রবিবার, ২৬ Jun ২০২২, ০৫:৫২ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকাতে আপনাকে স্বাগতম! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন,বিজ্ঞাপন দিন সহযোগী হোন! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন বেকারত্ব দূর করুন ।
শিরোনাম :
বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতায় মাদার তেরেসা পদক পেলেন এস এম পিন্টু পদ্মা সেতুর উদ্বোধনে রামগঞ্জ থানা পুলিশের বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে বগুড়া জেলা প্রশাসকের আয়োজনে শোভাযাত্রা পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উদ্‌যাপনে, বাংলাদেশ পুলিশের্ নিরাপত্তা প্রস্তুতি সম্পন্ন অবিলম্বে দেশে ভোজ্যতেলের দাম সমন্বয়ের দাবি-ক্যাব ফুলপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের উদ্যোগে ৭৩ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত।  বাঙালি জাতির সমস্ত অর্জন এসেছে আওয়ামী লীগের হাত ধরে -তথ্যমন্ত্রী পদ্মা সেতু উদ্বোধনে মহিউদ্দিন মহারাজের নেতৃত্বে ৬টি লঞ্চে পিরোজপুরের ১৫ হাজার নেতাকর্মীরা অংশ নেবেন ময়মনসিংহ আইটি ও হাই-টেক পার্ক এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন লাকসামে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭৩ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

চট্টগ্রামের হিজরা সুমন মানবিক কাজে আত্ম তৃপ্তি পান

একেবারে মধ্যবিত্ত ঘরের সন্তান সুমনা হিজড়া প্রকাশ মো. সুমন। ১৯৮৩ সালে (৫ই জুলাই ) কক্সবাজার জেলার মহেশখালী উপজেলার তিতা মাঝিপাড়া গ্রামের পুরাতন বাজার এলাকায় মুসলিম পরিবারে সুমনা হিজড়া প্রকাশ মো. সুমনের জন্ম। বাবার নাম সিদ্দিকুর রহমান আর মায়ের নাম আসমা বেগম। চার ভাই ও চার বোনের মধ্যে তিনি সবচেয়ে ছোট।

যখন সুমনের বয়স সাত বছর মা আসমা বেগম তখন মারা গেছেন এবং যখন মায়ের গর্ভে সুমনের বয়স তিন মাস সেই সময় তার বাবাকে হারান।

সম্প্রতি সরেজমিন কথা হয় সুমনের সঙ্গে। আলাপচারিতায় উঠে আসে তার জীবনের বৈচিত্রময় ঘটনা, দুঃখ গাঁথা ইচ্ছে ও আকাঙ্খার কথা।

ছোটবেলায় আমার পরিবার মনে করতো আমাকে জ্বীন-ভূতে ধরেছে,এই কারণে আমি মেয়েদের মত আচরণ করছি। বিভিন্ন জায়গায় কবিরাজি চিকিৎসা করিয়েছে এবং শারীরিক নির্যাতন ও করেছে।

কথাগুলো বলছিলেন চট্টগ্রামের নিমতলা তালতলা এলাকার তৃতীয় লিঙ্গের সুমন।

জন্মগতভাবে তার লিঙ্গ পরিচয় পুরুষের মত হলেও বয়ঃসন্ধিকালে তিনি বুঝতে পারেন তার পুরুষ সহপাঠী বা খেলার সাথিদের থেকে সে আলাদা।

সুমন বলছেন,তিনি ছোটবেলা থেকে মেয়েদের মত সাজগোজ, ঘর গৃহস্থালির কাজ করা, মেয়েদের সঙ্গ- তার বেশি প্রিয় ছিল।

ফলস্বরুপ বাবা -মায়ের বকা, মারপিট এমনকি তাবিজ-কবজ দিয়ে তার চিকিৎসাও করা হয়েছে। তার পরিবারের কাছে সুমন ছিলেন অসুস্থ।

সুমন বলেন,আমি যাতে বাড়ি থেকে বের না হই, কারো সাথে কথা না বলি সেই ব্যবস্থা তারা করেছিল। কারণ,আমি মানুষের সঙ্গে কথা বললেই তারা বলছে আমি হিজড়া। প্রতিনিয়ত আমার বাবা-মা,ভাই-বোন আমার দোষ ধরা শুরু করলো।

আমি নিজেও জানি না ঐসময় যে আমি কে, আমি কেন, এই মুহূর্তে আমার কি করা উচিৎ, আমি কোথায় যাবো, কার কাছে যাবে, আমার কি এই পৃথিবীতে কেউ নেই, আমি কি দুনিয়াতে একাই এইরকম, আমার মত কি আর কেউ নেই এসব প্রশ্ন আমাকে কুঁড়ে কুঁড়ে খেতো। আমি একসময় আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম, এ কথাগুলো বলেন বন্দর তালতলা এলাকার মানবিক সুমনা হিজরা প্রকাশ মো.সুমন।

সুমন আরো বলছেন, তার বয়স যখন ১২/১৩ বছর। এই সময়ে তার পরিচয় হয় তারই মত তৃতীয়-লিঙ্গের এক ব্যক্তির সঙ্গে। তিনি তখন হিজড়াদের ডেরায় সুমনকে নিয়ে যান। সুমন বলছেন যখন তিনি বাড়ি থেকে বের হয়ে যান তখন তার পরিবার হাফ ছেড়ে বেঁচে যায়।

এখনো তার পরিবার তাকে মেনে নেননি। চট্টগ্রামের মানবিক সুমন হিজড়া এখন একজন রূপান্তরিত পুরুষ। জন্মগতভাবে পুরুষ হিসেবে জন্ম নেয়।

মানবিক সুমনা হিজরা প্রকাশ মো.(সুমন) সম্পর্কে জানতে চাইলে ষ,চট্টগ্রাম জেলা ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. শফিকুর রহমান বলেন, আমি তাকে খুব অল্প বয়স থেকেই চিনি অর্থাৎ যখন তার বয়স বারো কিংবা তেরো তখন থেকেই তার সাথে আমার সু-সম্পর্ক গড়ে ওঠে। আমার দেখা গরীব, ছেলে-মেয়েদের জন্য বই কিনে দেওয়া,অসহায় মেধাবী শিশুদেরকে স্কুল খরচ চালিয়ে যাওয়া, বিয়ে, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানসহ নানা সামাজিক কাজকর্মে সুমন এখনও অবদান রেখে চলেছেন। গরীব মানুষকে চাল, নগদ টাকা দিয়ে সহায়তা করেন সুমন হিজরা । কোভিড ১৯ এর সময় অসহায় দরিদ্র এমনকি চট্টগ্রামের প্রায় ট্রাক চালকদের মাঝে সুমন ব্যক্তিগতভাবে আর্থিক সহযোগিতা করে তাদের পাশে থাকার চেস্টা করেন।

তিনি আরো বলেন, সুমন একজন মানবিক হিজরা, যিনি সবসময় মানবতার কল্যাণে নিয়োজিত থাকেন। করোনার সময় পথশিশুদের মাঝে রান্না করা খাবার শহরের গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে প্রতিনিয়ত বিলিয়ে গেছেন তিনি। সুমনের অনেক মানবিক কাজ আছে যা আমি আপনাকে পরবর্তীতে আরও বিস্তারিত জানাবো।

Please Share This Post in Your Social Media

বিজ্ঞপ্তি

©দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার 2022All rights reserved