মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০৬:৫৮ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকাতে আপনাকে স্বাগতম! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন,বিজ্ঞাপন দিন সহযোগী হোন! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন বেকারত্ব দূর করুন ।
শিরোনাম :
রেমিটেন্স যোদ্ধাদেরকে সম্মাননা দেবে মহানগর আওয়ামী লীগ- আ জ ম নাছির উদ্দীন যাত্রীর স্বর্ণালংকারসহ ব্যাগ চুরি;এ্যাপসের সহায়তায় সিএনজি চালক আটক রোহিঙ্গারা যাতে ভোটার তালিকায় স্থান না পায় সে ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবেঃ জেলা প্রশাসক চলচ্চিত্র ‍‘হুইল চেয়ার’র প্রিমিয়ার শো চট্টগ্রাম শিল্পকলায় বৃহস্পতিবার বাগেরহাট জেলার সেরা অফিসার নির্বাচিত হয়েছেন এসি ল্যান্ড মোঃ আলী হাসান খেলাধুলায় সম্পৃক্ত থাকলে আমাদের সন্তানরা বিপদগামী হবে না-মহিউদ্দীন মহারাজ ভান্ডারিয়ায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় গোল্ড কাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট উদ্বোধন কোভিড-১৯ এর সার্টিফিকেট নিয়ে বিদেশগামী সাধারণ যাত্রীদের সাথে প্রতারণা;চক্রের ৭ সদস্য গ্রেফতার নগরীতে র‍্যাব-৭ ও ভোক্তা অধিকার যৌথ অভিযান;১২ হাজার লিটার তৈল জব্দসহ ৫ লক্ষ টাকা জরিমানা ঝুঁকিপূর্ণ সেতুটি সংস্কার করা হয়েছে 

সাংবাদিকতা ও মানবকল্যাণে গুরুত্বপূর্ণ অবদান;রাষ্ট্রপতি সেবা পদক পেলেন বাংলাদেশ সমাচার এর সম্পাদক ড. খান আসাদুজ্জামান

কমল চক্রবর্তীঃ
সাংবাদিকতার পাশাপাশি মানবকল্যাণে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ বাংলাদেশ আনসার-ভিডিপি প্রণীত রাষ্ট্রপতি সেবা পদক পেলেন দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার ও দ্যা ডেইলী বাংলাদেশ ডায়েরী এর সম্পাদক ড. খান আসাদুজ্জামান ।

আজ বৃহস্পতিবার ১০ ফেব্রুয়ারি দপুরে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, বিশ্বনন্দিত রাষ্ট্রনায়ক শেখ হাসিনার পক্ষে মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এই সম্মাননা পদক হস্তান্তর করেন।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (জননিরাপত্তা) মোঃ আখতার হোসেন এবং বাংলাদেশ আনসার-ভিডিপির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোঃ মিজানুর রহমান শামীম।

এক নজরে ড. খান আসাদুজ্জামানঃ
ড. খান আসাদুজ্জামান একাধারে একজন কবি, কথাশিল্পী, গবেষক, গীতিকার, সুরকার এবং বাংলাদেশ বেতার ও বাংলাদেশ টেলিভিশনের কণ্ঠশিল্পী। তিনি বাগেরহাট জেলার ফকিরহাট থানাধীন ঐতিহ্যবাহী ভৈরব নদী সংলগ্ন দোহাজারী গ্রামে তাঁর জন্ম। ড. খান আসাদুজ্জামান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৯৭ সালে স্নাতক সম্মান ও ১৯৯৮ সালে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। অতঃপর তিনি ২০০৯ সালে এমফিল (১ম পর্ব) কৃতিত্বের সাথে সম্পন্ন করেন এবং ২০১৫ সালের ২৯ মার্চ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। তাঁর পিএইচডি গবেষণার বিষয়: The poetic values of the songs of Gouriprasanna Majumdar and Pulak Bandyopadhyay. গবেষণা তত্ত্বাবধায়ক ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বনামধন্য অধ্যাপক, বরেণ্য শিক্ষাবিদ, শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়, নেত্রকোনা’র মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. রফিকউল্লাহ খান।

