মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০৩:২৯ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকাতে আপনাকে স্বাগতম! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন,বিজ্ঞাপন দিন সহযোগী হোন! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন বেকারত্ব দূর করুন ।
শিরোনাম :
রেমিটেন্স যোদ্ধাদেরকে সম্মাননা দেবে মহানগর আওয়ামী লীগ- আ জ ম নাছির উদ্দীন যাত্রীর স্বর্ণালংকারসহ ব্যাগ চুরি;এ্যাপসের সহায়তায় সিএনজি চালক আটক রোহিঙ্গারা যাতে ভোটার তালিকায় স্থান না পায় সে ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবেঃ জেলা প্রশাসক চলচ্চিত্র ‍‘হুইল চেয়ার’র প্রিমিয়ার শো চট্টগ্রাম শিল্পকলায় বৃহস্পতিবার বাগেরহাট জেলার সেরা অফিসার নির্বাচিত হয়েছেন এসি ল্যান্ড মোঃ আলী হাসান খেলাধুলায় সম্পৃক্ত থাকলে আমাদের সন্তানরা বিপদগামী হবে না-মহিউদ্দীন মহারাজ ভান্ডারিয়ায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় গোল্ড কাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট উদ্বোধন কোভিড-১৯ এর সার্টিফিকেট নিয়ে বিদেশগামী সাধারণ যাত্রীদের সাথে প্রতারণা;চক্রের ৭ সদস্য গ্রেফতার নগরীতে র‍্যাব-৭ ও ভোক্তা অধিকার যৌথ অভিযান;১২ হাজার লিটার তৈল জব্দসহ ৫ লক্ষ টাকা জরিমানা ঝুঁকিপূর্ণ সেতুটি সংস্কার করা হয়েছে 

গেম ও পর্নোগ্রাফি আসক্তির জেরে কিশোরের আত্মগোপন;৫ মাস পর উদ্ধার করল র‍্যাব

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
পাবজি গেম, পর্নোগ্রাফি এবং বিভিন্ন নিষিদ্ধ ওয়েবসাইট আসক্তির জেরে বাবা-মায়ের সাথে অভিমান করে কিশোরের আত্মগোপন। দীর্ঘ পাঁচ মাসের চেষ্টায় ক্লুলেস ও রহস্যময় ভাবে হারিয়ে যাওয়া কিশোরকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব-৭, চট্টগ্রাম।

উদ্ধারকৃত অভিক দে (১৫) রাউজান থানাধীন ডাবুয়া ইউনিয়নের প্রভাস দের ছেলে। বর্তমানে নগরীর চকবাজার থানাধীন ডিসি রোড এলাকার ভাড়াটিয়া।

গতকাল শুক্রবার (৬ মে) রাত ১১টায় নগরের চান্দগাঁও থানাধীন একটি রেস্ট হাউসের নিচের পানের দোকান থেকে তাকে উদ্ধার করে মা-বাবার কাছে ফিরিয়ে দেওয়া হয়।

শনিবার (৭ মে) বিকালে র‍্যাব-৭ এর সিপিসি-৩, চান্দগাঁও ক্যাম্প (বহদ্দারহাট) এ আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়ে র‌্যাব-৭ এর পরিচালক লে. কর্নেল মো. ইউসুফ বলেন, বিগত ২০২১ সালের ১০ ডিসেম্বর দুপুর ২টার দিকে অভিক দে চকবাজারের বাসা থেকে বের হয়ে আর বাসায় ফেরেনি। ছেলেকে খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে ওই বছরের ১১ ডিসেম্বর চকবাজার থানায় মা বাদী হয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। পরে নিখোঁজ ভিকটিমের মা-বাবা তার ছেলেকে কোথায়ও খুঁজে না পেয়ে আত্বাহারা হয়ে নিখোঁজ ছেলেকে ফিরে পাওয়ার আশায় র‌্যাব-৭ বরাবর একটি আবেদন করে বিষয়টি অবগত করে। র‌্যাব-৭, বিষয়টি গুরুত্বের সাথে নিয়ে নিখোঁজ ভিকটিম এবং এর সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের লক্ষ্যে ব্যাপক গোয়েন্দা নজরদারী অব্যাহত রাখে। নজরদারীর এক পর্যায়ে চট্টগ্রাম মহানগরীর চান্দগাঁও থানাধীন নিউ চান্দঁগাও থানামোড় অভিযান পরিচালনা করে ভিকটিমের মায়ের সনাক্ত মতে নিখোঁজ ভিকটিমকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয়।

