মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৮:০১ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকাতে আপনাকে স্বাগতম! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন,বিজ্ঞাপন দিন সহযোগী হোন! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন বেকারত্ব দূর করুন ।
শিরোনাম :
বিএলএফ চট্টগ্রাম মহানগর ও জেলা কমিটির উদ্যোগে শ্রমিকদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত শ্রীমঙ্গলে এমসিডা আলোয়- আলো কিশোর কিশোরী বালিকা ফুটবল টুর্নামেন্ট -২০২৩ খ্রিঃ তুরস্কে ভূমিকম্পে নিহত ১১৮, ধ্বংসস্তূপে আটকে আছেন বহু মানুষ আমার মন্তব্য ছিল ফখরুলকে নিয়ে, হিরো আলম নয়: কাদের রিয়ালের হার, শীর্ষস্থানের পয়েন্ট বাড়াল বার্সেলোনা ইবিতে ছাত্রলীগের কর্মীসভা অনুষ্ঠিত  আইডিয়াল কমার্স কলেজ ও আইডিয়াল ইন্টারন্যাশনাল স্কুল এন্ড কলেজের  শিক্ষকদের পেশাগত দক্ষতা উন্নয়ন শীর্ষক  কর্মশালা আদালতের আদেশ অমান্য করে বাড়ি নির্মাণের অভিযোগ শহিদ এএইচএম কামরুজ্জামানের কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ করলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যরা বাংলা মায়ের টানে মুক্তিযুদ্ধে  অংশ নিয়েছিল এদেশের বীর সন্তানরা                                                     

গজারিয়ায় হাসপাতাল ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশে চলছে অনুমোদনহীন ইটভাটা

মুন্সিগঞ্জর গজারিয়া উপজেলা ইটভাটা তৈরিতে নেই পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমোদন, নেই জেলা প্রশাসনের অনুমোদন। প্রয়োজনীয় কাগজপত্র না থাকার পরেও থেমে থাকেনি তাদের কার্যক্রম। কোন প্রকার অনুমোদন ছাড়াই গজারিয়াতে নামে বেনামের ইটভাটার মালিকরা তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন ।ভাটায় দেখা গেছে,কয়লার পাশাপাশি কাঠ মজুদ করে রাখা হয়েছে আর নতুন ইট তৈরির কাজ দেদারছে চালিয়ে যাচ্ছেন মালিক পক্ষ। ইটভাটার ধোঁয়ায় স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়েছে  শিশুরা ।
প্রশাসনকে জানিয়েও কোন প্রতিকার পাচ্ছে না শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসী না দেখার ভান করছে পরিবেশ অধিদপ্তর গজারিয়া উপজেলা টেংগারচর ইউনিয়নের ভাটেরচর গ্রামে কৃষি জমিতে গড়ে উঠেছে এন, এন, এম ব্রিক্- ফিল্ড নামের একটি ইটভাটা এর একশ’ গজের ভেতর ভাটেরচর দেওয়ান আব্দুল  মান্নান উচ্চবিদ্যালয় ।গজারিয়া জেনারেল হাসপাতাল । ভাটায় ইট পোড়ানোর কালো ধোঁয়া আর উড়ে আসা ধুলাবালি বিদ্যালয় ভবনে প্রবেশ করে শিক্ষার পরিবেশ নষ্ট করছে। দিন দিন শিক্ষার্থীরা এতে মারাত্মক ঝুঁকি এবং অসুস্থ হয়ে পড়ে।
ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রণ) ২০১৯ অনুযায়ী, বিশেষ কোনো স্থাপনা, রেলপথ, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, হাসপাতাল ও ক্লিনিক, গবেষণা প্রতিষ্ঠান কিংবা অনুরূপ কোনো স্থান বা প্রতিষ্ঠান থেকে কমপক্ষে এক কিলোমিটার দূরে ইটভাটা স্থাপন করতে হবে।  তবে সেই আইনের কোনো তোয়াক্কা করা হচ্ছে না।
ইটভাটার ১০০ ফুটের মধ্যে বসবাস করা এক নারী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ইট পোড়ানোর ধোঁয়ায় আমরা শ্বাসকষ্টে ভুগছি। আমাদের বাড়িতে কোনো গাছে ফল ধরে না। আমরা এখন ভাতের সঙ্গে ধুলা খাই। ইটের ধুলায় আমাদের বাড়ি নষ্ট হচ্ছে। আমরা ভাত খাই না ইটের লাল  ধুলা খাই।
সরকারি বিধানের আলোকে যদি এই ইটভাটার কোনো লাইসেন্স এবং পরিবেশ ছাড়পত্র থাকে, তা হলেও ইটভাটার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা যাবে।
অনুমোদন ছাড়াই ইটভাটা তৈরির কথা স্বীকার করেন এন, এন, এম ব্রিক্- ফিল্ড স্বত্বাধিকারী স্বীকার করে বলেন,জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে অনুমোদন পেতে আরও কিছুদিন সময় লাগবে। প্রশাসনের অনুমোদন ছাড়া ইটভাটায় আগুন লাগানোর বিষয়ে তিনি জানান,এখানে অনেক ইটভাটা আছে তাদের প্রশাসনের কোন অনুমোদন নেই। তবে  কি ভাবে অনুমোদন ছাড়া বিশ বছর যাবৎ ইট তৈরি করছেন এমন প্রশ্নের জবাব তিনি এড়িয়ে যান স্থানীয়দের অভিযোগ, এসব ইটভাটা বন্ধ করতে কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না প্রশাসন। পরিবেশ অধিদপ্তর বলতে গজারিয়া বা মুন্সীগঞ্জে কিছু আছে কিনা জানা নেই ।
ইটভাটার ধোঁয়ায় শ্বাসকষ্ট, হাপানি, এলার্জিসহ নানা রকম রোগ হতে পারে বলে জানান হাসপাতালের চিকিৎসকরা।


বিজ্ঞপ্তি

©দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার 2022All rights reserved