বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৫:৫৪ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকাতে আপনাকে স্বাগতম! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন,বিজ্ঞাপন দিন সহযোগী হোন! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন বেকারত্ব দূর করুন ।
শিরোনাম :
১৭ মে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা,গণতন্ত্রের অগ্নিবীণা ও উন্নয়ন-প্রগতির প্রত্যাবর্তনঃ তথ্যমন্ত্রী নাজিরপুর অঞ্চলের কৃষকের স্বপ্ন প্রতি বছর তলিয়ে যায় পানির নিচে কালিহাতীতে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট উদ্বোধন রাজশাহী জেলা সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের ভোট স্থগিত প্রফেসর ডাক্তার উত্তম কুমার বড়ুয়াকে সংবর্ধিত করলো মিলন-পুর্নিমা ফাউন্ডেশন ঈদগাঁওর ৫ ইউনিয়নে আওয়ামী রাজনৈতিক অঙ্গনে চাঙ্গাভাব: উচ্ছাস তৃনমূলে চট্টগ্রামের হিজরা সুমন মানবিক কাজে আত্ম তৃপ্তি পান সরিষাবাড়ীতে দুই শিশু শিক্ষার্থী হারানোকে কেন্দ্র করে মাদ্রাসায় হামলা ভাঙচুর ও শিক্ষককে লাঞ্ছিত নাটোরে ধর্ষণ মামলায় যুবক গ্রেফতার মনোহরদীতে নৌকার প্রার্থীর প্রচারণায় হামলা, ভাংচুর

ঈদগাঁওতে অবিলম্বে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন স্থাপনের দাবী

কক্সবাজারের নবগঠিত ঈদগাঁও উপজেলায় ফায়ার সার্ভিস স্টেশন স্থাপনের জোর দাবী ভুক্তভোগীসহ সাধারন লোকজনের।

স্বাধীনতার পর থেকে ঈদগাঁওকে উপজেলা বাস্তবায়ন দাবীটি ছিল দীর্ঘ কালের। ২০২১ সালের ২৬ জুলাই ঈদগাঁওকে উপজেলায় অনুমোদন দেন সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়। কিন্তু উপজেলা সদর দপ্তর, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, ফায়ার সার্ভিস স্টেশনসহ নানা গুরুত্বপূর্ণ দফতর স্থাপন না হওয়ায় ভোগান্তি শেষ হচ্ছেনা সেবা প্রত্যাশীদের। প্রতিবছর ঈদগাঁও বাজার ও আবাসিক এলাকায় দোকানপাটসহ বাড়িঘর আগুনে পুড়ে ছারখারসহ লক্ষ লক্ষ টাকা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে স্থানীয়দের।

ঈদগাঁও উপজেলার পাঁচ ইউনিয়নের লোকজন উপজেলা হওয়ার সাথে সাথে ফায়ার সার্ভিসসহ গুরুত্বপূর্ণ সেবাসমুহ  অতিসত্বর পাওয়ার স্বপ্ন দেখলেও তা বাস্তবায়ন এখনো অনিশ্চিতায়।

ঈদগাঁওর ইমরান মাহমুদ জনি এবং পোকখালীর রাসেল উদ্দিন জানান, ঈদগাঁওতে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন থাকলে অল্প সময়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছানো যেত, এলাকায় আগুনে পুড়ে যাওয়া বসতঘরে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ অনেকটা কম হত। তারা অবিলম্বে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন স্থাপনে জোর দাবী জানান সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট।

ভুক্তভোগীদের মতে, ঈদগাঁওতে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন থাকলে অনেক কিছু রক্ষা করা সম্ভব হত। রামু থেকে আসতে না আসতেই সবকিছু পুড়ে যায়। এলাকাতে ফায়ার সার্ভিস সময়ের যোক্তিক দাবী।

ঈদগাঁও ঐক্য কমিটির সহকারী সমন্বয়ক শামসুল আলম জানান, নবগঠিত ঈদগাঁও উপজেলায় ফায়ার সার্ভিস না থাকায় চরম আতংকে রয়েছে মানুষরা। কেননা অগ্নিকান্ড সংগঠিত হলে কক্সবাজার,চকরিয়া বা রামু থেকে ফায়ার কর্মী আসার আগেই সবকিছু পুড়ে শেষ হয়ে যায়। আগুন থেকে বাঁচার জন্য হলেও দমকল বাহিনী প্রয়োজন এলাকাতে।

প্রসঙ্গত- বিগত ৬ ফেব্রুয়ারী ঈদগাঁও ইউনিয়নের চাঁন্দেরঘোনা কাটামোরা এলাকায় আপন দুই সহোদয়ের বাড়ি আগুনে পুড়ার ঘটনায় ১৫ লক্ষ টাকা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

বিজ্ঞপ্তি

©দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার 2022All rights reserved