মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৮:০৪ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকাতে আপনাকে স্বাগতম! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন,বিজ্ঞাপন দিন সহযোগী হোন! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন বেকারত্ব দূর করুন ।
শিরোনাম :
বিএলএফ চট্টগ্রাম মহানগর ও জেলা কমিটির উদ্যোগে শ্রমিকদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত শ্রীমঙ্গলে এমসিডা আলোয়- আলো কিশোর কিশোরী বালিকা ফুটবল টুর্নামেন্ট -২০২৩ খ্রিঃ তুরস্কে ভূমিকম্পে নিহত ১১৮, ধ্বংসস্তূপে আটকে আছেন বহু মানুষ আমার মন্তব্য ছিল ফখরুলকে নিয়ে, হিরো আলম নয়: কাদের রিয়ালের হার, শীর্ষস্থানের পয়েন্ট বাড়াল বার্সেলোনা ইবিতে ছাত্রলীগের কর্মীসভা অনুষ্ঠিত  আইডিয়াল কমার্স কলেজ ও আইডিয়াল ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজের  শিক্ষকদের পেশাগত দক্ষতা উন্নয়ন শীর্ষক  কর্মশালা আদালতের আদেশ অমান্য করে বাড়ি নির্মাণের অভিযোগ শহিদ এএইচএম কামরুজ্জামানের কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ করলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যরা বাংলা মায়ের টানে মুক্তিযুদ্ধে  অংশ নিয়েছিল এদেশের বীর সন্তানরা                                                     

