সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৯:০৪ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকাতে আপনাকে স্বাগতম! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন,বিজ্ঞাপন দিন সহযোগী হোন! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন বেকারত্ব দূর করুন ।
শিরোনাম :
আইডিয়াল কমার্স কলেজ ও আইডিয়াল ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজের  শিক্ষকদের পেশাগত দক্ষতা উন্নয়ন শীর্ষক  কর্মশালা আদালতের আদেশ অমান্য করে বাড়ি নির্মাণের অভিযোগ শহিদ এএইচএম কামরুজ্জামানের কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ করলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যরা বাংলা মায়ের টানে মুক্তিযুদ্ধে  অংশ নিয়েছিল এদেশের বীর সন্তানরা                                                      বিশ্ব ক্যান্সার দিবস উপলক্ষে জাতীয় প্রেস ক্লাবের আবদুস সাত্তার হল রুমে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এক স্মৃতিময় সন্ধ্যায়  সফেনের স্বপ্নদ্রষ্টা ও আমরা ক’জন বাংলাদেশ প্রবীণ হিতৈষী সংঘ ও জরা বিজ্ঞান প্রতিষ্ঠান নির্বাচন (2023-2025) ক্যাপ্টেন শামছুল হক-বীর মুক্তিযোদ্ধা ইন্তেজার রহমান প্যানেল-এ ভোট দিন। আব্দুল হালিম পাটওয়ারী ফাউন্ডেশন কর্তৃক ৫ম ও ৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের মেধা বৃত্তি প্রদান-২০২২ নওগাঁয় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর এর অভিযানে ৬কেজি গাঁজাসহ আটক-১ নওগাঁয় মোটরসাইকেলের ধাক্কায় স্কুল ছাত্র নিহত-মা ও ছোট বোন আহত

খুলনায় ছাড়পত্র ছাড়া অবৈধভাবে গড়ে তোলা ইটভাটা করছে পরিবেশ দূষণ

খুলনার রূপসায় ভৈরব নদীর পাড়ে সরকারি জমি দখল করে পরিবেশের ছাড়পত্র ছাড়া অবৈধভাবে গড়ে তোলা হয়েছে অসংখ্য ইটভাটা। এতে করে অত্র অঞ্চলের পরিবেশ ব্যাপকভাবে দূষণ হচ্ছে। এ বিষয়ে পরিবেশ অধিদপ্তর খুব শীঘ্রই ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলে আশ্বাস প্রদান করেছেন।
সরজমিনে অনুসন্ধান করে জানা যায় , রুপসার আঠারোবেকি, ভৈরব নদীর তীর ঘেঁষে গড়ে উঠেছে অসংখ্যা ইটভাটা । পরিবেশের ছাড়পত্রের অনুমোদন ছাড়া অনেকেই চালিয়ে যাচ্ছে এ ভাটা গুলি। জমি বাবদ বাড়তি কোন খরচ না থাকায় বেশিরভাগ ভাটা মালিক বেছে নিয়েছেন নদী তীরবর্তি চর ভরাটি জায়গা। তাছাড়া এ সমস্ত ভাটার আশপাশ দিয়ে হাজার হাজার লোকের বসবাস ভাটায় কয়লা পোড়া ধোঁয়ায় এলাকার পরিবেশ ব্যাপকভাবে দূষিত হচ্ছে। তাছাড়া ভাটায় কয়লা পোড়া বিষাক্ত পানি ও ফেলছে তারা নদীতে এবং পুরনো ইটের রাবিশ নদীতে ফেলে জমি দখল করছে এতে করে নদীর জোয়ার ভাটায় বাধাগ্রস্ত হয়ে চর পড়ছে যার জন্য ভাটা মালিকরা লাভবান হলেও সংকুচিত হচ্ছে নদী সেই সাথে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে স্থানীয় পরিবেশ।
এছাড়া জনবসতিপূর্ণ এলাকা, মসজিদ, মাদ্রাসা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশে  ফসলি  জমিতেও অবৈধভাবে গড়ে উঠেছে বেশ কয়েকটি  ইটভাটা। এসব ইটভাটার বেশিরভাগেরই কোন বৈধ অনুমোদন নেই। স্থানীয় প্রশাসনকে ম্যানেজ করে বছরের পর বছর চলছে এই ভাটা গুলি। এ ধরনের পরিবেশ বিরোধী কর্মকান্ড অব্যাহত রেখেছে প্রভাবশালী ভাটা মালিকরা। এই এলাকায় ইট ভাটা তৈরিতে পরিবেশের ছাড়পত্র পাওয়ার কোন প্রশ্নই ওঠে না। অত্র এলাকার একাধিক ব্যক্তিবর্গের সাথে কথা বললে নাম না জানানোর শর্তে তারা বলেন এসব এলাকা জনবসতিপূর্ণ হাওয়াই এই ইট ভাটার বিষাক্ততায় এলাকার আবাল বৃদ্ধা বর্ণিতা কেউ বাড়ি থেকে বের হতে পারেনা ভাটার পোড়া ধোঁয়ায় অত্র অঞ্চলের মানুষের বিভিন্ন ধরনের শ্বাসকষ্ট জনিত রোগ দেখা দিয়েছে হাঁপানি বা অ্যাজমার মতো মারাত্মক রোগেও ভুগছে এলাকার মানুষ।
সরকারি ম্যানুয়ালে আছে স্কুল কলেজ মসজিদ মাদ্রাসা এবং জনবসতিপূর্ণ এলাকায় ইটভাটা স্থাপন করা যাবে না কিন্তু এখানে কোন আইন কানুনের বালাই দেখছেনা এলাকাবাসী। উপজেলা প্রশাসন কয়েক মাস আগে দুটি ভাটায় উচ্ছেদ অভিযান চালিয়ে স্থাপনা গুঁড়িয়ে দেয়। কিন্তু ওই দুটি ভাটার মালিক আবারও ইট তৈরির কাজ শুরু করেছেন। এ বিষয়ে সমাজের সচেতন মহলের একটাই দাবি মানবিক দিক বিবেচনা করে পরিবেশের ভারসাম্য বজায় রেখে ইটভাটা স্থাপনের জন্য ফাঁকা খোলা জায়গা নির্ধারণ করা উচিত। এবং যে সমস্ত ইট ভাটা গুলো জনবসতিপূর্ণ এলাকায় গড়ে উঠেছে এগুলোকে পরিবেশের ছাড়পত্র না দেওয়ার জন্য সরকারের কাছে বিশেষভাবে বিনীত অনুরোধ জানায়। এ বিষয়ে পরিবেশ অধিদপ্তরের খুলনা জেলার সহকারী পরিচালক আবু সাঈদ এর সঙ্গে কথা বললে সে বলেন অচিরেই এ সমস্ত ইটভাটার বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করা হবে।


বিজ্ঞপ্তি

©দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার 2022All rights reserved