মঙ্গলবার, ২৮ Jun ২০২২, ১২:০২ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকাতে আপনাকে স্বাগতম! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন,বিজ্ঞাপন দিন সহযোগী হোন! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন বেকারত্ব দূর করুন ।
শিরোনাম :
দালাল ধরতে চট্টগ্রাম মহানগরীর কাট্টলী সার্কেল ভূমি অফিস ও আশেপাশের এলাকায় অভিযানঃএক দালালকে অর্থদণ্ড “অসহায় ও দরিদ্র বিচার প্রার্থী জনগণের শেষ আশ্রয়স্থল লিগ্যাল এইড:সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আজিজ আহমদ ভূঞা ২য় দিনের মত সুনামগঞ্জ জেলায় ত্রাণ ও নগদ অর্থ বিতরণ করলেন কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে কাউখালীতে আলোচনা সভা ও আনন্দ র‌্যালি শার্শা সাব-রেজিস্ট্রী অফিসের কর্মচারী ও দলিল লেখক গনের প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম রথ উৎসব ধামরাই শ্রীশ্রী যশোমাধব দেবের রথ উৎসব ও মাসব্যাপী রথমেলা শুরু হবে শুক্রবার ময়মনসিংহ কৃষি ব্যাংক বিভাগীয় মহাব্যবস্হাপকের বিশেষ উদ্যোগে বন্যা কবলিত ভানবাসি মানুষকে সহায়তা প্রদান করছেন। স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত এমপি মোতাহার হোসেন মাদক একেবারে নির্মূল করা না গেলেও সমন্বিত উদ্যোগে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব:চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার ময়মনসিংহের শম্ভুগঞ্জের রঘুরামপুরে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মহিলা নিহতের ঘটনায় -আটক-৯

বিচক্ষন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব,দক্ষ সংগঠক ও পরীক্ষিত রাজনীতিবিদ হিসাবে কেমন আ জ ম নাছির উদ্দিন?

কমল চক্রবর্তীঃ

সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে হৃদয়ে ধারণ করে রাজনীতি করা একজন রাজনৈতিক নেতা আবু জাহেদ মোহাম্মদ নাছির উদ্দীন। যিনি আ.জ.ম. নাছির উদ্দীন নামেই সর্বাধিক পরিচিত। যিনি নিজেকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের ক্ষুদ্র একজন সৈনিক এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার একজন কর্মী হিসাবে গণ মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। চসিক এর সাবেক সফল মেয়র, বিচক্ষন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ,দক্ষ সংগঠক ও মানবিক মানুষ এবং চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির। তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন পরীক্ষিত রাজনীতিবিদ যিনি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এর পঞ্চম মেয়র হিসেবে(৭ মে ২০১৫-৫ আগস্ট ২০২০) সফল ভাবে ও দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি বলিষ্ঠ নেতৃত্বের মাধ্যমে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পাশাপাশি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সহ-সভাপতি এবং চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নিয়োজিত রয়েছেন।

দক্ষ ও সফল রাজনীতিবিদ ৬৫ বছর বয়সী নাছির উদ্দীন ১৯৫৭ সালের ১ জানুয়ারি অভিবক্ত বাংলার চট্টগ্রামে এক সম্ভ্রান্ত ও ধার্মিক মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেন । তার বাবা সৈয়দ মঈনুদ্দিন হোসাইন ছিলেন একজন শিক্ষানুরাগি এবং মা ফাতেমা জোহরা বেগম ছিলেন একজন আদর্শ গৃহিণী ও ধর্মশীলা। তিনি মা বাবার একজন গর্বিত সন্তান। মায়ের প্রতি ছিল তার অগাধ সন্মান ও শ্রদ্ধা।  তিনি ১৯৭৩ সালে চট্টগ্রাম সরকারি মুসলিম উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক এবং পরবর্তীতে চট্টগ্রাম কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেন এবং স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেন।

স্কুলে পড়ালেখার করার সময় থেকেই ছাত্রলীগের সঙ্গে যুক্ত হন তিনি। ছাত্রলীগের পতাকাতলেই অংশ নেন ঊনসত্তরের ঐতিহাসিক গণঅভ্যুত্থানের আন্দোলন সংগ্রামে। অনেক চড়াই উতরাই পার করে নিজেকে সম্পৃক্ত রেখেছিলেন রাজনীতিতে। তিনি একজন পরীক্ষিত রাজনীতিবিদ। যিনি তৃণমূল থেকে উঠে এসেছেন। ১৯৭৭ সালে চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি এবং নগর ছাত্রলীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক নির্বাচিত হন আ জ ম নাছির। ১৯৮০ এবং ১৯৮২ সালে দায়িত্ব পালন করেন চট্টগ্রাম নগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে। ১৯৮৩ এবং ১৯৮৫ সালে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি নিযুক্ত হন তিনি। নাছির উদ্দীন পর পর দুইবার নগর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য নির্বাচিত হন। নভেম্বর ২০১৩ সালে নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে মনোনীত হন। ২০১৫ সালের চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে তিনি মেয়র হিসেবে নির্বাচিত হন এবং ৭ মে শপথ গ্রহণ করেন এবং ২০২০ সালের ৫ আগস্ট সফল ভাবে মেয়াদ শেষ করেন।

