বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০২:৩০ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার পত্রিকাতে আপনাকে স্বাগতম! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন,বিজ্ঞাপন দিন সহযোগী হোন! বাংলাদেশ সমাচার পড়ুন বেকারত্ব দূর করুন ।
শিরোনাম :
বিলস্ এর নব-নির্বাচিত নেতৃবৃন্দকে বিএল এফ চট্টগ্রাম জেলা ও মহানগর কমিটির সংবর্ধনা বাবাকে হত্যার পর সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার ছেলে নিজেই থানায় গিয়ে হত্যার কথা জানালেন পুলিশকে বিলস্ এর নব-নির্বাচিত নেতৃবৃন্দকে বিএল এফ চট্টগ্রাম জেলা ও মহানগর কমিটির সংবর্ধনা ভূমিকম্পে তুরস্ক ও প্রতিবেশী সিরিয়ায় নিহতের সংখ্যা ৫ হাজার ছাড়িয়েছে পিএসজিতে চুক্তির মেয়াদ বাড়াতে পারেন লিওনেল মেসি মোঃ ইসমাইল হোসেন সাহেবকে শুভেচ্ছা উপহার তুলে দেন -মোঃ গোলাম মাওলা সাকিব বাবাকে হত্যার পর ছেলে নিজেই থানায় গিয়ে হত্যার কথা জানালেন পুলিশকে নবীনগরে নবনির্মিত শহীদ মিনারের শুভ উদ্বোধন ও মা সমাবেশ অনুষ্ঠিত মানিকগঞ্জ সদর ও সিংগাইর উপজেলায় অভিযান চালিয়ে ১১ কেজি গাঁজাসহ আটক-৪ কোনো কাজী বাল্য বিবাহ সম্পাদন করলে লাইসেন্স বাতিল- জ্যোতি বিকাশ 

বন্ধুর বিপদে এসএসসি ২০১৪ ও এইচএসসি ২০১৬ বাংলাদেশ ব্যাচ

বন্ধুর পাশে বন্ধুরা সেই সম্পর্কের স্থান থেকেই এসএসসি ও এইচএসসি ১৪-১৬ ব্যাচের এক বন্ধু আল-আমিনের বিপদে পড়ে সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের ‘এসএসসি ২০১৪ এবং এইচএসিস ২০১৬ বাংলাদেশ’ গ্রুপের কাছে সাহায্যের আবেদন করলে তারই প্রেক্ষিতে অর্থ সহায়তা দেওয়া হয়েছে।
শুক্রবার (২ সেপ্টেম্বর) সকালে ফরিদপুর জেলার সদর উপজেলার “সৈয়দ আলী মাতুব্বরের তাঙ্গি” গ্রামে কৃষক মাকসুদুর রহমান এর ছেলে আল আমিন এর হাতে  ‘এসএসসি ২০১৪ এবং এইচএসসি ২০১৬ বাংলাদেশ’ গ্রুপের সদস্যরা এ সহযোগীতা তুলে দেন।
আল-আমিনের বাবা গরীব কৃষক শেখ মাকসুদুর রহমান। এছাড়া তিন ভাই বোনের মধ্যে আল-আমিন বড়। পরিবাবের একমাত্র বাবাই উপার্জনশীল ব্যক্তি।
এ বিষয়ে  ‘এসএসসি ২০১৪ এবং এইচএসিস ২০১৬ বাংলাদেশ’ গ্রুপের পরিচালনা পর্ষদের এক সদস্য বলেন, ‘আমরা সকলে অগ্রগামী, সৃজনশীল চিন্তা চেতনা, সাম্য ও ভালোবাসার মনোভাব নিয়ে সবাইকে নিয়েই গ্রুপটা করেছি, এটা সবার গ্রুপ পুরো বাংলাদেশ এর ১৪-১৬ ব্যাচের ভালোবাসার একমাত্র গ্রুপ হয়ে প্রতিনিধিত্ব করে।
তিনি আরো বলেন, ‘ফরিদপুর জেলাতে বসবাসকারী আমাদের এক বন্ধু আল-আমিন কিডনি রোগে আক্রান্ত তার দুইটা কিডনি নষ্ট হয়ে গেছে। তার বাবা কৃষি কাজ করেন এবং ৩ ভাই বোনের মধ্যে আল-আমিন বড়। এতো দিন তার চিকিৎসা ভালো ভাবেই চলছিলো। এখন ডাক্তার তার পরিবার কে জানায়, জরুরী ভিত্তিতে তার কিডনি ট্র্যান্সপ্ল্যান্ট করতে হবে। যা অনেক ব্যয়বহুল ১০-১২ লাখ টাকা লাগবে।  যেটা আল-আমিনের পরিবার থেকে জোগাড় করা অনেক কষ্টকর। তাই আমরা আমাদের গ্রুপের বন্ধুরা মিলে আমাদের সামর্থ্য অনুযায়ী তার পাশে থাকার চেষ্টা করেছি। আজ  বন্ধু আল-আমিন এর পরিবারের হাতে ৮৪ হাজার টাকা তুলে দেয়া হয়েছে। এতে কিছুটা হলেও উপকৃত হয়েছে অসহায় আল-আমিন ও তার পরিবার।


বিজ্ঞপ্তি

©দৈনিক বাংলাদেশ সমাচার 2022All rights reserved