সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৮:৫১ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকাতে আপনাকে স্বাগতম! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন,বিজ্ঞাপন দিন সহযোগী হোন! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন বেকারত্ব দূর করুন ।
শিরোনাম :
আইডিয়াল কমার্স কলেজ ও আইডিয়াল ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজের  শিক্ষকদের পেশাগত দক্ষতা উন্নয়ন শীর্ষক  কর্মশালা আদালতের আদেশ অমান্য করে বাড়ি নির্মাণের অভিযোগ শহিদ এএইচএম কামরুজ্জামানের কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ করলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যরা বাংলা মায়ের টানে মুক্তিযুদ্ধে  অংশ নিয়েছিল এদেশের বীর সন্তানরা                                                      বিশ্ব ক্যান্সার দিবস উপলক্ষে জাতীয় প্রেস ক্লাবের আবদুস সাত্তার হল রুমে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এক স্মৃতিময় সন্ধ্যায়  সফেনের স্বপ্নদ্রষ্টা ও আমরা ক’জন বাংলাদেশ প্রবীণ হিতৈষী সংঘ ও জরা বিজ্ঞান প্রতিষ্ঠান নির্বাচন (2023-2025) ক্যাপ্টেন শামছুল হক-বীর মুক্তিযোদ্ধা ইন্তেজার রহমান প্যানেল-এ ভোট দিন। আব্দুল হালিম পাটওয়ারী ফাউন্ডেশন কর্তৃক ৫ম ও ৮ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের মেধা বৃত্তি প্রদান-২০২২ নওগাঁয় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর এর অভিযানে ৬কেজি গাঁজাসহ আটক-১ নওগাঁয় মোটরসাইকেলের ধাক্কায় স্কুল ছাত্র নিহত-মা ও ছোট বোন আহত

নোয়াখালী জেলা সিভিল সার্জনের প্রধান সহকারী পদঃ সকল ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করে পুনর্বহাল -আবু তাহের

নোয়াখালী জেলা সিভিল সার্জনের প্রধান সহকারী হিসেবে পুনর্বহাল হয়েছেন মো. আবু তাহের। গত বছরে দুর্নীতি, ঘুষ লেনদেন ও নানা অনিয়মের অভিযোগের প্রেক্ষিতে সিএস অফিসের এ প্রধান সহকারীকে বেগমগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বদলী করা হয়। সেখানে বছর খানেক চাকুরী করার পর পুনরায় জেলা সিভিল সার্জনের  প্রধান সহকারী হিসেবে পুনর্বহাল রাখেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।
‘দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার’কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, আমার কোনো বিন্দুমাত্র অপরাধ নেই। আমি অপরাধী না। আমি কোনো সিগনেচার জালিয়াতি, ঘুষ লেনদেন ও নিয়োগ বানিজ্যে ছিলাম না। একটি মহল আমার বিরুদ্ধে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে ষড়যন্ত্র চালিয়েছিল আমাকে চাকুরীচ্যুত করার জন্য। আমার কোনো অপরাধ না থাকা সত্ত্বেও চাকরী জীবনের শেষ সময়ে এসে নানা হয়রানীর শিকার হতে হয়েছিল। নোয়াখালী জেলা সিভিল সার্জন অফিসে কর্মরত থাকার  মাত্র এক বছরের মাথায় সেখান থেকে ষড়যন্ত্রমূলক বিভিন্ন অনিয়ম,দুর্নীতি ও সিগনেচার জালিয়াতির অভিযোগ তোলা হয়। পরে বেগমগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বদলী করা হলে সেখানে ১ বছর ১ মাস কর্মরত ছিলাম।
 তিনি আরো বলেন, আমি জেলা সিভিল সার্জন মহোদয় ডা.মাসুম ইফতেখার, স্বাচিপ সভাপতি ডা. ফজলে এলাহী খান, স্বাচিপ সাধারণ সম্পাদক ডা.মাহবুবুর রহমান এর সহায়তায় ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশক্রমে জেলা সিভিল সার্জনের প্রধান সহকারী হিসেবে পুনর্বহাল হয়েছি। আমি উর্ধতন কর্তৃপক্ষ ও সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি।
প্রতিবেদকের করা এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি ক্ষুদ্র একটি পদে এখানে পুনরায় আসতে চাওয়ার কারণ হলো, আমি তো কোনো অপরাধী না। আমার বিরুদ্ধে নানা অপপ্রচার চালানো হয়েছিল। আর এসব বিষয় আমার ইগোতে( আত্মসম্মান) লেগেছিল। এজন্য আমি আল্লাহর উপর ভরসা রেখে ও ধৈর্যধারণ করে আমি আমার চেষ্টা চালিয়েছি নিজেকে নির্দোষ প্রমাণের জন্য।আলহামদুলিল্লাহ! আমি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সহায়তায় সফলতা অর্জন করেছি। আপনারা যদি কোনো প্রতিবেদন বা রিপোর্ট পরিবেশন করেন। তাহলে তা ভালো করে ক্ষতিয়ে দেখে করুন। সত্যের সন্ধানে আমরা সবাই আশাবাদী। আমি আপনাদের সহযোগিতা নিয়ে চাকরী জীবনের শেষ কয়টা দিন সমাপ্তি করতে চাই।


বিজ্ঞপ্তি

©দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার 2022All rights reserved