এছাড়া দীর্ঘকালীন ক্রীড়া সম্পৃক্ততার কারণে ক্রীড়া বিনোদনের মাধ্যমেই নাছির উদ্দিন পরিচিতি লাভ করেন। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সহ-সভাপতি এবং পরবর্তীতে চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নিযুক্ত হওয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের সাথে তিনি নানাভাবে সম্পৃক্ত। বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের একজন অন্যতম পৃষ্ঠপোষক।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মানবিক মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দিন। তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন একনিষ্ঠ রাজনীতিবিদ, চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সহ-সভাপতি। তিনি বিশেষ করে আলোচনায় আসেন করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) এর মহামারিতে সারা বিশ্ব যখন স্তব্ধ হয়ে পড়েছে। বাংলাদেশেও করোনা ভাইরাস এর ব্যাপক প্রভাব বিস্তার করতে শুরু করল তখন অনেক গুরুত্বপূর্ণ সম্পর্কেও চির ধরেছে। সবাই মৃত্যু ভয়ে রক্তের সম্পর্কেও অস্বীকার করেছে। ত্যাগ করেছে একে অন্যকে। পরিবারের কেউ কারো পাশে দাঁড়াতে চায়নি। ঠিক সেই সময় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে নগরবাসীর সেবায় মৃত্যুভয় উপেক্ষা করে নগরের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে ছুটে গিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন সাবেক এই মেয়র। করোনাকালীন সময়ে তিনি কখনো ছিটিয়েছেন জীবানুনাশক স্প্রে, কখনো চালিয়ে যাচ্ছেন মশক নিধন কার্যক্রম, ত্রাণ বিতরণ কর্মসূচি এবং তিনি সার্বক্ষণিক মাঠে উপস্থিত থেকে করোনা থেকে নগরবাসীকে রক্ষা করতে নিয়েছেন একের পর এক মহৎ উদ্যোগ। করোনা ভয়কে জয় করে সর্বদা মাঠে ছিলেন। কখনো অর্থ সহায়তা নিয়ে কখনো ত্রাণ নিয়ে। করোনাকালীন নগরবাসীর ভরসার জায়গায় পরিনত হয়েছিলেন।

করোনাকালীন সময়ে সাবেক এই মানবিক মেয়রকে দেখা গেছে, মাইক্রোবাসে করে জনসচেতনতামূলক মাইকিং করতে, কখনো নিজেই ঘরে ঘরে ত্রাণ পৌঁছে দি্যেছেন। নিজ উদ্যেগে খুলেছিলেন ত্রাণ সহায়তা কেন্দ্র। তিনি শুধু গরীব অসহায়দের পাশে দাঁড়াননি। সমাজের মধ্যবিত্তদের জন্য চালু করেছিলেন এসএমএস এর মাধ্যমে রাতের আঁধারে ত্রাণ সহায়তা পৌঁছে দেয়ার কার্যক্রম। যা একদিকে যেমন প্রসংসিত হয়েছে অন্যদিকে অনেকে এই সেবা চালু করেছিল।

চট্টগ্রামে বাড়িয়েছেন চিকিৎসাসেবার পরিধি। করোনা প্রতিরোধে জনসাধারণ যাতে ঘরে থাকে এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে কর্মহীন দরিদ্র পরিবারের মাঝে বাড়িয়ে দিয়েছেন সাহায্য সহযোগিতার হাত। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার কারিগর জননেত্রী শেখ হাসিনার উপহার সামগ্রীসহ সরকারি ত্রাণ সামগ্রী এবং তার নিজস্ব অর্থায়নের খাবার বিলিয়েছেন অকাতরে, বিতরণ করেছেন নগদ অর্থও। তিনি নিজস্ব তহবিল থেকে করোনাকালীন সময়ে ১ কোটি টাকার অধিক নগদ অর্থ বিতরণ করেছেন।