নেত্রকোণায় প্রকল্পের কাজ নাকরেই টাকা উত্তোলনের অভিযোগ

নেত্রকোনা কলমাকান্দা উপজেলার ৩ নং পোগলা ইউনিয়নে প্রকল্পের কাজ না করেই টাকা উত্তোলন, বিভিন্ন কর্মসূচির উপকারভোগীদের টাকা আত্নসাৎ, অবৈধ ভাবে নদীতে বাঁধ নির্মাণ, ইউএনও এবং এমপির নাম ভাংগিয়ে সরকারি জমির লিজ পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে ব্যবসায়ীর কাছে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবীসহ বিভিন্ন অভিযোগে শো’কজের পরেও দৌড়াত্ব কমেনি ইউপি চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হকের। তার স্বেচ্ছাচারীতা, বিভিন্ন অনিয়ম-দূর্নীতির প্রতিবাদ ও প্রত্যাহারের দাবিতে ইউনিয়নবাসী মানবন্ধন, বিক্ষোভ করেও মুক্তি মেলেনি ইউনিয়নবাসীর। ২০২১-২২ অর্থ বছরে গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার (কাবিটা) নগদ অর্থ (টাকা)’র উপজেলা পরিষদ ওয়ারী ২য় পর্যায়ে প্রকল্প পোগলা ইউনিয়নের গংগানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মাঠি ভরাট বাবদ ১ লাখ ৫৫ হাজার টাকা। এবং ১ম পর্যায়ে ভেকুরিকান্দা আলালের পুকুরপাড় হতে ভেকুরিকান্দা সাজলের বাড়ি পর্যন্ত রাস্তার ২ লাখ ১৪ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয় সরকার। দলীয় প্রভাব কাটিয়ে প্রকল্প সভাপতি (পিআইসি)’র যোগসাজশে কাজ না করেই পুরো টাকা উত্তোলন করেন ইউপি চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক। যার প্রমাণও মিলেছে প্রকল্পের এক সভাপতি ইউপি সদস্য মোঃ শাহ আলমের ফোঁনালাপে। এছাড়াও বিভিন্ন কর্মসূচির কাজ করিয়ে ন্যয্য টাকা না দেওয়ার অভিযোগও করেন স্থানীয় ভুক্তভোগীরা। কলমাকান্দা উপজেলার ৩ নং পোগলা ইউনিয়নের গংগানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরজাহান বেগম মুক্তা বলেন, স্কুল কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সহ অনান্য ব্যাক্তিবর্গদের নিয়ে আমরা রেজুলেশন করে বিদ্যালয়ের অর্থায়নে স্কুল মাঠে ভরাট করেছি। কাজ শেষে শুনতে পাই ইউনিয়ন পরিষদে এই বিদ্যালয়ের মাটি ভরাটের জন্য ১ লক্ষ ৫৫ হাজার টাকা বরাদ্দ এসেছে। এব্যাপারে ইউনিয়ন পরিষদের কেউ কিছু জানায়নি।” এমনকি গংগানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে প্রকল্পের মাটি ভরাটের কাজ না করেই টাকাও উত্তোলনের প্রমাণও মিলেছে প্রকল্পের সভাপতি (পিআইসি) ও ইউপি সদস্য মোঃ শাহ আলমের ফোঁনালাপে। ফোনাঁলাপে ইউপি সদস্য মোঃ শাহ আলম বলেন “কাজ তো আমি চিনিনা জানিনা হুনিনা, চেয়ারম্যানের কাজ আমি খালি স্বাক্ষর দিছি। চেয়ারম্যান আমারে কইছে তুমারে হেইনো ১ টনের কাজ দিছি এটা আমার কাজ, দলীয় কাজ তুমি সই স্বাক্ষর দিয়া দেও। চেয়ারম্যান করাইবো আমার জানারও বিষয় না দেখারও বিষয় না।” এব্যাপারে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে ইউপি চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক ফোন রিসিভ করে কেটে দেন। ফলে তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। নেত্রকোনা জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিছবাহ উদ্দিন খান আসাদ বলেন, ২০২১-২২ অর্থ বছরে কলমাকান্দার ৩ নং পোগলা ইউনিয়নে বরাদ্দের ২৫ শতাংশ প্রকল্প বাস্তবায়ন হলেও উন্নয়নের ছোঁয়া পেত ইউনিয়নবাসী। গংগানগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে মাটি ভরাটের টাকা উত্তোলনসহ ইউনিয়নে বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ না করে টাকা উত্তোলন করে চেয়ারম্যান মেম্বার মিলে নিজেদের পকেট ভারী করার অভিযোগও করেন তিনি। পোগলা ইউনিয়নে কোটি টাকা প্রকল্পের অনিয়ম-দূর্নীতির সুষ্ঠ তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নেত্রকোনা জেলা প্রশাসক সহ সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি। প্রকল্পের কাজ না করেই বিল উত্তোলনের ব্যাপারে জানতে চাইলে প্রকল্প কর্মকর্তা মোঃ লতিফুর রহমান (অতিঃ দ্বাঃ) বক্তব্য দিতে রাজি হননি। কলমাকান্দা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আবুল হাসেম মুঠোফোনে জানান, “বিষয়টি জানার পর আমি তাকে (চেয়ারম্যানকে) জিজ্ঞাসা করেছি সে আমাকে (চেয়ারম্যান) উত্তর দিয়েছে মাটি কাটিনাই স্যার, মাটি কেটে দিবো। প্রকল্পের কাজ না করেই বিল উত্তোলনের সুযোগ আছে কি না- এমন প্রশ্নের উত্তরে ইউএনও বলেন, টাকা তো তুলবেই, একটা বিষয় আছে গতবছরের জুন মাসের প্রকল্প এটা, বিল চলে যাবে তাই এটাকে উত্তোলন করে একটা জায়গায় রাখা হয়। এবং চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক উপস্থিত থেকে গুমাই নদীর বাঁধ কেটে দিয়েছে বলেও জানান তিনি।” এব্যাপারে জানতে চাইলে জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিস মুঠোফোনে প্রতিবেদককে জানান, লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। জনস্বার্থে সরকারের উন্নয়ন অগ্রগতি অব্যাহত রাখতে সুষ্ঠ তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা নিবে প্রশাসন এমনটাই প্রত্যাশা ইউনিয়নবাসীর।


বিজ্ঞপ্তি

©দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার 2022All rights reserved