বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০২:১৮ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকাতে আপনাকে স্বাগতম! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন,বিজ্ঞাপন দিন সহযোগী হোন! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন বেকারত্ব দূর করুন ।
শিরোনাম :
ছাতকের পরিস্থিতি ভয়াবহ,সারা‌দে‌শে সঙ্গে সড়ক যোগা‌যোগ বন্ধ পিরোজপুরে বাস চাপায় কলেজ ছাত্র নিহত ১৭ মে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা,গণতন্ত্রের অগ্নিবীণা ও উন্নয়ন-প্রগতির প্রত্যাবর্তনঃ তথ্যমন্ত্রী নাজিরপুর অঞ্চলের কৃষকের স্বপ্ন প্রতি বছর তলিয়ে যায় পানির নিচে কালিহাতীতে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট উদ্বোধন রাজশাহী জেলা সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের ভোট স্থগিত প্রফেসর ডাক্তার উত্তম কুমার বড়ুয়াকে সংবর্ধিত করলো মিলন-পুর্নিমা ফাউন্ডেশন ঈদগাঁওর ৫ ইউনিয়নে আওয়ামী রাজনৈতিক অঙ্গনে চাঙ্গাভাব: উচ্ছাস তৃনমূলে চট্টগ্রামের হিজরা সুমন মানবিক কাজে আত্ম তৃপ্তি পান সরিষাবাড়ীতে দুই শিশু শিক্ষার্থী হারানোকে কেন্দ্র করে মাদ্রাসায় হামলা ভাঙচুর ও শিক্ষককে লাঞ্ছিত

জুয়ার টাকা জোগাড় করতে ৮ লাখ ২৮ হাজার টাকা চুরি! অতঃপর আটক

কমল চক্রবর্তীঃ

গতকাল বুধবার ৯ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০.০০ টার সময় নোয়াখালী জেলার সোনাইমুড়ী এলাকা হইতে গ্রেফতার করা হয়  বলেও নিশ্চিত করেছেন তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মোঃ মেহেদী হাসান।

গ্রেপ্তারকৃত ছালেহ আহমদ ওরফে শাহীন নোয়াখালী জেলার সোনাইমুড়ি থানাধীন কাশিপুর গনি মাষ্টারের বাড়ীর মো: শাহজাহানের ছেলে। সে বিআরটিসির ফলমন্ডিতে শাহী এন্টারপ্রাইজ নামে একটি দোকানে চাকরি করতেন।

কোতোয়ালী থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ নেজাম উদ্দীন, পিপিএম জানান, ফলমন্ডির মো. ইমতিয়াজ নামে এক ব্যবসায়ী তার দোকান থেকে আট লাখ ২৮ হাজার টাকা চুরির অভিযোগে মামলা করেন। মামলার সুত্র ধরে নোয়াখালীর সোনাইমুড়ি উপজেলা থেকে বুধবার শাহীনকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদে সে দোকান থেকে ছয় লাখ ২৮ হাজার টাকা চুরির কথা স্বীকার করে এবং ঘরে রাখা সাড়ে পাঁচ লাখ টাকা উদ্ধার করে পুলিশ।

ওসি জানান, ইমতিয়াজের পাশের দোকান শাহী এন্টারপ্রাইজে শাহীন কাজ করতেন। ৩ ফেব্রুয়ারি ভোরে দোকান থেকে বেরিয়ে ইমতিয়াজ একটি দোকানে চা পান করেন। বিল দেওয়ার সময় পকেটে টাকা না থাকায় তিনি নিজের দোকানে ফিরে একটি শাটার খোলার সময় আরেকটি শাটার খুলে শাহীনকে দৌড়ে পালিয়ে যেতে দেখেন। পরে দোকানের ক্যাশ বক্স ভাঙা এবং খালি দেখে বিষয়টি শাহী এন্টারপ্রাইজের মালিককে টেলিফোনে জানান ইমতিয়াজ। পরে সিসি ক্যামেরার ভিডিও দেখে ব্যবসায়ীরা শাহীনকে শনাক্ত করেন।

ওসি নেজাম উদ্দিন বলেন, শাহীন একজন মাদকাসক্ত, চাকুরি করা কালীন সে নেশার জগতে জড়িয়ে পড়ে। নেশার
পাশাপাশি সে জুয়া খেলতে থাকে। জুয়া খেলতে গিয়ে সে বেতনের টাকা যা পায় সব জুয়া খেলায় উড়িয়ে দেয়। একপর্যায়ে জুয়ার টাকায় সে আর্থিক সংকটে পড়ে। জুয়ার টাকা যোগাড় করতে গিয়ে আসামী ইমতিয়াজ সাহেবের দোকানে থাকা টাকার দিকে নজর দেয় এবং জুয়ার টাকা জোগাড় করতে ইমতিয়াজের দোকানের ক্যাশ বক্স চুরির টার্গেট করে সে। সেজন্য প্রতিদিন ব্যাগে স্ক্রু ড্রাইভারসহ বিভিন্ন ধরনের সরঞ্জাম রাখত।

বিএস/কেসিবি/সিটিজি/৮ঃ৪৫পিএম

Please Share This Post in Your Social Media

বিজ্ঞপ্তি

©দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার 2022All rights reserved