সাবেক এই মানবিক মেয়র সবচেয়ে বেশি সময় ব্যয় করছেন করোনাকালে নগরবাসীর সাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণসহ সরকার ঘোষিত করোনা চিকিৎসার জন্য বরাদ্দকৃত হাসপাতালের পাশাপাশি আরও নতুন নতুন বেসরকারি হাসপাতাল এবং কমিউনিটি সেন্টার থেকে শুরু করে করোনা স্পেশেলাইজড হাসপাতালে পরিণত করে সাময়িক করোনা চিকিৎসায় সংযুক্ত করার মাধ্যমে নগরবাসীর সুচিকিৎসার ব্যাবস্থা গ্রহণ করা। মানবতার ফেরিওয়ালা হয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন চট্টগ্রাম মেয়র আ.জ.ম নাছির। প্রশংসিত হয়েছে মানবিক কর্মকান্ডের জন্য। প্রতিমাসের বেতনের সবটুকুই তিনি দান করেন প্রতিবন্ধীদের সহায়তা ও ছিন্নমূল শিশুদের জন্য। কর্পোরেশনের বোনাসের টাকা তিনি অসহায় দুস্থ গরিবদের দান করেন। সিটি কর্পোরেশন থেকে কোনো সুযোগ-সুবিধা তিনি নেন নি। যা একজন মেয়র হিসাবে অনন্য নজির স্থাপন করেছেন। তার বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের বিষয়ে কেউ আঙ্গুল তুলতে পারেনি। এক কথায় তিনি একজন পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ ও সমাজ সেবক। সকল লোভ লালসার উদ্ধে উঠে নিরলস কাজ করে গেছেন নির্লোভী এই মানুষটি।

বাংলাদেশের করোনাকালীন পরিস্থিতি মোকাবিলায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়নে সদা তৎপর ছিলেন আ জ ম নাছির উদ্দিন। তিনি নিজ উদ্যেগে আগ্রাবাদস্থ কমিউনিটি সেন্টার সিটি হলে করোনা রোগীদের সেবায় প্রায় ২ কোটি টাকা ব্যয়ে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট আইসোলেশন সেন্টার স্থাপন করেছেন। চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালকে করোনা চিকিৎসার জন্য বিশেষায়িত হাসপাতাল হিসেবে প্রস্তুত করার উদ্যোগ করেছিলেন। মোট কথা করোনাকালীন সময়ে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি।

বিচক্ষন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ,দক্ষ সংগঠক ও পরীক্ষিত রাজনীতিবিদ হিসাবে কেমন আ জ ম নাছির উদ্দিন এই প্রশ্নের উত্তরে এক বাক্যে বলা যায়, আ জ ম নাছির আওয়ামী লীগের একজন পরীক্ষিত নেতা তাতে কোন সন্দেহ নাই। রাজনৈতিক নানা টানাপোড়ন ও পট পরিবর্তন  এর মধ্যেও অবিচল ছিলেন আওয়ামী রাজনীতির সাথে। বিচক্ষনাতার সাথে রাজনৈতিক যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলায় সিদ্ধহস্ত। ছাত্রাবস্থা থেকে রাজনীতি করে আসা একজন সামান্য কর্মী থেকে আজকে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের একজন অন্যতম সংগঠক ও সাধারণ সম্পাদক। নগর আওয়ামীলীগের অন্যতম একজন নীতি নির্ধারকও বটে। দলীয় নেতা কর্মীদের কাছে তিনি একজন আদর্শিক ও সাহসী নেতা। ভরসার জায়গা হিসাবে যে কোন প্রয়োজনে নেতা কর্মীরা ছুটে আসেন তার কাছে। রাজনৈতিক জীবনের দীর্ঘ পথ পরিক্রমায় ৬৫ বছর বয়সেও দক্ষতার সাথে সামাল দিচ্ছেন রাজনৈতিক গুরু দায়িত্ব। দলীয় নেতা কর্মীদের সংগঠিত করে দলীয় কাজে সম্পৃক্ত রাখা এবং পালন করছেন তাদের একজন অবিভাবকের ভূমিকাও। আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়নে মেয়র পদে ছিলেন ৫ বছর। তিনি ৫ বছর মেয়রের দায়িত্ব পালনেও দক্ষতার ছাপ রেখেছেন। বলা যায় একজন সফল মেয়র ছিলেন। মেয়াদকালে নিয়েছিলেন সবুজায়ন, ফুটপাত দখলমুক্ত করন ও বাগান স্থাপন, মশক নিধন ও ড্রেনেজ সম্প্রসারণ, ডোর টু ডোর ময়লা অপসারণ, চসিক পরিচ্ছন্ন কর্মীদের জন্য আবাসন সুবিধা প্রদানে ফ্ল্যাট নির্মানসহ বেশ কিছু কার্যকর প্রদক্ষেপ। মোট কথা নাগরিক সেবার মান বাড়িয়েছেন। একজন দক্ষ ক্রীড়া সংগঠক হিসাবেও তিনি সফল। এমন প্রকৃত ত্যাগী ও আদর্শিক নেতাই হোক আওয়ামীলীগের আগামী দিনের কাণ্ডারি।

লেখকঃ সিনিঃ স্টাফ রিপোর্টার ও চট্টগ্রাম বিভাগীয় প্রধান
জাতীয় দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার ও দ্যা ডেইলী বাংলাদেশ ডায়েরি
০১৭১৮৯৯১৩৯৮

Please Share This Post in Your Social Media

বিজ্ঞপ্তি

©দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার 2022All rights reserved