বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৫:২৫ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকাতে আপনাকে স্বাগতম! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন,বিজ্ঞাপন দিন সহযোগী হোন! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন বেকারত্ব দূর করুন ।
শিরোনাম :
১৭ মে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা,গণতন্ত্রের অগ্নিবীণা ও উন্নয়ন-প্রগতির প্রত্যাবর্তনঃ তথ্যমন্ত্রী নাজিরপুর অঞ্চলের কৃষকের স্বপ্ন প্রতি বছর তলিয়ে যায় পানির নিচে কালিহাতীতে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট উদ্বোধন রাজশাহী জেলা সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের ভোট স্থগিত প্রফেসর ডাক্তার উত্তম কুমার বড়ুয়াকে সংবর্ধিত করলো মিলন-পুর্নিমা ফাউন্ডেশন ঈদগাঁওর ৫ ইউনিয়নে আওয়ামী রাজনৈতিক অঙ্গনে চাঙ্গাভাব: উচ্ছাস তৃনমূলে চট্টগ্রামের হিজরা সুমন মানবিক কাজে আত্ম তৃপ্তি পান সরিষাবাড়ীতে দুই শিশু শিক্ষার্থী হারানোকে কেন্দ্র করে মাদ্রাসায় হামলা ভাঙচুর ও শিক্ষককে লাঞ্ছিত নাটোরে ধর্ষণ মামলায় যুবক গ্রেফতার মনোহরদীতে নৌকার প্রার্থীর প্রচারণায় হামলা, ভাংচুর

সড়কে প্রাণ গেল মিলির, প্রাণে বাঁচল স্বামী ও সন্তান

ঢাকা থেকে স্বামী ও সন্তান নিয়ে নাটোরে
গ্রামের বাড়িতে ফিরছিলেন মিলি। অনেক দিন পর বাবা-মা আর আত্মীয়-স্বজনদের  সাথে কখন দেখা হবে। সেই অপেক্ষার প্রহরের রাস্তা যেন শেষ হচ্ছিল না। চোখে মুখে ছিল আনন্দের ছাপ। এসময় বনপাড়া বাইপাস এলাকায় পৌঁছালে হঠাৎ দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে হয়। বাসের জানালার কাঁচের টুকরো আর জানালার লোহার অংশে মিলির মুখমন্ডলে রক্তাক্ত। সন্তানকে পাশের সিটে রেখে স্ত্রীকে বাঁচাতে আত্মচিৎকারে আর আকুতি যেন আশে পাশের কেউ শুনতে পায়নি। কান্নায় আশপাশের বাতাস যেন ভারি করে দিয়েছে। কিন্তু স্ত্রীকে উদ্ধারের জন্য কাউকে পাওয়া যায়নি। নিজের চোখের সামনে স্ত্রীর ধীরে ধীরে মৃত্যুের দিকে ঢেলে পড়ছিল। তিন বছরের ছেলে শিশু মহিবুর মায়ের কোলে যেতে মা মা বলে কান্না করছিল। সেই সময় বাবা রফিকুল ইসলাম বাকরুদ্ধ। সন্তানকে কি ভাবে শান্তনা দেবেন, সে ভাষাটুকুও জানা ছিল না। অবশেষে মৃত্যুের কাছে হেড়ে গেলেন লিলি। কান্না জড়িত কণ্ঠে এমন ঘটনার বর্ননা করছিলেন নিহত মিলির স্বামী রফিকুল ইসলাম। এমন মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় মিলির মৃত্যু হলেও সৌভাগ্যক্রমে প্রাণে বেঁচে গেছে কোলে থাকা তিন বছরের ছেলে শিশু মহিবুর রহমান ও পাশে বসা স্বামী রফিকুল ইসলাম।
শনিবার (৭ মে) বেলা ১১টার দিকে উপজেলার বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কের বনপাড়া বাইপাস এলাকায় গাজী অটো রাইস মিলের সামনে এ দুর্ঘটনা  ঘটে।
নিহত মিলি খাতুন নাটোর বাগাতিপাড়া উপজেলার গালিমপুর গ্রামের মৃত মাইনুল ইসলামের মেয়ে ও ওয়ালিয়া পালপাড়া গ্রামের রফিকুল ইসলামের স্ত্রী।
বনপাড়া হাইওয়ে থানার ওসি মশিউর রহমান বলেন, নাটোর বনপাড়ায় দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ৭ জন নিহত হয়েছেন। তার মধ্যে মিলি খাতুনও রয়েছে। পরিচয় শনাক্তের পর পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে নিহতের প্রত্যেককে ২৫ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে।
উল্লেখ্য: শনিবার(৭ মে) সকাল ১১টার দিকে ঢাকা থেকে ন্যাশনাল পরিবহনের একটি বাস রাজশাহী অভিমুখে যাচ্ছিল। বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কের মহিষভাঙ্গা এলাকার পাটোয়ারী ফিলিং স্টেশনের সামনে পৌঁছলে ন্যাশনাল বাসটি সামনে থাকা অপর একটি বাস অতিক্রম করার সময় বিপরীত দিক থেকে আসা সিয়াম পরিবহন নামের একটি বাসের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এ সময় সিয়াম পরিবহন ছিটকে গিয়ে গাজী অটোরাইস মিলের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা একটি ট্রাকের সাথে ধাক্কা লাগে। ন্যাশনাল পরিবহনও মহাসড়কের পাশের গাছের সাথে ধাক্কা লেগে কিছুটা নেমে যায়। এতে ন্যাশনাল ট্রাভেলসের ৫ যাত্রী ও সিয়াম পরিবহনের ২ যাত্রী মারা যায়।  এতে দুই বাসে থাকা অন্তত ২০ জন যাত্রীদের গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন ক্লিনিক ভর্তি করা হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

বিজ্ঞপ্তি

©দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার 2022All rights reserved