শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০১:৫৬ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকাতে আপনাকে স্বাগতম! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন,বিজ্ঞাপন দিন সহযোগী হোন! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন বেকারত্ব দূর করুন ।
শিরোনাম :
এনজিও খেকে অন্যের নামে ঋণ উত্তোলন করে অর্থ আত্মসাৎ; স্বামী স্ত্রী আটক এনজিও খেকে অন্যের নামে ঋণ উত্তোলন করে অর্থ আত্মসাৎ; স্বামী স্ত্রী আটক পুলিশ সদস্যের কব্জি বিচ্ছিন্নের ঘটনায় সন্ত্রাসী কবির গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এক সহযোগীসহ আটক নগরীর কোতোয়ালি থেকে ছিনতাইকৃত টাকাসহ ১ ছিনতাইকারী আটক বিচক্ষন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব,দক্ষ সংগঠক ও পরীক্ষিত রাজনীতিবিদ হিসাবে কেমন আ জ ম নাছির উদ্দিন? ফুলপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন  আসার পর ফুলপুরে পাল্টে গেছে দৃশ্যপট। ভুট্টা মাড়াই শেষে,  রাস্তার ধারে ভুট্টা গাছ পুড়ছে চাষীরা ।  ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে রাস্তার দু’ধারের নারিকেল গাছ  ।  গত কাল ছবিটি পোল্যাকান্দি প্রধান সড়ক থেকে তোলা ।  প্রেমের সম্পর্ক করে ধর্ষণ ও ব্ল্যাকমেইল;এক সাইবার প্রতারক আটক সিআরবি সাত রাস্তার মোড় থেকে চুরিকরা মোটরসাইকেলসহ আটক ১ আব্দুল গাফফার চৌধুরীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় সরকার,পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী

বানারীপাড়ায় শ্রমিক সংকটে বৈরী আবহাওয়ায় সোনালী ধান পানির নিচে

বরিশালের বানারীপাড়ায় ঝড় বৃষ্টিতে দিশেহারা কৃষক, শ্রমিক সংকটে ফসল বিনষ্টের আশংকায় কৃষকরা।ফসল আবাদ করে কৃষকরা ভেবেছিল অনেক লাভবান হবে। ঘরে ঘরে মেতে উঠবে নতুন ফসল তোলার আনন্দ। চারদিকে মৌ মৌ করবে পাকা ধানের সুঘ্রাণ। কিন্তু হয়েছে তার উল্টো ঝড় বৃষ্টিতে ভাসছে ক্ষেত শ্রমিক সংকটে কৃষক। ঝড় বৃষ্টিকে উপেক্ষা করে  সোমবার দুপুর ১২ টায় যাতায়াত অবস্থায় আজকের পত্রিকার রিপোর্টারের স্বচোখে দেখা মাঠে সোনালী ফসল পানি থেকে ঘরে তোলার চেষ্টায় কৃষকের ছোটাছুটি। এই অবস্থায় বানারীপাড়া উপজেলার সলিয়া বাকপুর ইউনিয়নের আহমেদাবাদ বেতালের ৭১নংমৌজার ১০ একর ১০০০ শতকের আবাদকারী কৃষক  ইয়ার হোসেনের সাথে কথা বললে তিনি বলেন,এ বছর আমাদের ফসল খুব ভালো হয়েছিল। হঠাৎ ক্ষতিকারক  কারেন্ট পোকার আক্রমণ, শ্রমিক সংকটে আর এই বৃষ্টি বৈরী আবহাওয়ায় ফসল এখন বিনস্টের মুখে। ফসল আবাদ করে আশা ছিল আমাদের খুবই লাভবান হবে কিন্তু স্বপ্ন এখন বিনস্টের মুখে।ফসল আবাদ করতে আমাদের যে খরচ হয়েছে তার খরচা উঠবে কি না তাই সন্দেহ। এখন এই অবস্থায় সকলের সহযোগীতায় সরকারি পৃষ্ঠপোষকতায় আমাদের পাশে এসে দাঁড়ালে আমরা উপকৃত হবো। কৃষক মোঃ মালেক ও মোঃ জসিম দুজনেই  একই কথা বলেন ফসল ভালো হওয়া সত্ত্বেও আবহাওয়া ও পানির কারণে ঘরে কতটুকু নিতে পারব তা সঠিক জানা নেই। এছাড়াও বানারীপাড়া উপজেলা সহ বিভিন্ন ইউনিয়নে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, অল্প কিছু কৃষকের আগাম ফসল পাকার কারণে এবং নিজস্ব লোকজন থাকায় ধান ঘরে তুলতে পেরেছেন। তাছাড়া সব জায়গাতেই ক্ষতির সম্মুখীন হতে হচ্ছে কৃষকদের। এ সম্পর্কে বানারীপাড়া উপজেলা কৃষি অফিসার মোঃ জাহিদুল ইসলাম বিশ্বাস বলেন, বৈরী আবহাওয়া ও ভাপসা গরমের কারণে ধানক্ষেতে পোকা হয়।তবে ধান দাঁড়ানো অবস্থায় থাকতে কীটনাশক প্রয়োগের মাধ্যমে পোকা র্নিমূল হতে পারে। কিন্তু ধান নুয়ে গেলে তা সম্ভব  হয় না। এক্ষেত্রে উপ-সহকারী ও মাঠকর্মীদের ট্রেনিং এর মাধ্যমে পায়রাজিন,টিডো,মিসকিন,সিসকিন বিভিন্ন কীটনাশক প্রয়োগে
 পোকা দমন করা যেতে পারে। সরকারি সহযোগিতায় বিভিন্ন ট্রেনিং ঔষধ বীজ সার দিয়ে কৃষকদের সহায়তা করা হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

বিজ্ঞপ্তি

©দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার 2022All rights reserved