র‍্যাবের এই কর্মকর্তা জানান, জিজ্ঞাসাবাদে অভিক জানিয়েছে, গত বছরের ১০ ডিসেম্বর দুপুরে মোবাইলে গেম খেলছিল। তখন বাবা-মা তাকে বলে ‘লেখাপড়া বাদ দিয়ে গেমস খেলছো কেন’? এরপর তারা শাসন করে। এক পর্যায়ে তার বাবা রাগের মাথায় বলে ‘তোমার রোজগার তুমি করে খাও’ এই নিয়ে রাগ করে কাউকে কিছু না বলে বাসা থেকে বের হয়ে যায়। ঘটনার দিনই অভিক দে চট্টগ্রাম শহরের অলংকার এলাকার একটি রেস্টুরেন্টে চাকরি নেয়। সেখানে এক মাস ২২ দিন চাকরি করার পর চান্দগাঁও নতুন থানার মোড় এলাকার আরেকটি রেস্টুরেন্টে চাকরি নেয়। সেখানে সে গত ১ ফেব্রুয়ারি থেকে কাজ করতে থাকে। একপর্যায়ে সেখানকার এক কর্মীর কথায় ক্ষুব্ধ হয়ে সেটি ছেড়ে পুনরায় চান্দগাঁও নতুন থানার মোড় নিউ চান্দগাঁও রেস্ট হাউজে চাকরি নেয়। ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে উদ্ধার হওয়ার আগ পর্যন্ত সেখানে কর্মরত ছিল।

তিনি জানান, ভিকটিমকে জিজ্ঞাসাবাদে আরও জানা যায়, নিখোঁজ ভিকটিম অভিক দে প্রাপ্ত বয়স্কদের একটা গ্রুপের সাথে চলাফেরা ছিলো। এই গ্রুপে অভিক দে অপহরন মামলার তিন আসামী হান্নান, লিও দাস, ও জয় নাম রয়েছে। হান্নান ইউরোপের পোল্যান্ড থাকে এবং জয় থাকে কাতারে। মূলত এরা বিশেষ করে যখন দেশে ছূটিতে থাকে তখন এ উশৃঙ্খল ও বিকৃত রুচির গ্রুপের কার্যক্রম বেড়ে যায়। নিখোঁজের সময় হান্নান ও জয় ছুটিতে ছিল। এ গ্রুপের সদস্যরা পরস্পর এডাল্ট ভিডিও শেয়ার করত ও ইন্টারনেট পর্নোগ্রফিতে আসক্ত ছিল। পাবজি খেলার পাশাপাশি অভিক দে এসবে আসক্ত হয়ে পড়ে। সে গোপনে বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ায় একাধিক একাউন্ট চালাত ও বেনামি ৫/৬ টি সিম ব্যবহার করত। পড়াশুনা প্রায় ছেড়ে দিযে সে সারাদিন এসব নিয়ে পড়ে থাকত বলে বাবা-মা কড়া শাসন শুরু করলে সে তার গ্রুপের অন্যান্য এডাল্ট দের মত স্বাধীনতার খোঁজে বাড়ি হতে বের হয়ে যায়। তার হদিস কেউ যেন না পায় এজন্য সে তার ব্যবহৃত মোবাইল টিও রেখে যায়।

আরও জানান, সে নিখোঁজ থাককালে সব জায়গায় তার আসল নাম পরিবর্তন করে নয়ন দে নামে পরিচয় দেয় এবং ইচ্ছে করেই বাবা-মাকে তার অবস্থানের কথা বলেনি। উদ্ধারকৃত ভিকটিম সংক্রান্তে পরবর্তী আইনানুগ কার্যক্রমের নিমিত্তে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

বিএস/কেসিবি/সিটিজি/১০ঃ৩০পিএম

Please Share This Post in Your Social Media

বিজ্ঞপ্তি

©দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার 2022All rights reserved