শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৭:৫৪ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকাতে আপনাকে স্বাগতম! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন,বিজ্ঞাপন দিন সহযোগী হোন! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন বেকারত্ব দূর করুন ।

কথায় আছে ‘মাঘের শীতে বাঘে কাঁপে

কথায় আছে ‘মাঘের শীতে বাঘে কাঁপে’। সেই কথার যথার্থতা রেখেই মাঘের শুরু থেকে শেষবারের মতো জেঁকে বসেছে শীত। বসন্তের কাছে মিলিয়ে যাওয়ার আগে পর্যন্ত এর তীব্রতা থাকবে বলে মনে করছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। ইতোমধ্যেই গত কয়েকদিন ধরে পঞ্চগড়ে বেশিরভাগ সহড় ও গ্রামের  ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে চলেছে। এবং আগামী কিছুদিন মধ্যদুপুর পর্যন্ত মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা থাকতে পারে। বৃহস্পতিবার  (২০ জানুয়ারি) সকালে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. রাসেল শাহ জানিয়েছেন,  আজ সকালে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১০ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আগের কয়েক দিনের তুলনায় সামান্য বাড়লেও কমেনি কুয়াশা ও উত্তরের হিমেল বাতাসের দাপট। মাঘের হিমশীতল বাতাসে কাবু হয়ে পড়েছে দেশের উত্তরাঞ্চলের জনজীবন। হিমেল বাতাসের সঙ্গে কুয়াশার দাপট বাড়ায় বিপাকে পড়েছেন খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষ। তীব্র শীত ও কুয়াশায় শীতজনিত রোগ বাড়ার পাশাপাশি ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে ফসলেরও। এর আগে গত শুক্রবার থেকে গতকাল বুধবার পর্যন্ত টানা ছয় দিন তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৮ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস থেকে ৯ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যাপ্ত ওঠানামা করে। বয়ে যায় মৃদু শৈত্যপ্রবাহ। ঘন কুয়াশা আর হিমেল বাতাসের কারণে অনেকটাই থমকে গেছে পঞ্চগড়ের জনজীবন। গতকাল রাত থেকেই বৃষ্টির মতো ঝরছে কুয়াশা। সকাল থেকে ঘন কুয়াশায় সামনের পথ পরিষ্কার দেখা যায় না। তাই সড়কগুলোয় হেডলাইট জ্বালিয়ে যানবাহন চলাচল করতে দেখা গেছে।

Please Share This Post in Your Social Media

বিজ্ঞপ্তি

©দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার 2022All rights reserved