করা সম্ভব হয়নি চিলাহাটিতে। কিন্তু বিভিন্ন মহলের মতামত থেকে জানা গেছে, সরকার ইচ্ছা করলে চিলাহাটি স্টেশনের পাশে অবস্থিত রেলের বিশাল রেস্টহাউজ ব্যবহার করে ইমিগ্রেশন চালু করতে পারত। চিলাহাটি ইমিগ্রেশন চালু করলে প্রতিদিন ট্রেনে দুই থেকে তিন শত যাত্রী ভারত বাংলাদেশ যাতায়াত করতো। তাতে মিতালী এক্সপ্রেস ট্রেনের যে লোকসান সেটি পুষিয়ে নিয়ে লাভ হতো। জানা গেছে, শিলিগুড়ি থেকে ঢাকা যেতে ইঞ্জিনের তেল, স্টাফ, পুলিশ, ভারতীয় কর্মচারী সহ সপ্তাহে দুই দিন যাওয়া ও দুই দিন আসা এই চারদিনে প্রচুর টাকা লোকসান গুনছে রেলকর্তৃপক্ষ। দুই দেশের রেলের লোকসান পুষিয়ে নেয়ার স্বার্থে চিলাহাটির ওপারে ভারতের সীমান্তবর্তী স্টেশন হলদিবাড়িতে ইমিগ্রেশন চালু করলে যাত্রী সংখ্যা দ্বিগুন হবে বলে বিভিন্ন মহল জানিয়েছেন।

এ নিয়ে হলদিবাড়িতে পাসপোর্ট হোল্ডার সমিতি নামে একটি কমিটি করা হয়েছে প্রায় ৪০০ জন সদস্য নিয়ে। তারা প্রতিনিয়ত আন্দোলন করে যাচ্ছে হলদিবাড়িতে ইমিগ্রেশন কাস্টমস চালু করার দাবিতে। ফলে হলদিবাড়ি থেকে বাংলাদেশে যাত্রী যাতায়াত করতে পারবে।

চিলাহাটি ইমিগ্রেশন চালু হলে পার্শ্ববর্তী পঞ্চগড় জেলাসহ সমগ্র রংপুর বিভাগের লোকজন ভারতে যেতে এই রুট ব্যবহার করবে ফলে যাত্রী সংখ্যা বাড়ার পাশাপাশি রেলের আয়ও বাড়বে।

Please Share This Post in Your Social Media

বিজ্ঞপ্তি

©দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার 2022All rights reserved