একই সাথে তিনি অতীশ দীপঙ্কর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় হতে ২০১৩ সালে এলএলবি এবং ২০১৫ সালে এলএলএম ডিগ্রি অর্জন করেন। ড. খান আসাদুজ্জামান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় স্নাতক সম্মান দ্বিতীয় বর্ষে থাকাকালীন সহপাঠী, অগ্রজ ও অনুজদের সাথে নিয়ে ১৯৯৭ সালের ১ ডিসেম্বর সোসাইটি ফর এনলাইটেনিং নেশন (SOFEN) নামক একটি অরাজনৈতিক শিক্ষা, সংস্কৃতি, মানবকল্যাণধর্মী ও গবেষণামূলক প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার মধ্য দিয়ে মানুষ ও মানবতার সেবায় সুদীর্ঘ পঁচিশ বছর যাবৎ নিজেকে নিমগ্ন রেখেছেন, যা তাঁর মানবসেবা ব্রতের এক উজ্জ্বল উদাহরণ। তিনি জাতীয় পত্রিকা দৈনিক বাংলাদেশ সামাচার, উধরষু ইধহমষধফবংয উরধৎু ও মাসিক অপরাজেয় বাংলাদেশ-এর সম্পাদক ও প্রকাশক। এছাড়াও তিনি দেশের অন্যতম শীর্ষ আইটি প্রতিষ্ঠান IT Bangla Ltd. এর চেয়ারম্যান, SOFEN Innovation Ltd. ও SOFEN Technologies Ltd. এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং আনসার-ভিডিপি উন্নয়ন ব্যাংকের পরিচালক হিসেবে সততা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করে চলেছেন।

ড. খান আসাদুজ্জামানের পিতা বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী ও সমাজকর্মী অত্যন্ত সৎ ও নিষ্ঠাবান ব্যক্তিত্ব আলাহাজ্ব খান আখতারুজ্জামান এবং মাতা মাহফুজা খানম। নয় ভাই-বোনের মধ্যে তিনি পিতা-মাতার পঞ্চম সন্তান এবং ভাই-বোনসহ পরিবারের সকল সদস্যদের প্রতি তিনি অত্যন্ত আন্তরিক ও দায়িত্বশীল ভ‚মিকায় নিবেদিত রয়েছেন। পাশাপাশি তিনি ফকিরহাট তথা বাগেরহাট অঞ্চলের দুঃখী, দরিদ্র ও অসহায় মানুষের সেবা ও ভাগ্য উন্নয়নে গড়ে তুলেছেন “ডক্টর খান আসাদুজ্জামান হিউম্যান ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট” নামে একটি মানবকল্যাণমূলক প্রতিষ্ঠান; যা তাঁর মানবসেবা ব্রতের উজ্জ্বল উদাহরণ।

ড. খান আসাদুজ্জামানের সুযোগ্যা সহধর্মিনী বাংলাদেশ পুলিশের সৎ, দক্ষ ও নিষ্ঠাবান কর্মকর্তা পুলিশ সুপার মাকসুদা আক্তার খানম পিপিএম সম্প্রতি  র‍্যাব-২ এর উপ-পরিচালক হিসেবে যোগদান করেন। তিনি দুই কন্যা সাবরিনা তাজিন খান ঐশ্বর্য ও ফাহমিদা নিশাত খান ঐশিকা এবং এক পুত্র জারিফ আসাদ খানের গর্বিত পিতা বহুমুখী প্রতিভাধর কবি ড. খান আসাদুজ্জামান রচিত “ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের মহাকাব্য” শীর্ষক কাব্যগ্রন্থটি মূলত বঙ্গবন্ধুর বর্ণাঢ্য কর্মময় জীবনের নানাবিধ প্রেক্ষাপটের আলোকে রচিত একটি বিষয়ভিত্তিক, গবেষণাধর্মী ও তথ্যবহুল ব্যতিক্রমী কাব্যপ্রয়াস।

বঙ্গবন্ধুর মতো একজন আপসহীন নির্ভীক স্বপ্নদ্রষ্টা মহান নেতার সমগ্র জীবনের কথা অর্থাৎ ব্যক্তিজীবন, ছাত্রজীবন, ছাত্র আন্দোলন, ভাষা আন্দোলন, স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতা আন্দোলনের সূচনা, চূড়ান্ত বিজয় অর্জন এবং সোনার বাংলা গড়ার সুস্বপ্নের নানা বিষয়ে এই কবি কাব্য ভাষায় যা তুলে ধরেছেন, তা হাজার পৃষ্ঠায় রচিত কোন বীর মহাবীরের জীবনালেখ্যের চেয়ে কোনো অংশেই কম নয়; আর কবিতায় যে এটি সম্ভব তা তিনি তাঁর একাব্যে দারুণভাবেই প্রমাণও করে দিয়েছেন।

অভিনন্দন ও শুভকামনা রইল। আপনার এই অর্জনে আমরা গর্বিত ও আনন্দিত।

বিএস/কেসিবি/সিটিজি/৮ঃ৩৩পিএম

Please Share This Post in Your Social Media

বিজ্ঞপ্তি

©দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার 2022All rights reserved